আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

নৌ-পুলিশের দীর্ঘ চেষ্টায় রনি হাসান ধরাশায়ী নৌকার মাঝি থেকে নৌপথের ত্রাস শতাধিক সদস্য নিয়ন্ত্রণ করে সারা দেশের নৌপথের চাঁদাবাজি * ‘রনি হাসান’ নামের উপরেই আদায় হয় সব টাকা

নাম তার রনি হাসান। এক সময় নৌকা আর ট্রলারের মাঝি ছিলেন। সোনারগাঁয়ের বৈদার বাজার থেকে মেঘনা উপজেলার কয়েক জায়গায় নৌপথে যাত্রী পারাপার করতেন।
এই নৌপথকে ঘিরেই ধীরে ধীরে শুরু হয় তার চাঁদাবাজি। নানা কৌশলে বাড়তে থাকে চাঁদাবাজির নেটওয়ার্ক। এক সময় তৈরি করে নৌপথের চাঁদাবাজি ও ডাকাতির ভয়ংকর সিন্ডিকেট। আর সিন্ডিকেটের গডফাদার রনি তার চাঁদাবাজির সাম্রাজ্যে জিম্মি করেন শতশত নৌযান মালিক, চালকদের।

চাঁদাবাজি চক্রের শতাধিক সদস্য সারা দেশের নৌপথে বেপরোয়াভাবে চাঁদাবাজি করতে থাকে। ‘রনি হাসান’ নামে আদায় হতে থাকে সব টাকা। কোটি কাটি টাকার মালিক বনে যান রনি হাসান। আত্মগোপনে থেকেই রনি নিয়ন্ত্রণ করেন চাঁদাবাজি ও ডাকাতির নেটওয়ার্ক।

গত কয়েক বছর ধরেই নৌপথের চাঁদাবাজির গডফাদার রনিকে খুঁজছে পুলিশ। কিন্তু বারবার অবস্থান পরিবর্তন করায় তাকে ধরা যাচ্ছে না। জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার কুশিয়ারা এলাকায় বিলাশবহুল একটি বাড়ি নির্মাণ করছে রনি।

বুধবার নৌ-পুলিশ গোপনসূত্রে জানতে পারে রনি সেই বাড়িতেই অবস্থান করছে। রাতেই নৌ-পুলিশের একটি দল তাকে সেখান থেকে গ্রেফতার করে। এসময় তার কাছ থেকে ১২ লাখ ৬৬ হাজার টাকা, নাম্বারবিহীন একটি মোটরসাইকেল, একটি ল্যাপটপ, নয়টি মোবাইল ফোন ও ১৬টি সিম উদ্ধার করা হয়। রনির বিরুদ্ধে এর আগে সাতটি মামলা রয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে অস্ত্র, ডাকাতি, নৌ-চাঁদাবাজি, চুরি, মাদকের মামলা।

নৌ-পুলিশের পক্ষ থেকে তার বিরুদ্ধে বর্তমানে মানি লন্ডারিং, চাঁদাবাজি ও দুদকের মামলাও হতে পারে বলে জানানো হয়। ইতোমধ্যে চাঁদাবাজি ও মানি লন্ডারিং মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে।

জানা যায়, রনি কিশোরগঞ্জ, নরসিংদী, ভৈরব থেকে সোনারগাঁ ও ঢাকা-সিলেট নৌ-রুটে তার চাঁদাবাজির নেটওয়ার্ক শুরু করে। এখন তা সারা দেশে বিস্তৃত বলে জানিয়েছেন নৌ-পুলিশের একটি সূত্র।

নৌ-রুটে শত শত বাল্কহেড, বার্জ, কার্গো ও ইঞ্জিনচালিত নৌকা চলাচল করে। রনির চাঁদাবাজির মূল টার্গেট এসব নৌযান, যারা মূলত মালামাল আনা-নেওয়া করে। নদীপথে বালু, পাথর, চুনাপাথর ও কয়লাসহ যেসব নৌযান মালামাল আনা-নেওয়া করে মূলত তাদের উপরই চলত চাঁদাবাজি। চাঁদা না পাওয়া গেলে চলত তার বাহিনী দিয়ে নির্যাতন।

জানা গেছে, ঢাকা-সিলেট নৌরুটের প্রায় দুইশ বাল্কহেড মাস্টার ও শুকানিদের আয়ত্তে এনে প্রতিনিয়ত চাঁদাবাজি চলতে থাকে। যে সব বাল্কহেড চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানাত সে ও তার দলের লোকেরা তাদের উপর ডাকাতি ও ছিনতাই চালাত।

চাঁদা আদায়ের ক্ষেত্রেও নানা কৌশল আছে। কোনো নৌযান একবার একটি রুটে ভেঙে ভেঙে চাঁদা দিতে গেলে পথে পথে খরচ করতে হতো ৪০০০-৫০০০ টাকা। আর রনির লোকজনকে ২০০০-৩০০০ টাকা চাঁদা দিলেই পথে আর কোনো ঝামেলা নেই। নির্বিঘ্নে মালামাল আসা-যাওয়া করবে।

রনি ও তার চাঁদাবাজির সিন্ডেকেটের সদস্যরা নানা ভয়ভীতি দেখিয়ে, ক্ষমতার অপব্যবহার করে এবং খরচ তুলনামূলক কম হওয়ার কথা বলে নৌযান মালিক, চালক আর মাঝিদের জিম্মি করে। এভাবে সব নৌযান তার চাঁদাবাজির নেটওয়ার্কে চলে আসে।

রনি হাসানের বাড়ি সোনারগাঁ উপজেলার বৈদার বাজারের শাহপুর গ্রামে। এলাকাবাসী জানিয়েছেন চাঁদাবাজির টাকা দিয়েই বিলাশবহুল বাড়ি তৈরি করছিল রনি। তার বয়স মাত্র ৩২ বছর। এলাকাবাসী জানায়, নারায়ণগঞ্জ ও সিদ্ধিরগঞ্জসহ ঢাকা শহরের কয়েক জায়গায় তার বাড়ি আছে। সে অন্তত অর্ধশত কোটি টাকার মালিক।

নৌ-পুলিশের বৈদার বাজার ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শক আব্দুর রব বলেন, নৌপথে চাঁদবাজি ও ডাকাতি দুটোই তার পেশা। সারা দেশের নৌপথে সে চাঁদাবাজির বিশাল নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে। তার নামের উপরেই সারা নৌপথে চাঁদাবাজি হয়। আমি এই ফাঁড়িতে আছি সাত-আট মাস। তখন থেকেই তাকে খুঁজছি। পাঁচ-ছয় বছর ধরে সে আন্ডারগ্রাউন্ডে। আসলে তাকে খোঁজা হচ্ছে তখন থেকেই। আত্মগোপন থাকা অবস্থাতেই সে পুরো নদী অঞ্চলের চাঁদাবাজি নিয়ন্ত্রণ করত। তার বাহিনীর সদস্য প্রায় শতাধিক। সে ছিল তাদের গডফাদার।

নৌ-পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, নৌযান বিশেষ করে বাল্কহেডধারীদের রনি আতঙ্কিত করে রাখত। আতঙ্কের মধ্যে রেখেই চাঁদাবাজি চলত। তাকে ধরতে আমাদের লম্বা সময় লেগেছে। তার গ্রেফতারে নৌযান মালিক, শ্রমিক যাত্রীসহ সাধারণ মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন।

এ জাতীয় আরও খবর

১১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে চাষাঢ়া-খাঁনপুর-হাজীগঞ্জ-গোদনাইল-আদমজী ইপিজেড সড়ক কাজ এগিয়ে চলছে

এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে শিবালয়ের যমুনা ড্রেজার মুক্ত

নারায়ণগঞ্জে বাস চাপায় ইষ্ট ওয়েষ্ট ইউনিভার্সিটির দুই শিক্ষার্থী নিহত : অভিযুক্ত চালক গ্রেপ্তাার

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে মাসোহারা না দেয়ায় নির্যাতন, এএসআই ক্লোজড

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে পুলিশের সোর্স পরিচয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

নারায়ণগঞ্জে অটোরিক্সা চোর চক্রের ৬ সদস্য গ্রেপ্তার

নারায়ণগঞ্জে মাদকবিরোধী টাস্কফোর্সের অভিযান, গ্রেপ্তার ১৪

সিদ্ধিরগঞ্জে লন্ডন প্রবাসীকে মৃত দেখিয়ে প্রবাসীর বাড়ী দখল

ঘিওরে নবাগত ওসির সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

ঘুমন্ত স্বামীর বিশেষ অঙ্গন কর্তন, স্ত্রী গ্রেপ্তার

‘লাল পতাকা দেখালেও কথা শুনেনি চালক’

ধলেশ্বরী নদী থেকে মাছ ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার