আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

কীর্তনখোলার বিপৎসীমার আগেই ঘরবন্দি বরিশাল নগরীর কয়েক হাজার মানুষ

news-image

বরিশালের কীর্তনখোলা নদীর পানি এখনও বিপৎসীমা অতিক্রম করেনি। এর মধ্যেই বরিশাল নগরীর একটি অংশ পানিতে প্লাবিত হয়েছে। ঘরবন্দি হয়ে পড়েছে ঐসব এলাকার কয়েক হাজার হাজার মানুষ।

মঙ্গলবার (২৫ মে) দুপুরের পর থেকেই কীর্তনখোলা নদী সংলগ্ন নগরীর ২৪ নম্বর ওয়ার্ড জিয়ানগর এলাকা ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডের পলাশপুরের মোহাম্মদপুর সহ কয়েকটি অলিগলিতে পানি ঢুকে পরে। পানির পরিমাণ বাড়তে থাকায় একপর্যায়ে ঘরবন্দি হয়ে পড়ে সাধারণ মানুষ।

নগরীর জিয়ানগর এলাকার বাসিন্দা মো. ফাইজুল ইসলাম সজল জানান, আমরা পানিতে প্লাবিত হলেও সিটি করপোরেশন থেকে কেউ কখনও খবর নেয়নি বা দেখতেও আসেনি।

বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহকারি প্রকৌশলী এ আই জাবেদ বলেন, কীর্তনখোলা নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেনি এখনো। তবে পূর্ণিমার জো থাকায় নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। সেই কারণে বরিশালের নিম্নাঞ্চলে নদীর পানি প্রবেশ করতে পারে। এদিকে শুধু পলাশপুরই নয় নগরীর রসূলপুর, জিয়ানগর, সাগরদি, সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ ও তালতলী এলাকায়ও কীর্তনখোলা নদীর পানি প্রবেশ করেছে।

অপরদিকে বৈরী আবহাওয়া ও নদী বন্দরে দুই নম্বর সংকেত থাকায় বরিশাল থেকে সকল রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বিআইডব্লিউটিএ। বরিশাল নদী বন্দর কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত এই আদেশ বলবৎ থাকবে।