আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

মানিকগঞ্জের ঘিওরে ফিরোজ আলম ও রৌশন আরা শ্রেষ্ঠ সহকারী শিক্ষক নির্বাচিত

news-image

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী এক প্রাথমিক বিদ্যাপীঠের নাম ধূলন্ডী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। ১৮৯১ সনে প্রতিষ্ঠিত এ বিদ্যালয়ের সুনাম ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের খ্যাতির কারনে দেশ হতে দেশান্তরে বিস্তার লাভ করেছে। এখানে পড়ালেখা করে অনেকে দেশ ও দেশের বাহিরে শীর্ষ পর্যায়ে কর্মরত ছিলেন ও আছেন। এ বিদ্যালয়ের অফিস সহায়ক থেকে শুরু করে সকল সহকারী শিক্ষক, প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটি অত্যন্ত আন্তরিক এবং দক্ষ। এর জলন্ত প্রমাণ অত্র বিদ্যালয়ের দুই সহকারী শিক্ষক ফিরোজ আলম ও রৌশন আরা আক্তার।

উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক পদক প্রতিযোগিতা-২০১৯ এ ধূলন্ডী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মেধাবী সহকারী পুরুষ শিক্ষক ফিরোজ আলম ও সহকারী  মহিলা শিক্ষক হিসেবে রৌশন আরা আক্তার প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহন করে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক পদকে ভূষিত হয়েছেন।

জনাব ফিরোজ আলম ধূলন্ডী গ্রামের স্বনামধন্য অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আমজাদ হোসেনের সন্তান। রৌশন আরা আক্তার অত্র উপজেলার পাটাইকোনা গ্রামের আনোয়ার হোসেনের মেয়ে। উভয় শিক্ষক মাষ্টার্স ডিগীধারী।

জানা যায়, শিক্ষকদের শিক্ষাগত যোগ্যতা, শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা, পাঠদানে দক্ষতা, ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের স্কুলমুখী করতে কার্যকর ভূমিকা, পাঠদানে আনন্দদায়ক পরিবেশ সৃষ্টি, প্রশ্নপত্র প্রণয়ন, বিদ্যালয়ের সৌন্দর্য বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন বিষয়ের ওপর শিক্ষকদের মেধা মূল্যায়ণের প্রেক্ষিতে এ সম্মাননা পদক প্রদান করা হয়।

২৮ নভেম্বর ঘিওর উপজেলা শিক্ষা অফিস কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত নির্বাচনী সভায় ঘিওর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আইরিন আক্তার এর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) আফিয়া সুলতানা কেয়া, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সৈয়দা নাজনীন আলম, ইউআরসি পরিদর্শক, ভাইস-চেয়ারম্যান কাজী মাহেলা. ঘিওর ইউপি চেয়ারম্যান অহিদুল ইসলাম টুটুল, পেঁচারকান্দা উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক ফারুক মিয়া, উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার, উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মন্ডলী প্রমুখ।

সহকারী শিক্ষক ফিরোজ আলম এবং রৌশন আরা যৌথভাবে প্রতিবেদককে বলেন, শ্রেষ্ঠ শিক্ষকের পদক পেয়ে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। এ পদক আমাদের কাজের গতি আরো বাড়িয়ে দিয়েছে বলে আমরা মনে করি।