আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

টেন্ডার ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ নাটোর যুবলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে

news-image

নাটোর সদর হাসপাতালের প্রায় ৪ কোটি টাকার টেন্ডার শিডিউল ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে জেলা নাটোর যুবলীগ সভাপতি বাসিরুর রহমান খান চৌধুরি এহিয়ার বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নাটোর সদর হাসপাতালের বহির্বিভাগের সামনে নাটোর জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিউল আযম স্বপন এর কাছ থেকে শিডিউল ছিনিয়ে নেন তিনি। এসময় স্বপনের সাথে ধস্তাধস্তির ঘটনাও ঘটে। তাতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে হাসপাতাল চত্বর এলাকায়।

মঙ্গলবার দুপুরে নাটোর সদর হাসপাতালে টেন্ডারের শিডিউল ক্রয় করেন নাটোর জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিউল আযম স্বপন। সময় শিডিউল ক্রয় করে বের হওয়ার সময় হাসপাতালের বর্হিগমনের ফটকের সামনে জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বাসিরুর রহমান খান চৌধুরি এহিয়া শিডিউল ছিনিয়ে নেওয়ার চেস্টা করেন। এসময় স্বপন শিডিউল না দিলে এহিয়ার সাথে ধাস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। পরে যুবলীগ সভাপতি বাসিরুর রহমান খান চৌধুরি এহিয়া সিডিউল ছিনিয়ে নিয়ে চলে যায়। পরে খবর পাওয়ার পর পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছান।

নাটোর জেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিউল আযম স্বপন অভিযোগ করে বলেন, দুপুরে নাটোরন সদর হাসপাতালে ৬টি গ্রুপের দুটি কাজের টেন্ডার শিডিউল ক্রয় করি। পরে শিডিউল ক্রয়ের খবর পেয়েই জেলা যুবলীগ সভাপতি বাসিরুর রহমান খান চৌধুরি এহিয়া দলবল নিয়ে আমাকে ঘিরে ধরে।

এসময় তিনি বলেন, আমি ছাড়া কেউ টেন্ডার জমা দিবে না। আমাকে শিডিউল উত্তোলন এবং জমা দিনে নিষেধ করে। কিন্তু আমি শিডিউল ক্রয় করে বের হওয়ার সময় এহিয়া চৌধুরি ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। আমি প্রশাসনের কাছে এর বিচার চাই।

এ বিষয়ে নাটোর জেলা যুবলীগের সভাপতি বাসিরুর রহমান খান চৌধুরি এহিয়া কে ফোন দেওয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. পরিতোষ কুমার রায় বলেন, এবিষয়ে কেউ তার কাছে অভিযোগ করেনি। তাছাড়া টেন্ডারের শিডিউল ক্রয় করে বাহিরে কোন ঘটনা ঘটলে এটা আমাদের এখতিয়ার না।

নাটোর সদর থানার ওসি তদন্ত আবু সাদাদ জানান, কেউ টেন্ডার সংক্রান্ত অভিযোগ থানায় দায়ের করেনি। অভিযোগ পেলে প্রযোজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ জাতীয় আরও খবর