আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

নীলফামারীতে ৭ বছর ধরে সহপাঠীকে ধর্ষণ!

news-image

নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অনার্স শেষ বর্ষের এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মামলার পার অনুকুল চন্দ্র রায় (২৫) নামের এক কলেজছাত্রকে গ্রেপ্তার করেছে ডোমার থানা পুলিশ।

শুক্রবার রাতে উপজেলার হরিণচড়া ইউনিয়নের দোলাপাড়া গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়। শনিবার বিকেল তিনটার দিকে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
অনুকুল চন্দ্র রায় জলঢাকা উপজেলার গোলমুন্ডা ইউনিয়নের পূর্বগোলমুন্ডা গ্রামের অনীল রায়ের ছেলে। তারা দূর সম্পর্কে খালাতো ভাইবোন এবং সহপাঠী।

মামলার সুত্রে জানা গেছে, অনুকুল চন্দ্র রায় প্রায় সাত বছর যাবত ওই কলেজছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করে। মেয়েটি অনুকুলকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে তিনি বিভিন্ন তালবাহানা করতে থাকে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে অনুকুল ওই কলেজছাত্রীর বাড়িতে যায়। তখন তাকে আবারো বিয়ের কথা বলেন ওই কলেজছাত্রী। কিন্তু অনুকুল বিয়ের বিষয়ে কর্ণপাত না করে মেয়েটিকে বাড়িতে একাকী পেয়ে আবারো ধর্ষণ করেন। এ অবস্থায় মেয়েটি এলাকাবাসীর সহযোগিতায় অনুকুলকে আটক করে শুক্রবার ডোমার থানায় লিখিত অভিযোগ করে। ডোমার থানা পুলিশ রাতেই অনুকুলক চন্দ্র রায়কে থানায় নেন। শনিবার সকালে এ বিষয়ে মামলা রেকর্ড করে অনুকুলকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরণ করে। ধর্ষিতার ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ২৫০ শয্যার নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ডোমার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বিশ্বদের রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মেয়েটির দায়ের করা মামলায় অনুকুল চন্দ্র রায়কে শনিবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। মেয়েটিকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ২৫০ শয্যার নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।