আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

কুষ্টিয়ায় আওয়ামী লীগ কর্মীকে ডেকে নিয়ে কুপিয়ে হত্যা

news-image

এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপের বিবাদের জের ধরে কুষ্টিয়ায় এক আওয়ামী লীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহতের নাম শিপন আলী (৩৫)। শনিবার রাত ১২টার দিকে কুমারখালী উপজেলার পান্টি ইউনিয়নের পিতাম্বরবসী গ্রামে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত শিপন পান্টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি ও পিতাম্বরবসী গ্রামের বাসিন্দা আলতাফ হোসেনের ছেলে। তিনি পেশায় একজন ডেকোরেটর ব্যবসায়ী ছিলেন। ঘটনার পর ওই এলাকায় বড় ধরনের সংঘর্ষ এড়াতে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। শিপনের পিতা আলতাফ হোসেন অভিযোগ করেন, পান্টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সামিউর রহমান সুমনের নেতৃত্বে একদল লোক শিপনকে গোদের বাজার এলাকা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে সামিউরের সমর্থক কবিরের বাড়ির সামনে রাস্তার পাশে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে শিপনকে ফেলে রেখে যায়। রাতেই স্থানীয় লোকজনের ফোন পেয়ে ছেলে শিপনকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়। আজ রবিবার সকালে পুলিশ লাশের ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

স্থানীয় একধিক সূত্র জানায়, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পর থেকেই জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহিদ হোসেন জাফর এবং পান্টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সামিউর রহমান সুমনের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ বিবাদের জের ধরে দুই গ্রুপের মধ্যে বেশ কয়েকবার হামলা, পাল্টা হামলা ও গুলির ঘটনা ঘটেছে। পান্টি ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান হাফিজ জানান, ইউনিয়ন পরিষদের ভোটের সময় থেকেই এলাকায় আওয়ামী লীগের দু’টি গ্রুপের মধ্যে বিবাদ চলে আসছে। এরই জের ধরে সামিউর রহমান সুমন গ্রুপের লোকজন জাহিদ হোসেন জাফর সমর্থক গ্রুপের শিপন আলীকে ডেকে নিয়ে গিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছেন বলে শোনা যাচ্ছে।এ বিষয়ে জানতে পান্টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সামিউর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে তাঁকে পাওয়া যায়নি। পরে তাঁর বড় ভাই মামুন মোবাইলে বলেন, ‘আমার ছোট ভাই একটি গ্রুপের নেতৃত্ব দেয়। সে কারণে যেকোনো ঘটনায় তার ওপর দোষ চাপানোর চেষ্টা হয়। তবে এ ঘটনায় তার পরিবারের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। যা ঘটেছে, তা দুঃখজনক ও ন্যক্কারজনক ঘটনা।’ দোষী ব্যক্তিদের সর্বোচ্চ শাস্তিও দাবি করেন তিনি। কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবুর রহমান জানান, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পান্টি এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে দুই গ্রুপের মধ্যে হামলা পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে আসছিল। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে এরই জের ধরে এই হত্যাকান্ডটি ঘটতে পারে। নতুন করে সংঘর্ষ এড়াতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় কোন মামলা হয়নি। কাউকে আটকও করতে পারেনি পুলিশ।

এ জাতীয় আরও খবর

ঈশ্বরদী রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্প পরিদর্শনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রিমান্ড শেষে কারাগারে রাগীব আহসান

বিদ্যালয়ের জমি বেদখল, দোকানের ছাদে পাঠদান

স্বর্ণালঙ্কারের জন্য খুন করা হয় সাবেক প্রধান শিক্ষককে

দুই ট্রেন মুখোমুখি, অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন কয়েকশ যাত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জাতিসংঘের ‘এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার’ প্রদান

মানিকগঞ্জের শিবালয়ে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি ,উপকরণ ও বাইসাইকেল বিতরণ

ময়মনসিংহে পাচারের সময় ভিজিডির ৮৪ বস্তা চাল জব্দ

কয়েক সেকেন্ডেই তালা খোলে চক্রটি, টার্গেট কর্পোরেট অফিস

প্রতারণার ফাঁদে ফেলে শতাধিক গাড়ি চুরি, দুই প্রতারক গ্রেফতার

মিরপুরে এসএসসির ডুপ্লিকেট সার্টিফিকেট, আতংকে শিক্ষার্থীরা

করোনায় আরও ২৬ জনের মৃত্যু