আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

বাঁচতে চায় মা হারা অবুঝ শিশু তানহা

সুরেশ চন্দ্র রায়, মানিকগঞ্জ : কয়েক মাস আগে হঠাৎ মাকে হারিয়েছে ফুটফুটে মেয়ে শিশু তানেহা ইসলাম (১৫ মাস)। আর এখন জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে জীবন মরণের সন্ধিক্ষণে দাড়িয়ে প্রহর গুনছে অবুঝ শিশুটি।

শিশু তানহা ইসলাম মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার ধূলন্ডী গ্রামের অতি দরিদ্র উজ্জ্বল হোসের নাতনি ও সজীব হোসেনের একমাত্র মেয়ে। অর্থের অভাবে নিভে যেতে বসেছে তার জীবন প্রদীপ।

তানহার দাদা উজ্জ্বল হোসেন প্রতিবেদক-কে জানান, আমার ছেলের বউ তামান্নাকে আমি নিজের মেয়ের মত স্নেহ করতাম। কয়েক মাস আগে অজ্ঞাত রোগে ওকে হারিয়ে আমি এখন একমাত্র নাতনি তানহাকে বুকে আগলে খেয়ে না খেয়ে কোন রকমে বেঁচে আছি। কিছুদিন আগে তানহাকে ডাক্তার দেখাতে ঢাকা নিয়ে গেলে তার রিপোর্টে নানাবিধ সমস্যা দেখা যায়। রিপোর্ট দেখে ডাক্তার বলেছেন, তার হার্টে ছিদ্র, হার্ট স্থানচ্যুত ও পিত্তথলীতে সমস্যাসহ বেশ কিছু জটিল সমস্যা রয়েছে। অবিলম্বে তাকে অপারেশনের পরামর্শ দিয়েছেন ডাক্তার। ইতোমধ্যে ঢাকায় যাতায়াত, ডাক্তার দেখানো ও পরীক্ষা নিরীক্ষা বাবদ প্রায় পঞ্চাশ হাজার টাকা খরচ হয়ে গেছে। ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল এন্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের চিকিৎসক বলেছেন অপারেশন বাবদ ৩ লক্ষ টাকা খরচ হবে। কিন্তু এই টাকার ব্যবস্থা কিভাবে করবো এই চিন্তায় রাতে আমার ঘুম আসে না। আমি মানিকগঞ্জ পৌর মার্কেটের একটি দোকানে সামান্য টাকায় কাজ করি। আর ছেলে একটি হোটেলে কাজ করে। বাপ ছেলের রোজগারে কোনমতে টানাটানি করে সংসার চালাই। আমাদের কোন বাড়তি রোজগার বা ব্যাংক ব্যালেন্স নেই। এমতাবস্থায়, নাতনি তানহার চিকিৎসা নিয়ে অনেক দুশ্চিন্তায় আছি।

উজ্জ্বল হোসেন তার নাতনিকে বাঁচাতে সরকার, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, জনপ্রতিনিধি ও বিত্তবানদের নিকট সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন।

সহযোগিতা পাঠানোর ঠিকানা:

উজ্জ্বল হোসেন
পিতা: মৃত, ঝড়ুমুদ্দিন
গ্রাম: ধূলন্ডী, পোস্ট অফিস: মহাদেবপুর, থানা: ঘিওর, জেলা: মানিকগঞ্জ।
০১৭৭ ৪৯ ৮০ ৫৪১ (বিকাশ)।
০১৭৭৪৯৮০৫৪১৭ (রকেট)।