আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

বাঘাবাড়ী নৌবন্দর : কোটি কোটি টাকা রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার

news-image

বাঘাবাড়ী নৌবন্দরের ৭ বছর ধরে প্রকৃত বাজারমূল্যে বার্ষিক ইজারা প্রদান বন্ধ থাকায় প্রতিবছর সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে কোটি কোটি টাকা। ভুতুড়ে মামলা ও হাইকোর্টের রিটজনিত জটিলতার কারণে কর্তৃপক্ষ এ বন্দরের ইজারা দিতে পারছে না। প্রকৃত বাজারমূল্যে বাঘাবাড়ী নৌবন্দর ইজারা নিতে ইচ্ছুক একাধিক প্রতিষ্ঠান থাকলেও মামলার স্থগিতাদেশের কারণে তা সম্ভব হচ্ছে না। এ সুযোগে নানা কৌশলে ইজারা প্রদান প্রক্রিয়া বন্ধ রেখে চড়া শুল্ক আদায় এবং বছরের পর বছর ধরে এ নৌবন্দর করায়ত্বে রেখেছে জনতা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেড। নেপথ্যে থেকে এ কাজে একটি কুচক্রী মহল তাদের মদদ দিচ্ছে।
বাঘাবাড়ী নৌবন্দরে রয়েছে বিপিসির পদ্মা, মেঘনা ও যমুনার তেল ডিপো। সরকারি সার, তেল, ধান, চাল, কয়লা, পাথর, সিমেন্ট ও ক্লিংকারসহ বেসরকারি বিভিন্ন মালামাল এই বন্দর থেকে লোড-আনলোড করে উত্তরবঙ্গের ১৬টি জেলায় সরবরাহ করা হয়। এ ছাড়া বাঘাবাড়ীতে রয়েছে সারের সরকারি বাফার গুদাম।
২০১২-১৩ অর্থবছরে জনতা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠানকে ইজারা দেওয়া হয়। এরপর বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে আরও দুবার ইজারা পায় প্রতিষ্ঠানটি। সর্বশেষ ২০১৪-১৫ অর্থবছরে সর্বমোট ১ কোটি ১৪ লাখ টাকার বিনিময়ে ইজারা গ্রহণ করে জনতা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেড। এই সময়ের মধ্যে দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতা, হরতাল, অবরোধ, নদীর পাড় শুকিয়ে যাওয়া, নদীর দক্ষিণ পাড়ে নৌ ফায়ার সার্ভিসের বিল্ডিং নির্মাণসহ দফায় দফায় বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে মোট ৬১ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করে জনতা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেড।
অন্যদিকে এসব কারণকে সম্পূর্ণ অযৌক্তিক এবং ভিত্তিহীন উল্লেখ করে সব আবেদন নাকচ করে দেয় বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ। পরবর্তী সময়ে এ নৌবন্দরের বার্ষিক ইজারা বন্ধে কৌশলে জনতা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেডের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুছ ছালাম বাদী হয়ে শাহজাদপুর উপজেলা যুগ্ম জেলা জজ চৌকি আদালতে মামলা দায়ের করেন। সেই মামলাকেও ভিত্তিহীন ও কাল্পনিক উল্লেখ করে আদালতে ২০২০ সালের ১০ নভেম্বর লিখিতভাবে জবাব দেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের পক্ষে বাঘাবাড়ী বন্দরের তৎকালীন নির্বাহী পরিচালক এসএম সাজ্জাদুর রহমান।
এরপরও রহস্যজনক কারণে বাদীর পক্ষে মামলা চালিয়ে বছরের পর বছর ইজারা বন্ধ রেখে সরকারকে প্রকৃত রাজস্ব থেকে বঞ্চিত করে অবৈধ পন্থায় শুল্ক আদায় করে আসছে জনতা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেড নামে প্রতিষ্ঠানটি। ফলে ব্যবসায়ী সমাজসহ বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠেছে সরকারি রাজস্ব ঘাটতিতে সম্পৃক্ত জনতা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেডের খুঁটির জোর কোথায়?
এ বিষয়ে বাঘাবাড়ী নৌবন্দরের সাবেক ইজারাদার আলতাফ সরকার বলেন, ‘এটি সম্পূর্ণ ভুয়া মামলা। কিছু মানুষকে বিরাট অঙ্কের টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে মামলার নামে তামাশা করে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করছে একটি চক্র।’ বাঘাবাড়ী নৌবন্দরের আরেক ব্যবসায়ী আবুল সরকার বলেন, ‘মূলত প্রচুর মুনাফা করার পরও কেবল সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিতে নিজেদের করায়ত্বে বন্দর কুক্ষিগত করে রেখে লোকসান দেখিয়ে অসৎ উদ্দেশ্যে সম্পূর্ণ কাল্পনিক একটি মামলা দিয়ে এবং হাইকোর্টের স্থগিতাদেশের বরাতে বছরের পর বছর ধরে ইজারা বন্ধ রেখেছে ছালাম বেপারির জনতা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেড।’
অন্যদিকে বাঘাবাড়ী বন্দরের সাবেক নির্বাহী পরিচালক এসএম সাজ্জাদুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি আর বাঘাবাড়ী পোর্টে কর্মরত নেই বলে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে পারব না।
এ ছাড়া বাঘাবাড়ীতে কর্মরত বন্দর ও পরিবহন কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘মামলাটি যেহেতু আদালতে চলমান রয়েছে তাই এ সম্পর্কে মন্তব্য করা উচিত হবে না।’

এ জাতীয় আরও খবর

মুরাদ হাসানের অনুষ্ঠানের বিতর্কিত উপস্থাপক কে এই নাহিদ রায়ান্স?

মুরাদকে গ্রেফতারের দাবিতে কুশপুত্তলিকা দাহ

অন্য এলাকায় হালকাসহ ভারী বৃষ্টি হতে পারে সিলেট-চট্টগ্রামে

যা আছে মুরাদ হাসানের পদত্যাগপত্রে

ভারতকে এস-৪০০ সরবরাহ শুরু করেছে রাশিয়া

ভৈরবে ২ খুনের মামলার আসামি সাফায়েত নৌকার প্রার্থী!

সোনারগাঁও প্রেসক্লাবের নির্বাচন ১৮ ডিসেম্বর

‘পদত্যাগপত্র লিখে মুরাদ হাসানের স্বাক্ষরের জন্য পাঠানো হয়েছে’

‘দেশে করোনা টিকা উৎপাদন শিগগিরই’

ওমিক্রনের সংক্রমণ ক্ষমতা বেশি হলেও মারণ ক্ষমতা কম: ফাউসি

কোম্পানিতে আসতে চান না বাস মালিকরা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ইউপি নির্বাচন মাদক মামলার আসামিও পেলেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন