আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

পি কে হালদারের কাছে পাওনা ২৫৪ কোটি টাকা

news-image

ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড (আইএলএফএসএল) থেকে টাকা নিয়ে ফেরত না দেওয়া ১২৯ জনের মধ্যে পি কে (প্রশান্ত কুমার) হালদার একজন। তালিকায় তার নাম পাঁচবার উঠে এসেছে। তিনি একাই পৃথক চার কোম্পানি ও নিজের নামে মোট দুইশ’ ৫৩ কোটি ৯৩ লাখ ৮৯ হাজার ৭৬৩ টাকা ঋণ নিয়েছেন। ১২৯ ঋণখেলাপিকে হাইকোর্টে তলবি আদেশ থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে, ৫ এপ্রিল বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের একক বেঞ্চ এই আদেশ জারি করে। একই বেঞ্চে তলবি আদেশের ব্যাপারে ২৪ ও ২৫ মে শুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এ ব্যাপারে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের আইনজীবী মাহফুজুর রহমান মিলন সারাবাংলাকে জানান, পি কে হালদারসহ ১২৯ ঋণখেলাপির কাছে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের পাওনা প্রায় ১৮০০ কোটি টাকা। গ্রাহকের এই টাকা কবে, কীভাবে তারা পরিশোধ করবেন তা জানতে আদালত তলব করেছেন।

১২৯ ঋণখেলাপির মধ্যে ১০০ জনকে ২৪ মে ও ২৯ জনকে ২৫ মে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে, বলেন মিলন।

৯ মার্চ অবসায়ন প্রক্রিয়ার মধ্যে থাকা আরেকটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস লিমিটেডের (পিএলএফএসএল) ২৮৬ জনকে তলব করেছিলেন। ২৩, ২৫ ফেব্রুয়ারি এবং ৯ মার্চ ১৬৪ ঋণখেলাপি আদালতে হাজির হয়েছিলেন। আর ১২২ হাজির হননি। তাদের বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে, ১২২ ঋণখেলাপির বর্তমান ঠিকানা সরবরাহ করতে পিএলএফএসএল সাময়িক অবসায়ক (প্রবেশনাল লিক্যুডেটর) মো. আসাদুজ্জামানকে নির্দেশ দেওয়া হয়। পাশাপাশি আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং রাষ্ট্রকে প্রয়োজনীয় সব ধরনের সহযোগিতা দিতে বলা হয়।