আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

আদি ঢাকার ৯৬ পুকুর উধাও

news-image

ঢাকার ফরিদাবাদের হরিচরণ রায় রোডের বাসিন্দা আজিম বখশ। মাওলা বখশ সরদারের ছেলে আজিম বখশের জন্ম ১৯৪৭ সালের ২৫ ডিসেম্বর। নানা দুরন্তপনায় কেটেছে শৈশব। তাঁর ছেলেবেলার স্মৃতিতে এখনো অমলিন পুরান ঢাকার জলাশয়। বড় বড় পুকুরে গোসল করা ছাড়াও নিয়মিত সাঁতার প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হতো মহল্লা থেকে। যেসব পুকুরে তিনি সাঁতার কেটেছেন, সেগুলোর অস্তিত্ব এখন আর নেই। পুকুর ভরাট করে গড়ে উঠেছে বড় বড় অট্টালিকা। সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানই দখল ও ভরাট করেছে পুকুর।

আজিম বখশ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পুরান ঢাকার প্রতিটি মহল্লায় পুকুর ছিল। ফরিদাবাদ মাদরাসার গলিতে বড় একটা পুকুরে আমি নিজেও সাঁতার কেটেছি। বর্তমান আইজি গেটের সামনেও পুকুর ছিল। কিন্তু এখন কোনোটারই অস্তিত্ব নেই।’

জানা গেছে, ১৯২৪ সালে ব্রিটিশ টপোগ্রাফি মানচিত্রে ঢাকায় ১২০টি ছোট-বড় পুকুর দেখানো হয়েছে। কিন্তু ওই মানচিত্রে দেখানো এলাকা বর্তমানে জরিপ করে মাত্র ২৪টি পুকুর পেয়েছেন রিভার অ্যান্ড ডেল্টা রিসার্চ সেন্টারের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ এজাজ। বিগত ৯৬ বছরে ৯৬টি পুকুর উধাও হয়ে গেছে আদি ঢাকা থেকে। পুরান ঢাকায় ২৪টি পুকুরের অস্তিত্ব বর্তমানে থাকলেও আকারে তা অনেক ছোট হয়ে গেছে। আবার কোনো কোনো পুকুর দখলের পাঁয়তারা এখনো চলছে। পুরান ঢাকার ওই সব পুকুর রক্ষায় কখনোই জোরালো কোনো ভূমিকা রাখতে পারেনি সরকারি কোনো সংস্থা। দখল ও ভরাটের কবল থেকে বেঁচে যাওয়া বেশির ভাগ পুকুরের অবস্থান ধর্মীয় উপাসনালয়ের সঙ্গে। ফলে ধর্মীয় ও সামাজিক কারণে ওই সব পুকুর রক্ষা করা গেছে বলে মনে করে জরিপকারী সংস্থা। মাঠপর্যায়ে জরিপ, জিপিএস মানচিত্র এবং ছবির তথ্য বিশ্লেষণ করে জরিপের ফলাফল তৈরি করা হয়েছে।

জানা গেছে, ১৯২৪ সালের টপোগ্রাফি মানচিত্রে ঢাকার সীমানা ছিল অনেক ছোট। উত্তরে শাহবাগ, দক্ষিণে চর ইউসুফ ও চর কামরাঙ্গী, পশ্চিমে ধানমণ্ডি এবং পূর্বে মতিঝিল ও ইংলিশ রোডের মধ্যবর্তী এলাকাকে দেখানো হয়েছে মানচিত্রে। এই ছোট এলাকার মধ্যে ১২০টি পুকুর ছিল। এর বাইরে কৃত্রিমভাবে খনন করা ধোলাইখালের ওপর ছিল ১০টি সেতু। বুড়িগঙ্গার দক্ষিণ পারে ছিল জলাভূমি। রাজনৈতিক ও বাণিজ্যিক গুরুত্ব বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ঢাকায় বসতি গড়তে শুরু করে নানা অঞ্চলের মানুষ। বিশেষ করে অর্থনৈতিক গুরুত্বের কারণে গ্রামীণ জনপদের মানুষও ঢাকায় আসা শুরু করে। ওই সময় ঢাকার উন্নয়ন নিয়ন্ত্রণে তেমন কোনো গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। ফলে দখল ও ভরাট হয়েছে জলাশয়। ব্রিটিশ মানচিত্রে দেখানো আদি ঢাকার পুকুরও ভরাট হয়েছে সমানতালে। বর্তমানে যেসব পুকুর রয়েছে সেগুলোর আয়তনও বেশ ছোট হয়ে গেছে। কমিউনিটির নিয়মিত নজরদারিতে থাকায় ২৪টি পুকুর দখলের কবল থেকে রক্ষা করা গেছে বলে মনে করেন জরিপকারীরা।

