আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

করোনা শীঘ্রই চলে যাবে এমন মনে করার কোনো যৌক্তিক কারণ নেই : ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, স্বাস্থ্যবিধির প্রতি অবহেলা প্রদর্শন বিপর্যয়ের ঝুঁকি বাড়াতে পারে। জীবন-জীবিকার প্রয়োজনে বের হলে অবশ্যই মাস্ক পরিধান করতে হবে। আমাদের অভ্যাসের পরিবর্তন ঘটিয়ে তা স্বাস্থ্যবান্ধব করতে হবে। সংক্রমণ রোধে প্রতিরোধ ব্যবস্থায় অধিক মনোযোগী হচ্ছে সর্বোত্তম কৌশল।

তিনি বলেন, সরকার করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেয়। গাড়ির আসন সংখ্যা অর্ধেক খালি রাখা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার শর্তে ভাড়া সমন্বয় করতে বলা হয় এ সময়ের জন্য। শুরুতে কিছু পরিবহন প্রতিশ্রুতি মেনে চললেও এখন অনেকেই মেনে চলছে না।আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, স্বাস্থ্যবিধির প্রতি অবহেলা প্রদর্শন বিপর্যয়ের ঝুঁকি বাড়াতে পারে। জীবন-জীবিকার প্রয়োজনে বের হলে অবশ্যই মাস্ক পরিধান করতে হবে। আমাদের অভ্যাসের পরিবর্তন ঘটিয়ে তা স্বাস্থ্যবান্ধব করতে হবে। সংক্রমণ রোধে প্রতিরোধ ব্যবস্থায় অধিক মনোযোগী হচ্ছে সর্বোত্তম কৌশল।

কাদের বলেন, আসন খালি না রাখলে এবং স্বাস্থ্যবিধি না মানলে যাত্রী সাধারণ অতিরিক্ত ভাড়া কেন দেবে? এ প্রেক্ষাপটে বিআরটিএ মালিক-শ্রমিকসহ সংশ্লিষ্ট স্টোকহোল্ডারদের সঙ্গে মতবিনিময় করে কিছু সুপারিশ তৈরি করে। এ সকল সুপারিশ মন্ত্রণালয় কেবিনেট ডিভিশনে পাঠানো হচ্ছে। কীভাবে বা কোন কোন শর্তে পূর্বের ভাড়ায় ফিরে যেতে হবে এ বিষয়ে সরকারের সিদ্ধান্ত পাওয়া গেলে তা সবাইকে অবহিত করা হবে।

এ জাতীয় আরও খবর