বুধবার, ০৩ অক্টোবর ২০১৮, ০৩:০৪ অপরাহ্ন

শেখ কামাল ছিলেন আধুনিক ক্রীড়াঙ্গনের রূপকার: যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল বলেছেন, বহুমুখী প্রতিভার প্রাণোচ্ছল খোলামনের মানুষ ছিলেন শেখ কামাল। মহান মুক্তিযুদ্ধ, ছাত্ররাজনীতি, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড, খেলার মাঠ থেকে নাটকের মঞ্চ-সর্বত্র ছিল তার দীপ্ত উপস্থিতি। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকের বুলেট তার শারীরিক মৃত্যু ঘটিয়েছে কিন্তু তিনি মৃত্যুঞ্জয়ী হয়ে আছেন এ দেশের ক্রীড়ায়, সংস্কৃতিতে, সংগীতে। শেখ কামালই ছিলেন এ দেশের আধুনিক ক্রীড়াঙ্গনের রূপকার। 

সোমবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছেলে আবাহনী ক্রীড়া চক্রের প্রতিষ্ঠাতা শেখ কামালের ৭১তম জন্মদিনে ‘শেখ কামাল: উদ্দীপ্ত তারুণ্যের দূত’ শীর্ষক সংবাদচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে জাহিদ আহসান রাসেল এ কথা বলেন।  প্রতিমন্ত্রী বলেন, শৈশব থেকে ফুটবল, ক্রিকেট, হকি, বাস্কেটবলসহ বিভিন্ন খেলাধুলায় উৎসাহী শেখ কামাল স্বাধীনতার পর আবির্ভূত হন ক্রীড়া সংগঠক হিসেবে। তিনি উপমহাদেশের অন্যতম ক্রীড়া সংগঠন ও আধুনিক ফুটবলের অগ্রদূত আবাহনী ক্রীড়াচক্রের প্রতিষ্ঠাতা। এর মাধ্যমে তিনি দেশের আধুনিক ফুটবলের উন্মেষ ঘটিয়েছিলেন। প্রথম বিদেশি কোচ এনেছিলেন তিনি। 

জাহিদ আহসান রাসেল আরও বলেন, শেখ কামাল শুধু একজন সফল ক্রীড়াবিদই ছিলেন না, একজন সফল ক্রীড়া সংগঠক ও ছিলেন। তিনি দেশের ক্রীড়া উন্নয়নের অন্যতম পথ প্রদর্শক।শেখ কামালের মাত্র ২৬ বছরের সংক্ষিপ্ত কিন্তু কর্মময় জীবনের অর্ধশতাধিক আলোকচিত্র নিয়ে আয়োজন করা হয়েছে এই প্রদর্শনী। 
প্রদর্শনী উপলক্ষে প্রকাশিত হয়েছে একটি স্মারক গ্রন্থ। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী সালাহউদ্দিন, ‘শেখ কামাল: উদ্দীপ্ত তারুণ্যের দূত’ স্মারক গ্রন্থটির সম্পাদক কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ চেয়ারম্যান চৌধুরী নাফিজ সরাফাত, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ক্রীড়া সম্পাদক ও আবাহনী ক্রীড়া চক্রের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ, স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের ম্যানেজার তানভীর মাজহার তান্না এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুব ও ক্রীড়া উপকমিটির সদস্য মোহাম্মদ ফায়সাল আহসান উল্লাহ্।