আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

চার দিনেও ভোগান্তি কাটেনি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের

news-image

চার দিনেও রাজধানীতে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকাদান কর্মসূচিতে অব্যবস্থাপনা দূর হয়নি। শিক্ষার্থীদের বাড়ি থেকে কেন্দ্র অনেক দূরে হওয়ায় কাজকর্ম ফেলে অভিভাবকরা সন্তানদের সঙ্গে যাচ্ছেন। কিন্তু সেখানে তাদের অবস্থানের কোনো ব্যবস্থা করা হয়নি। ফলে এ করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই ঝুঁকি নিয়ে স্কুল গেটে ভিড় করছেন তারা। বৃহস্পতিবার সরেজমিনে রাজধানীর একাধিক কেন্দ্র ঘুরে এবং সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে এসব জানা গেছে।
এমন পরিস্থিতির জন্য টিকাদান কার্যক্রমে জড়িত চার পক্ষের কেউই দায় নিচ্ছে না। দায় চাপাচ্ছে পরস্পরের ওপর। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর (ডিজি হেলথ) বলছে, বাইরের পরিবেশ দেখার দায়িত্ব মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি)। আর শিক্ষার এ দপ্তরটি বলছে, বিষয়টি স্কুল কর্তৃপক্ষ ও ডিজি হেলথের দেখার কাজ। ডিজি হেলথের কোভিড-১৯ টিকা ব্যবস্থাপনা টাস্কফোর্স কমিটির সদস্য সচিব শামসুল হক যুগান্তরকে জানান, কেন্দ্র ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নয়। এটা মাউশির কাজ। তারা এ ব্যাপারে ভালো বলতে পারবে। এমনকি তিনি আর কত শিক্ষার্থীর কতদিন টিকা দেওয়া হবে বা দিনে কতজনকে টিকা দেওয়া হবে-এ বিষয়েও তথ্য জানাতে পারেননি। অন্যদিকে, নাম প্রকাশ না করে মাউশির এক সংশ্লিষ্ট পরিচালক বলেন, তাদের কাজ কেবল শিক্ষার্থীর তালিকা ও কেন্দ্র দেওয়া, যা তারা দিয়েছেন। টিকা দেওয়ার কাজ ডিজি হেলথের।
ঢাকায় ৭০০ প্রতিষ্ঠানে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সি শিক্ষার্থী আছে প্রায় ৬ লাখ। তাদের মধ্যে ৪ লাখ শিক্ষার্থীর তথ্য সংগ্রহ করা সম্ভব হয়েছে। নিবন্ধন করতে পেরেছে মাত্র এক লাখ।
ধানমন্ডির সাত মসজিদ রোডের কাকলি হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজে একাধিক অভিভাবকের সঙ্গে বৃহস্পতিবার কথা হয় এ প্রতিবেদকের। তাদের অভিযোগ, এ কেন্দ্রে তারা বুধবার ছেলেমেয়েদের নিয়ে এলেও টিকাদান শুরুর কিছুক্ষণ পর কার্ড স্ক্যানিং মেশিনে কারিগরি ত্রুটি দেখা দেয়। ফলে শিক্ষার্থীদের কেন্দ্রের ভেতরে পাঠিয়ে অভিভাবকদের রোদে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে হয়। সেখানে দায়িত্বরত স্কাউট সদস্য ও শিক্ষকদের চেষ্টার পর সার্ভার জটিলতার সমাধান হয়। আজও রোদ ও ভিড়ের মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে। কর্তৃপক্ষ অন্তত অভিভাবকদের বসার জায়গার ব্যবস্থা করলে বিড়ম্বনা কমত।
কাকলি হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ দীন মোহাম্মদ খান বলেন, টেকনিক্যাল সাপোর্টার হিসাবে কেন্দ্রে থাকা স্কাউট সদস্যরা দক্ষ না হওয়ায় আগের দিন টিকা কার্ডের স্ক্যানিং মেশিনে সাময়িক সমস্যা হয়েছিল। তারপরও ২ হাজার টিকা দেওয়া হয়েছে। আশা করি, আজও দুই হাজার টিকা দিতে পারব। এ কেন্দ্রে শৃংখলার সঙ্গে টিকা দেওয়া হচ্ছে।
