আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

আ’লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশে খাদ্যের ঘাটতি হয়না : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

news-image

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বগুণে দেশে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। যা সারা বিশ্বে মানুষের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল।
আজ দেশে খাদ্যের ঘাটতি নেই। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশে খাদ্যের ঘাটতি হয় না। খাদ্যের ঘাটতি পুরণ হয়। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় না থাকলে দেশে খাদ্যের ঘাটতি হয়। মানুষ খাদ্যের জন্য হাহাকার করে।

তিনি বলেন- ৯৬ সালে আ’লীগ ক্ষমতায় এসে ৪০ লক্ষ টন খাদ্য ঘাটতি পান, শেখ হাসিনা ক্ষমতার সাড়ে ৩বছরের মাথায় সে ঘাটতি কাটিয়ে খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্নতা অর্জন করেন।
আ’লীগ ক্ষমতা থেকে গেলে ২০০৪ সালে ৫২ লাখ টন খাদ্য ঘাটতি হয়। মানুষ খাদ্যের জন্য হাহাকার করেন। তখন বিরোধী দলীয় নেত্রী হিসেবে শেখ হাসিনা সংসদে বলেন আমরা ৪ বছর আগে খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন অর্জন করে এসেছি। আজকে খাদ্য ঘাটতি কেন? মানুষ কেন খাদ্যের জন্য চিৎকার করে। উত্তরে তৎকালীন বিএনপি সরকারে অর্থমন্ত্রী বলেছেন খাদ্য ঘাটতি থাকলে ভালো। ভিক্ষা পাওয়া যায়।

আর তখন শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে ভিক্ষুকের জাতি হওয়ার জন্য বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতার নেতৃত্ব দেননি। শেখ হাসিনা ২০০৮ সালে নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এলে আবার নতুন জাগরণ সৃষ্টি হয়। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন। বিদ্যুৎ, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। পদ্মা ব্রীজ, কর্নফূলী টানেল উদ্ভোধনের অপেক্ষায়।
চট্রগ্রাম থেকে কক্সবাজার ট্রেন লাইন, রপগঞ্জ পাওয়ার প্লানসহ অংখ্য উন্নয়ন হয়েছে, যে গুলো বাংলাদেশের মানুষ চিন্তাও করেনি। অকল্পনীয় এসব উন্নয়ন দেখে বিরোধীদল, যারা জ্বালাও পোড়াও আন্দোলন ছাড়া বাংলার মানুষকে কিছু দিতে পারেনি।

তাদের মাথা নষ্ট হয়ে গেছে। তারা মনে করছে বাংলার মানুষ তাদের দীক্ষার দিবে। তাই তারা বিভিন্ন আবল তাবল বলছে। তিনি জনগনকে ঐক্য বদ্ধভাবে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে শেখ হাসিনাকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখার আহ্বান জানান।
মন্ত্রী দলীয় নেতা ও জনপ্রতিনিধিদের ন্যয় বিচার প্রতিষ্ঠার তাগিদ দিয়ে বলেন- সমাজে ন্যায় বিচার কায়েম হলে, অবিচার-অত্যাচার বন্ধ হলে, সরকারী সম্পদের সুষ্ট ব্যবহার হলে, দুর্বল যদি সবল কর্তৃক অত্যাচারিত না হয়, তাহলে অবশ্যই জনগন পার্শ্বে থাকবে।

শনিবার দুপুরে ভোলার চরফ্যাশন বজ্রগোপাল অডিটরিয়ামে উপজেলা পরিষদ ও পৌরসভার আয়োজনে সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ভোলা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী শেখ মোহাম্মদ মহসিন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ সাইফুর রহমান, জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোঃ সাইফুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল- নোমান, উপজেলা চেয়ারম্যান, জয়নাল আবেদীন আখন, পৌর মেয়র মাঃ মোরশেদ, প্রমূখ।

এ জাতীয় আরও খবর

পদ্মা সেতু: শিল্পের জন্য প্রস্তুত গোপালগঞ্জ

এখন যানবাহনের অপেক্ষায় ফেরি

ফেরিতে পাঁচ ভাগের এক ভাগে নেমে এলো ছোট গাড়ি

বাঁশখালীতে বিদ্যুৎকেন্দ্রে বিস্ফোরণ

মানিকগঞ্জে পদ্মা সেতুর লাইভ অনুষ্ঠানে অস্ত্র নিয়ে মহড়া, সাংবাদিক গ্রেপ্তার

উল্লাসে মেতেছে পদ্মা পাড়ের মানুষ

চার মাস না যেতেই উঠছে ৯ কোটি টাকার সড়কের পিচ

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর পিঠা উৎসব

নদী ভাঙা মানুষের বিলাপ

সাঁতরে মঞ্চে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলল কিশোরী

বঙ্গবন্ধুর শ্রেষ্ঠ উপহার স্বাধীনতা, আর প্রধানমন্ত্রীর শ্রেষ্ঠ উপহার পদ্মা সেতু : পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী

সেতুর উদ্বোধনে ফায়ার সার্ভিসের শোভাযাত্রা