আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

করোনার চিকিৎসায় ‘৫ তারকা হাসপাতাল’ হবে বিএসএমএমইউ কনভেনশন সেন্টার

news-image

করোনা চিকিৎসার জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) কনভেনশন সেন্টার। রাজধানীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলের অপর পাশে এটি অবস্থিত। এখানে বর্তমানে ভ্যাকসিনের কার্যক্রম চলমান আছে। এই বিল্ডিংয়ে হাসপাতাল করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। শনিবার (১০ জুলাই) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) কনভেনশন সেন্টারে ফিল্ড হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, এই হাসপাতাল যখন তৈরি হয়ে যাবে তখন আমি মনে করি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতাল হয়ে যাবে। ৫ তারকা মানের বিল্ডিং এটা। সব ধরনের সুযোগ সুবিধা এখানে রয়েছে। এখানে শুধু অক্সিজেনের ব্যবস্থা করতে হবে। এখানে এসি, ইলেকট্রিসিটি, পানি এবং সুন্দর স্থাপনা আছে। আমাদের চেষ্টা থাকবে যত দ্রুত এই হাসপাতালটিকে চালু করা যায়। আমরা এখানে ৪০০ বেডের করোনা আইসিইউ স্থাপন করতে চাচ্ছি। আরও ৪০০ বেডের এইচডিইউ (হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিট) আমরা স্থাপন করতে চাচ্ছি। এছাড়া বাকি বেড যেগুলো আছে সেগুলোর মধ্যেও অক্সিজেনের ব্যবস্থা থাকবে। এটা একটা বিরাট সাপোর্ট হবে। এখানে অনেক রোগী থাকতে পারবে।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, অন্য জেলায় থেকে অনেক রোগী ঢাকায় চলে আসছে। অন্যান্য জেলায় যেমন খুলনা, যশোর, রাজশাহী, রংপুরসহ প্রায় সব বিভাগ এবং জেলাগুলোতে নতুন করে আরও কিছু হাসপাতাল নেওয়ার আরও কিছু নির্দেশনা দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন যাতে আমরা বেডের সংখ্যা বাড়াতে পারি। শুধু বেড বাড়ালে চলবে না , আমাদের জনবলও লাগবে। বেড বাড়ানোরও একটা সীমাবদ্ধতা আছে। আমরা তো পুরো দেশকে হাসপাতাল বানাতে পারবো না। আমাদের সেটা বুঝতে হবে। বেড বাড়ালেও আবার জনবল কোথা থেকে পাবো। সেই চিন্তা করেও আমরা গত কয়েকদিনে চার হাজার নতুন চিকিৎসক ও চার হাজার নার্স নিয়োগ দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি। এই করোনাকালীন সময়ে সব মিলিয়ে ৫০ হাজার নতুন লোক কাজ করছে করোনার সেবাতেই।