আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের পাশে খাল খনন, কারণ দর্শানোর নোটিশ

news-image

পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের পাশের খাল থেকে গভীরভাবে মাটি কেটে বিক্রি করে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে স্থানীয় ইউপি সদস্য হারুন অর রশিদের বিরুদ্ধে।
এ কারণে তাকে তিনদিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড পাবনা কর্তৃপক্ষ।

হারুন পাউবোর ওই খাল সংস্কারের নামে গভীর করে অতিরিক্ত মাটি কেটে বিক্রি করে আসছিল। ফলে আসছে বর্ষায় খালের পাশের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ধসে যাওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে।

এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ দৈনিক যুগান্তর প্রকাশের পর এই ব্যবস্থা নিল পাউবো পাবনা। খালটির অবস্থান উপজেলার পাড়-ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড ১৯৮৩/৮৪ সালে সিরাজগঞ্জের বাঘাবাড়ী থেকে রাজশাহীর চারঘাট পর্যন্ত বন্যা নিয়ন্ত্রণ ওয়াপদা বাঁধ নির্মাণ করে। বাঁধের মাটি যোগান দিতে এক পাশে খালের সৃষ্টি হয়।

সম্প্রতি স্থানীয় প্রভাবশালী মেম্বার সমবায় সমিতির নামে এই খাল সংস্কারের নামে গভীরভাবে মাটি কেটে বিক্রি করায় খাল পাড়ের বাসিন্দারা ও ওয়াপদা বাঁধ ভাঙনের ঝুঁকিতে পরে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, প্রায় ১ হাজার মিটার লম্বা ও ১শ মিটার চওড়া খাল থেকে গভীরভাবে মাটি কেটে নেয়া হয়েছে। প্রায় ১৫ থেকে ২০ ফিট গভীর এ সকল গর্ত। এক্সকেভেটর দিয়ে খোঁড়া হয়েছে এ সকল গর্ত। গর্তের মাটি হারুন ও তার লোকজন নিজ উপজেলা এ পার্শ্ববর্তী উপজেলায় ৬শ থেকে ৭শ টাকায় প্রতি গাড়ি মাটি বিক্রি করেছেন।

এবিষয়ে হারুন মেম্বার বলেন, কারণ দর্শানোর চিঠি সম্পর্কে জেনেছি, তবে কোনো চিঠি হাতে পাইনি। অফিস সব বন্ধ (ঈদের জন্য) হয়ে গেছে। চিঠি পেলে উত্তর দেয়া হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড পাবনার সহকারী পরিচালক (ভূমি ও রাজস্ব) মোশাররফ হোসেন বলেন, ঘটনার সরেজমিনে তদন্তের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুইজন সদস্যকে পাঠিয়ে খনন কাজ বন্ধ করা হয়েছে।

তদন্তকারী টিমের এক সদস্য আল-আমিন জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় তাকে (হারুন) যে শর্তে সংস্কারের এনওসি দিয়েছিলেন তিনি রক্ষা করেননি। শর্ত ভঙ্গের কারণ জানাতে তিন দিনের সময় দিয়ে তাকে দাপ্তরিকভাবে চিঠি পাঠানো হয়েছে যার অনুলিপি সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে।

ভাঙ্গুড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদ হাসান খান বলেন, বিষয়টি গণমাধ্যমে জানার পরেই উপজেলা প্রশাসন খননকাজ বন্ধ করে দেয়। পরে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পায় উপজেলা প্রশাসন। এছাড়া খননে বিষয়ে জানাতে সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্যকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এ জাতীয় আরও খবর

দৌলতদিয়ায় ৭ ফেরিঘাটের ৪টিই বিকল, যানবাহনের দীর্ঘ সারি

পানির নিচে পন্টুন, ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সারি

ছাত্রদল করা সন্তানের জনক হলেন থানা ছাত্রলীগের সহসভাপতি

যমুনা নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন

চাঁদপুরের ডিসিকে বদলি, তিন জেলায় নতুন ডিসি

গাফফার চৌধুরী আর নেই

প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ভূমি দখলের পাঁয়তারার অভিযোগ

কুমিল্লার মানবজমিন প্রতিনিধিসহ সারাদেশের সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে সোচ্চার রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব ॥ প্রতিবাদ সভা, মানববন্ধন-বিক্ষোভ মিছিল

চাকরির নামে টাকা আত্মসাৎ গ্রেপ্তার ২

মহাসড়কে গাছ ফেলে ডাকাতি করতো তারা, গ্রেফতার ৬

বনের ভেতর সিসা তৈরির কারখানা, হুমকির মুখে পরিবেশ

বাঘাবাড়ী নৌবন্দর খুঁড়িয়ে চলছে