আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

জনগণের রায়ের প্রতিফলন না হলে প্রধানমন্ত্রী বিতর্কিত হবেন : তৈমূর

news-image

নুরুল আজিজ চৌধুরী নারায়ণগঞ্জ :নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী এডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, নির্বাচন খুব উৎসবমুখর পরিবেশেই হচ্ছিল। কিন্তু আমার সমর্থক ও যারা নৌকার পক্ষে নামেনি তাদের বাড়িতে বাড়িতে পুলিশ যাচ্ছে। আমার জন্য যারা নেমেছে দলমত নির্বিশেষে। তাদের বাড়ি বাড়ি পুলিশ যাচ্ছে এবং বলে আসছে নৌকার পক্ষে নির্বাচন করতে হবে। এভাবে সরকারি হস্তক্ষেপ হচ্ছে। আমি চাই নির্বাচনে যেন জনগনের রায়ের প্রতিফলন ঘটে। এটা না হলে সবচেয়ে বেশি বিতর্কিত হবেন স্বয়ং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। মানুষ বলবে তিনি নিজের প্রার্থীকে জেতাতে বাড়ি বাড়ি পুলিশ পাঠাচ্ছেন।
সোমবার (১০ জানুয়ারী) সকালে বন্দরের ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের মদনপুর বাসস্ট্যান্ডে গণসংযোকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।
এ সময় তৈমূর আলম খন্দকার আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চাই নির্বাচনে জনগনের আশা আকাঙ্খার প্রতিফলন যেন ঘটে সেভাবে নির্বাচন কমিশন ও পুলিশকে নির্দেশ দেন। আমাদের নেতাকর্মী ও আমার পক্ষে যারা কাজ করছে তাদের হয়রানি করা হচ্ছে, হুমকি দিচ্ছে। আমি প্রশাসনের কাছে সব বলেছি। তারা নির্ধারিত মাপের বাইরে বড় বড় বিলবোর্ড তৈরি করেছে, পাইকপাড়ায় সে নয়টা ক্যাম্প করেছে। বেশ কয়েকটা জায়গায় গেইট করে নৌকা স্থাপন করেছে। আমি ডিসি এসপিকে জানিয়েছি, তারা বলেছে এগুলো ভেঙে দিবে। কিন্তু তারা ভাঙেনি।
তৈমূর বলেন, প্রশাসন নিরপেক্ষ থাকলেই চলে। ব্যাক্তি যেই হোক। তাদের নিরপেক্ষ থাকতে হবে। তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জে কে গডফাদার, কে গডফাদার না, কে উইনেবল ক্যান্ডিডেট, কে উইনেবল না, সেটা সব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জানেন। নারায়ণগঞ্জ একটি রাজনৈতিক সূতিকাগার।
এই নারায়ণগঞ্জে স্বাধীনতার পর থেকে সরকারি দল সমর্থিত কোন প্রার্থী জয়লাভ করেনি। ২০১১ সালে আমি বসে যাওয়ার পর আইভী জিতেছিল। সে কিন্তু বিদ্রোহী হিসেবে জিতেছে। বিএনপির সময় আমরা যে ক্যান্ডিডেট দিয়েছিলাম সেও হেরেছে। চুনকা ভাইয়ের সাথে যখন নাজিমুদ্দিন মাহমুদ পাস করে তখন চুনকা ভাই সরকারি সমর্থন পেয়েছিল।
সরকারি সমর্থনটা নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য ফ্যাক্ট না। নারায়ণগঞ্জবাসী দেখবে তার কর্ম। তারা দেখবে একটা প্রার্থীর জনগনের সাথে সম্পৃক্ততা। আজকে আঠারো বছরের যে ব্যর্থতা এবং ঠিকাদার সিন্ডিকেট। হোল্ডিং ট্যাক্সসহ সকল ট্যাক্স বৃদ্ধি, মানুষ সেবা পানি পাচ্ছে না। জলাবদ্ধতা যানজটসহ সবকিছু মিলিয়ে জনগন আমাকেই ভোট দিবে।
তিনি আরো বলেন, মেয়র আইভীর বক্তব্যে পরিষ্কার, আমার দলে কোন বিভাজন নেই। তার দলে বিশাল বিভাজন রয়েছে। শামীম ওসমানকে নিয়ে কথা ওঠে তার বাপ, দাদা, এমপি ছিল। তারা যে আইভীর পক্ষে না এটা আমরা বলি না, এটা আইভী নিজেই বলেছে।

এ জাতীয় আরও খবর

জনগণের টাকায় আমাদের সংসার চলে : ডিসিদের রাষ্ট্রপতি

সিদ্ধিরগঞ্জে সেনা সদস্য হত্যার ঘটনায় ৩ ছিনতাইকারী গ্রেপ্তার

কুমিল্লায় ৪ ইটভাটার মালিককে ২১ লাখ টাকা জরিমানা

টাঙ্গাইলে তিন ইটভাটা ধ্বংস, ৯ টিকে সাড়ে ২৭ লাখ টাকা জরিমানা

সাড়ে ৬ কোটি টাকা পাচারের চেষ্টা ঢাকার আরএম সোর্সিংয়ের

বহিষ্কার করলেও দল পরিবর্তন করবো না : তৈমূর

নদীতে মাটি কাটায় ট্রাক্টর জ্বালিয়ে দিলেন ইউএনও

পুলিশের বিরুদ্ধে আ.লীগ নেতার বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

‘ডিসিরাও উন্নয়ন প্রকল্প তদারকি করবেন’

ফেরি ও ঘাট সংকটে তীব্র যানজট

দুই স্বতন্ত্র প্রার্থীর স্পিডবোট ব্যবসা বন্ধের অভিযোগ

নাসিক নির্বাচন : পুত্রবধূর কাঁধে চড়ে বৃদ্ধার ভোট