আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

যারা মানবাধিকার হরণ করে, তারা বড় ডাকাত: ড. কামাল

news-image

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, দেশে মানবাধিকার বিষয়ে দলিল আছে, তার বাস্তবায়ন নাই। মানবাধিকার চাওয়ার কারণে নির্যাতন, অন্যায় আচরণের শিকার হচ্ছে দেশের মালিক জনগণ। যারা মানবাধিকার হরণ করে, তারা বড় ডাকাত।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ মানবাধিকার পর্যবেক্ষণ পরিষদ ‘বিশ্ব মানবাধিকার পরিস্থিতি ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

ড. কামাল বলেন, যে মানবাধিকারের জন্য ভাষা আন্দোলন, ছয় দফা আন্দোলন, গণ-অভ্যুত্থান ও স্বাধীনতার যুদ্ধ হয়েছে সেই মানবতাকে প্রতিষ্ঠা করার জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

তিনি বলেন, স্বাধীন দেশের মালিক হয়ে আমাদের যে অধিকার সেই অধিকারগুলো এক মুহূর্তের জন্য আমরা হারাতে পারি না। যারা মুক্তিযুদ্ধ করে স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও কথা বলার অধিকার আমাদের দিয়ে গেছেন, সেই অধিকার আমাদের নেই- এটা মনে করে তাদের সঙ্গে বেইমানি করতে পারি না।

ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক বলেন, বাঙালি জাতি অন্যায় মেনে নেওয়ার জাতি নয়। পাকিস্তান বুঝতে পারিনি, এজন্য তাদের মাশুল দিতে হয়েছে। স্বাধীন বাংলাদেশের অনেক স্বৈরশাসক বুঝতে পারিনি, তাদেরও মাশুল দিতে হয়েছে। এখনো যদি কেউ মনে করে অন্যায়ভাবে ক্ষমতায় থাকবে, তারা থাকতে পারবে না।

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন বলেন, আমার মনে হয় কোনো এক মূর্খতার শাসনে আমরা আছি। ব্রিটিশের ধ্যানধারণা থেকে আমরা বেরিয়ে আসতে পারিনি।

তিনি বলেন, পুলিশ কাউকে ধরে নিয়ে আদালতে গেলে আদালত জেলে পাঠিয়ে দেয়। অথচ কাউকে ধরে জেলে দিতে হলে তার নামে ওয়ারেন্ট, চার্জশিট দিতে হয়। আবার রিমান্ডের নামে চলে অত্যাচার। উচ্চ আদালত জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের কথা বললেও তা মানছে না আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বাংলাদেশ মানবাধিকার পর্যবেক্ষণ পরিষদের চেয়ারম্যান মো. নুরুল হুদা মিলু চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- সাবেক মন্ত্রী শেখ শহিদুল ইসলাম, সাবেক রাষ্ট্রদূত মো. মোফাজ্জল করিম, ব্যারিস্টার সারোয়ার হোসেন, অ্যাডভোকেট মাহবুব চিশতি মাসুম, তালুকদার মনিরুজ্জামান মনির, মো. নাসিররুদ্দিন প্রমুখ।

এ জাতীয় আরও খবর

কোয়ারেন্টিন শেষে বিদেশফেরত ২১৯ বাংলাদেশি কারাগারে

যত্রতত্র পশুরহাটের অনুমতি দেয়া যাবে না : ওবায়দুল কাদের

ভেন্টিলেটর কাজে লাগে না, মানুষ মরে যায়: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

করোনার ভয়াবহতা এখনও বাকি : ডব্লিওএইচও

আগামীকাল সকাল ১১টা থেকে সদরঘাটে প্রত্যক্ষদর্শীদের সাক্ষ্য নিবে তদন্ত কমিটি

সুন্দরগঞ্জে শিশু ধর্ষণচেষ্টা, যুবক গ্রেপ্তার

ভাগ্নিকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন, এরপর বাবা-মামা মিলে হত্যা

ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির ঘটনায় মহিলা পরিষদের উদ্বেগ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিকদের গ্রেপ্তারে সম্পাদক পরিষদের তীব্র নিন্দা

ওয়ারীতে গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগে স্বামী তিন দিনের রিমান্ডে

ডাক্তারদের থাকা-খাওয়ার কোনো দুর্নীতি হয়নি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

জাহিদকে সরিয়ে মতিয়াকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী করার দাবি সংসদে