আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

দুই গ্রুপের মারামারিতে এক নারীর গর্ভপাত

news-image

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দুই গ্রুপের মারামারির ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে। পীরগঞ্জ পৌরসভার গঙ্গারামপুর গ্রামে মারামারির ঘটনায় মহিলাসহ উভয় পক্ষের ৬ জন আহত হন।

রোববার (২৩ মে) মারামারির ঘটনায় আহত এক গৃহবধূর অকাল গর্ভপাত হওয়ায় থানায় মামলা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গঙ্গারামপুর গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে উজ্জ্বল মিয়ার (৩০) সঙ্গে জমিজমা নিয়ে প্রতিবেশী সামছুল মিয়ার (৪৫) দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। বিরোধের জের ধরে গত ৪ মে সকালে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

আহতরা হলেন, রুবেল মিয়া (২৮), রুহুল মিয়া (৩৫) ও রুহুলের গর্ভবতী স্ত্রী লাকী বেগম (২৭) এবং সামছুল পক্ষের সামছুল মিয়া, সওকাত (৫০), সেলিম (২৬) ও ফুল মিয়া (৪০)। আহতদের পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় গত ১১ মে সামছুল মিয়া বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেন।

অপরদিকে উজ্জ্বল পক্ষের আহত গর্ভবতী লাকী বেগমের পেটে আঘাত লাগায় ঘটনার দিন থেকেই তার রক্তপাত শুরু হয়। এক পর্যায়ে লাকীর অবস্থার অবনতি হলে তাকে গত শুক্রবার রংপুরে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। পরদিন শনিবার সকালে অকাল গর্ভপাতে লাকী মৃত কন্যাসন্তানের জন্ম দেন। এ ঘটনায় উজ্জ্বল মিয়া বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

মামলার বাদী উজ্জ্বল মিয়া বলেন, আমার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী ২ সন্তানের জননী। তার তৃতীয় সন্তানটি প্রায় ৮ মাস বয়সে গর্ভপাত হলো। এজন্য আমরা আইনের আশ্রয় নিয়েছি।

এদিকে অপর মামলার বাদী সামছুল জানান, জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। মারামারির ঘটনায় আমরা মামলা করেছি।

এ বিষয়ে পীরগঞ্জ থানার ওসি সরেস চন্দ্র বলেন, গর্ভপাতের ঘটনায় মামলা হয়েছে। আমরা তদন্তের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট ডাক্তারের কাছে মতামত নেব।