১৯৭১ সালের পর থেকে ঢাকার পরিধি দ্রুত বাড়তে থাকে। বর্ধিত ঢাকায় পুকুরের সংখ্যা নিয়ে সরকারি নথিপত্রে একেক ধরনের তথ্য পাওয়া যায়। ১৯৮৫ সালে মত্স্য বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, বর্ধিত ঢাকায় মোট পুকুর ছিল দুই হাজারের মতো। তবে এখন পূর্ব দিকে বালু ও শীতলক্ষ্যা, উত্তর ও পশ্চিমে তুরাগ এবং দক্ষিণে বুড়িগঙ্গার দক্ষিণ দিকেও বেড়েছে রাজধানীর সীমানা। বিস্তীর্ণ এই এলাকার মধ্যে বর্তমানে মাত্র ২৪১টি পুকুর রয়েছে। এর বাইরে ৮৬টি বিল ও লেক রয়েছে। বর্তমানে ঢাকায় ধর্মীয় উপাসনালয়ের সঙ্গে ৪৩টি পুকুর রয়েছে। পুকুর, বিল ও লেক মিলিয়ে ৩২৭টি জলাশয় রয়েছে।

রিভার অ্যান্ড ডেল্টা রিসার্চ সেন্টারের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ এজাজ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এ সময় পুকুর ও দিঘিতে পরিপূর্ণ ছিল পুরান ঢাকা। কিন্তু ১০০ বছরের ব্যবধানে বেশির ভাগ দখল ও ভরাট হয়েছে। ঢাকায় মোট কত সংখ্যক জলাশয় রয়েছে এর সঠিক পরিসংখ্যান পেতেই এই জরিপ পরিচালনা করা হয়েছে। কারণ বেশির ভাগ সরকারি সংস্থাগুলোর কাছেও পুকুরের সঠিক সংখ্যা নেই।’

তিনি আরো বলেন, ‘বর্তমানে রাজধানীতে ৩২৭টি জলাশয় রয়েছে। এগুলো রক্ষা করতে না পারলে এই শহরের জলাধার থাকবে না। দখলের কারণে আয়তনে ছোট হয়ে যাওয়া পুকুরের ভূমি উদ্ধার করে হলেও তা সচল রাখা উচিত।’

নগর পরিকল্পনাবিদদের তথ্য বলছে, একটি বাসযোগ্য শহরে কমপক্ষে ১০-১৫ শতাংশ জলাশয় থাকা দরকার। ঢাকার পুকুরগুলো প্রাকৃতিক জলাধার হিসেবে ব্যবহূত হয়ে আসছিল। কিন্তু পুকুর ধ্বংসের কারণে ঢাকায় জলাবদ্ধতাসহ নানা ধরনের জটিলতা তৈরি হচ্ছে। এখন যেসব পুকুর রয়েছে অন্তত সেগুলো রক্ষা করা উচিত।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্সের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আদিল মুহাম্মদ খান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নতুন ড্যাপে আলাদাভাবে পুকুরের কথা বলা নেই। শুধু জলাশয়ের কথা বলা আছে। এর মানে হলো রাজউক পুকুরকে গুরুত্ব দিচ্ছে না। পুকুর শুধু একটি জলাধার না। এটি কমিউনিটির গুরুত্বপূর্ণ অংশ। পুকুর অবশ্যই রক্ষা করতে হবে। শুধু ঢাকা নয়, দেশের সব অঞ্চলের পুকুর রক্ষা করতে হবে।’

এ জাতীয় আরও খবর

আমতলীতে বিনা বাধায় খাসের জায়গা দখল

ভারত থেকে দেশে ঢুকছে পেঁয়াজবোঝাই ৩০০ ট্রাক

বিকল্প চ্যানেল দিয়ে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ী নৌরুটে ফেরি চলাচল শুরু

দৌলতখানে সন্ত্রাসী হামলায় সাংবাদিক আহত

সাভারে যাত্রীবাহী বাস খাদে, আহত ১৫

পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে: ওবায়দুল কাদের

ওয়াহিদা খানমকে ওএসডি

বগুড়ায় থেমে নেই নদী থেকে বালু উত্তোলন

মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটি অনুমোদনে অনিয়মের অভিযোগ

কুষ্টিয়ায় গৃহবধূকে ‘হত্যা’, বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

বাংলাদেশ হিন্দু মহাজোট মানিকগঞ্জ জেলা শাখার উদ্যোগে মানববন্ধ

বালিয়াখোড়া ৯ নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি সজীব ও সুজন পোদ্দার সম্পাদক নির্বাচিত