আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

করোনা যুদ্ধে জয়ী সাংবাদিক এমদাদের পরিবার

news-image

সুরেশ চন্দ্র রায় : করোনা উপসর্গে ভুগছিলেন বাংলাদেশের খবর পত্রিকার ক্রাইম রিপোর্টার সাংবাদিক এমদাদুল হক খান। প্রাথমিক অবস্থায় চিকিৎসের পরামর্শ অনুযায়ী ঔষধ সেবন করেও তেমন ভাল ফল পাচ্ছিলেন না তিনি। ৪ এপ্রিল করোনা সন্দেহে তিনি আইইডিসিআর’র হট লাইনে পরামর্শের জন্য কল দেন। কিন্তু সেখান থেকে কোন সাড়া মেলেনি।
৯ এপ্রিল তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে নমুনা পরীক্ষা করালে পর দিন সেখান থেকে তাকে জানানো হয় তার করোনা পজিটিভ। এ সংবাদের ভিত্তিতে ডিরেক্টর গিল্ডের সহায়তায় এমদাদ, তার স্ত্রী ও দুই সন্তানকে রিজেন্ট হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে ভর্তির পর তার পরিবারের সকলকে করোনার টেষ্ট করানো হয়। তার ছোট মেয়ে রুবাইদা খান এষা বাদে এমদাদ, তার স্ত্রী ও অপর মেয়ের করোনা পরীক্ষা পজিটিভ আসে। দুই সপ্তাহ চিকিৎসার পর ২০ এপ্রিল তাদের পুনরায় টেষ্ট করানো হলে রেজাল্ট নেগেটিভ আসে। চিকিৎসক আবু বকর সিদ্দিকের তত্বাবধানে তারা তিনজন সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরে যান। তবে চিকিৎসক তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকাকালীন কিছু ্ঔষধসহ গরম পানি, আদা ও লেবু খাবার পরামর্শ দিয়েছেন।
চিত্র নায়ক, প্রযোজক ও সাংবাদিক এমদাদুল হক খান সপরিবারে সুস্থ হয়ে ২২ এপ্রিল বাসায় ফিরে তিনি মহান সৃষ্টিকর্তা, ডিরেক্টর গিল্ডের কার্য নির্বাহী কমিটি, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি ও ক্রাইম রিপোর্টার্স আ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়েছেন।