তিনি অভিযোগ করেন, বরং অভিভাবকরা কর্মসূচি বাস্তবায়নে সহায়তা না করে শুধু অভিযোগ করছেন। গেটের সামনে হাজার হাজার অতি উৎসুক অভিভাবক ভিড় করছেন। বিশেষ করে ইংরেজিমাধ্যমের অভিভাবকরা ভেতরে প্রবেশের বায়না ধরছেন। তারা বুঝতে চান না তাতে শিক্ষার্থীদেরই টিকাদানে বিশৃঙ্খলা হবে।
এদিকে বনানীর চিটাগং গ্রামার স্কুল টিকাকেন্দ্রে মঙ্গল ও বুধবার পর পর দুই দিনই টিকাদান নিয়ে অব্যবস্থাপনা দেখা গেছে। বুধবার এ কেন্দ্রে টিকা নিতে আসা কয়েকশ শিক্ষার্থী দীর্ঘ অপেক্ষার পর টিকা না পেয়েই ফিরে যায়। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের অনেকেই স্কুলের ফটকে ধাক্কাধাক্কি করে। তবে বৃহস্পতিবার কেন্দ্রসংশ্লিষ্টরা যুগান্তরকে জানান, দুদিন সামান্য ঝামেলা হলেও আজ শৃঙ্খলার সঙ্গে টিকা দেওয়া হয়েছে। এ কেন্দ্রের দুজন শিক্ষক নাম না প্রকাশের শর্তে যুগান্তরকে বলেন, বুধবার টিকা দেওয়ার জন্য গভর্নমেন্ট সায়েন্স হাইস্কুলের কাছে এক হাজার শিক্ষার্থীর তালিকা চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা বেশি শিক্ষার্থী পাঠায়। সঙ্গে আসা কিছু অভিভাবক ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করেন। কোনোভাবেই তাদের ঠেকানো যাচ্ছিল না। তখন শৃঙ্খলা রক্ষায় বাধ্য হয়ে গেট বন্ধ করে টিকা দেওয়া ছাড়া উপায় ছিল না।
চিটাগং গ্রামার স্কুলের অধ্যক্ষ আছিয়া আলম চৌধুরী বৃহস্পতিবার বলেন, গতকাল (বুধবার) কিছু ঝামেলা হলেও আজ কোনো সমস্যা ছাড়াই টিকা দেওয়া হয়েছে। সমস্যা হলো, স্কুল থেকে নির্ধারিত সংখ্যক শিক্ষার্থী টিকাকেন্দ্রে পাঠানোর কথা বলে। কিন্তু টিকার নিবন্ধন সম্পন্ন হলেই অভিভাবকরা কেন্দ্রে এসে ভিড় করছেন। তারা এটা বুঝতে চান না, বরাদ্দ টিকার বেশি দেওয়া সম্ভব হয় না। তবে গতকাল রাতেই স্কুল কর্তৃপক্ষকে বলে দেওয়া হয়েছে, টিকা দেওয়ার সময় এখন থেকে প্রতিটি স্কুলের শিক্ষক প্রতিনিধি থাকবেন। আশা করছি, আর কোনো সমস্যা হবে না। গত দুইদিনে ২ হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার ১৫শ শিক্ষার্থীকে দেওয়া হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেঁসে গেছেন তিন কর্মকর্তা চট্টগ্রাম পরিবেশ অধিদপ্তরে শুদ্ধি অভিযান শুরু

রাঙ্গাবালীতে দুই ড্রেজারচালকের জেল, ৭ শ্রমিকের ৫ লাখ টাকা জরিমানা

বাঁচতে চায় মা হারা অবুঝ শিশু তানহা

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় পারাপারের অপেক্ষায় ৭ শতাধিক গাড়ি

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ

রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে দুর্নীতি দুদকের মামলা থেকে বাঁচতে ব্যাংকে টাকা জমা

অনিশ্চয়তা নিয়েই চালু হলো শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি ফেরি

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে কমিশন ১১ টি নির্দেশ।।

রূপগঞ্জে শিক্ষানবিশ আইনজীবীর বাড়িতে হামলা – ভাংচুর

মানিকগঞ্জ জেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকসহ দুজন গ্রেফতার

মুরাদ হাসানের অনুষ্ঠানের বিতর্কিত উপস্থাপক কে এই নাহিদ রায়ান্স?

মুরাদকে গ্রেফতারের দাবিতে কুশপুত্তলিকা দাহ