আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

এক নবজাতকের জন্য সাত ব্যক্তি আদালতে

news-image

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার জগতবেড় ইউনিয়নের একটি ভুট্টাখেত থেকে জীবিত উদ্ধার হওয়া কন্যা শিশু নবজাতককে দত্তক নিতে ইতোমধ্যে সাত ব্যক্তি আদালতে আবেদন করেছেন। তবে এ মুহূর্তে আইনি জটিলতায় ঠাঁই হচ্ছে রাজশাহীর ছোট মনি নিবাস কেন্দ্রে।

শুক্রবার (২৪ মে) সকাল সাড়ে সাতটার দিকে উপজেলার জগতবেড় ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্য মোহাম্মদপুর সবেতুল্লা গ্রামের একটি ভুট্টাখেতের মধ্যে রক্তাক্ত অবস্থায় খালি শরীরে নবজাতকটিকে পায় মিনা বেগম (৩২)।
ওইদিন পুলিশ খবর পেয়ে নবজাতক শিশুসহ দম্পতিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। শিশুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে মোহাম্মদ আলী ও মিনা বেগম দম্পতির জিম্মায় শিশুটিকে দেন।

পাটগ্রাম উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের ভাষ্যমতে, নবজাতকটিকে দত্তক নিতে ইতোমধ্যে সাত ব্যক্তি আদালতে আবেদন করেছেন। তাদের মধ্যে মিনা বেগমও রয়েছেন। হয়তো আরও অনেকে আদালতে আবেদন করতে পারে। তাই আদালতের সিদ্ধান্ত পেতে একটু সময় লাগতে পারে। এ কারণে নবজাতকটিকে সোমবার (২৪ মে) রাজশাহীর ছোট মনি নিবাস কেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে।

থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক বলেন, নবজাতকটি উদ্ধার করে সমাজসেবা বিভাগের মাধ্যমে সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে রাজশাহী ছোট মনি নিবাস কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। পরবর্তীতে আদালতের নির্দেশমতো ব্যবস্থা নেয়া হবে।