আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

‘নতুন ইতিহাস’ রচনার সংকল্পের দিন

news-image

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাঙালি বীরের জাতি। বাঙালির ইতিহাসের প্রতিটি বাঁক রঞ্জিত হয়েছে ত্যাগ-তিতীক্ষা আর রক্ত ধারায়। কিন্তু বাঙালি আবারও মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। শনিবার (২৫ জুন) সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য শুরু করেই বারবার তিনি ফিরে গেছেন মুক্তিযুদ্ধে, পঁচাত্তরের ঘাতকের গুলিতে নিহতদের স্মরণে, যারা পদ্মা সেতু তৈরির শুরু থেকে ছিলেন তাদের প্রত্যেকের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর দিকে। প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতাজুড়েই ছিল বারবার ‘নতুন ইতিহাস’ গড়ে তোলার অঙ্গীকার।

বক্তৃতায় শেখ হাসিনা বলেন, ‘‘ইতিহাসের এক বিশেষ সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে আমরা। কিছুক্ষণের মধ্যেই বাংলার মানুষের গর্বের পদ্মা সেতুর শুভ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে। এ সেতু নির্মাণের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব কর্মকর্তা-কর্মচারী, দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞ পরার্শক, ঠিকাদার, প্রকৌশলী, প্রযুক্তিবিদ, শ্রমিক, নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত সেনাবাহিনীর সদস্যসহ সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। ধন্যবাদ জানাই, পদ্মা সেতুর দুই প্রান্তের অধিবাসীদের— যাদের জমিজমা ও বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাদের এই ত্যাগ ও সহযোগিতা জাতি চিরদিন স্মরণ রাখবে।’
প্রধানমন্ত্রী বক্তৃতা শেষ করার আগে দৃপ্ত কণ্ঠে বলেন, ‘যতবারই হত্যা করো, জন্মাবো আবার। দারুণ সূর্য হবো, লিখবো নতুন ইতিহাস।’ বারবার হত্যার ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েও তিনি ঘুরে দাঁড়িয়েছেন। বাংলার মানুষের জন্য কাজ করে যাওয়াকে দায়িত্ব হিসেবে নিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী তার বক্তৃতায় বলেন, ‘কারোর প্রতি আমার কোনও অভিযোগ নেই।’ বরং তারাই আজকের দিন থেকে আত্মবিশ্বাস ফিরে পাবেন— এমনটাই আশা প্রকাশ করেন তিনি। যারা অনুষ্ঠানস্থলে গিয়েছেন, যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজেদের প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন, তাদের প্রত্যেকে কীভাবে নতুন ইতিহাস লেখা হলো, তার উল্লেখ করছেন।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার স্মারক ডাক টিকেট, ডাটা কার্ড ও স্মারক শিট অবমুক্ত করার মুহূর্তকে উল্লেখ করে ফেসবুকে লেখেন, ‘…প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বস্তুত পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেন। এরপর তিনি উদ্বোধনের ফলক উন্মোচন করেন। প্রধানমন্ত্রী ডাক টিকিট ও স্যুভেনির শিট উদ্বোধন করার কয়েক মিনিটের মাঝেই এই ছবিগুলো আমার কাছে পাঠানো হয়। এতে ডুপ্লিকেটও আছে। কিন্তু ঐতিহাসিক স্মৃতি হিসেবে এগুলো রেখে দিলাম। মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ের দিনে সরাসরি উপস্থিত থাকতে পারিনি। শেখ হাসিনার গড়া বিজয় দিবসে কেবল উপস্থিত নয়, অংশ নিতে পারলাম। জয় বাংলা।’

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে মাওয়া প্রান্তে আয়োজিত সুধী সমাবেশে অংশ নেওয়া গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাহসী সিদ্ধান্ত নিয়ে জাতিকে পদ্মা সেতু উপহার দিয়েছেন। জাতি এতে গৌরবান্বিত। প্রধানমন্ত্রী প্রজ্ঞার পরিচয় দিয়েছেন, যেমনটা তার বাবা প্রজ্ঞার পরিচয় দিয়েছিলেন ৭ মার্চে। এ এক অনন্য ইতিহাস তৈরি হলো।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন, ‘এই কয় বাক্যে প্রধানমন্ত্রী ভীষণ গভীর অর্থবহ কথা উচ্চারণ করেছেন। এর মধ্য দিয়ে সামনের দিনে আরও বহু উন্নয়ন, দেশকে অন্য উচ্চতায় নেওয়ার জন্য সাহস যোগাবে। আমার বিবেচনায় এখন একটা মাত্রার কাজ হলো, যাতে করে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম বলবে— এই ধরনের কাজ, অমুক সময়ে আমাদের দেশে হয়েছিল। সেই উদাহরণকে সামনে রেখে তারা নতুন উচ্চতায় যেতে চাইবে। অনেক বাধা বিপত্তি পেরিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর যে সাহস, সেটা জোগাবে প্রধানমন্ত্রীর এই দৃঢ়প্রত্যয়।’

এ জাতীয় আরও খবর

১১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে চাষাঢ়া-খাঁনপুর-হাজীগঞ্জ-গোদনাইল-আদমজী ইপিজেড সড়ক কাজ এগিয়ে চলছে

এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে শিবালয়ের যমুনা ড্রেজার মুক্ত

নারায়ণগঞ্জে বাস চাপায় ইষ্ট ওয়েষ্ট ইউনিভার্সিটির দুই শিক্ষার্থী নিহত : অভিযুক্ত চালক গ্রেপ্তাার

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে মাসোহারা না দেয়ায় নির্যাতন, এএসআই ক্লোজড

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে পুলিশের সোর্স পরিচয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

নারায়ণগঞ্জে অটোরিক্সা চোর চক্রের ৬ সদস্য গ্রেপ্তার

নারায়ণগঞ্জে মাদকবিরোধী টাস্কফোর্সের অভিযান, গ্রেপ্তার ১৪

সিদ্ধিরগঞ্জে লন্ডন প্রবাসীকে মৃত দেখিয়ে প্রবাসীর বাড়ী দখল

ঘিওরে নবাগত ওসির সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

ঘুমন্ত স্বামীর বিশেষ অঙ্গন কর্তন, স্ত্রী গ্রেপ্তার

‘লাল পতাকা দেখালেও কথা শুনেনি চালক’

ধলেশ্বরী নদী থেকে মাছ ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার