আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

গৃহিনীদের বেশি পছন্দ যমুনার হোম এপ্লায়েন্স ও ফ্রীজের,বাণিজ্য মেলায় ভাসমান খাবার বিক্রি: শুরু থেকে তদারকিহীন খাদ্য নিরাপত্তা কর্মকর্তা

news-image

নূরুল আজিজ চৌধুরী নারায়নগঞ্জঃ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের রাজউকের অধীনে হচ্ছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার ২৬ তম আসর। মেলার ২২তম দিনে শনিবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত দেখা যায়, সরকারী ছুটির দিনে উপচে পড়া ভীর। এদিকে কভিড ১৯ পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকার ১১দফা স্বাস্থ্যগত বিধি জারীর পর কোথাও দেখা যায়নি স্বাস্থ্যবিধি মানার পরিবেশ। যদিও মেলা কর্তৃপক্ষ মাস্ক পড়াতে বাধ্য করতে কঠোর ভুমিকা নিয়ে মেলা প্রাঙ্গণে চালাচ্ছেন ভ্রাম্যমান আদালত। তবে এদিকে ঢাকা আন্তর্জাতিক বানিজ্য মেলায় যমুনার প্রিমিয়াম স্টলে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে।
রাজধানী পূর্বাচলে স্থায়ী অঙ্গনে শুরু হওয়া ঢাকা আন্তর্জাতিক বানিজ্য মেলা বেশ জমে উঠেছে। দেশ সেরা ইলেকট্রনিক্স এন্ড অটোমোবাইলস ব্র্যান্ড যমুনা তার ক্রেতা সাধারনের জন্য মেলা উপলক্ষে লোভনীয় সব অফার নিয়ে এসেছে ,মেলায় যমুনা পণ্য কিনে ক্রেতারা সর্বোচ্চ ২৫%পর্যন্ত নগদ মূল্য ছাড় পাচ্ছেন। মোটরসাইকেল প্রেমীরা পেগাসাস মোটর বাইক কিনে সর্বোচ্চ ২০,৫০০ টাকা পর্যন্ত মূল্য ছাড় সহ আকর্ষনীয় সব গিফট ও পাচ্ছেন। মাত্র ৫০০০ টাকা বুকিং দিয়ে পেগাসাস মোটর বাইকের মালিক হওয়ার সুবর্ন সুযোগ ও থাকছে এই মেলাতে। এছাড়াও যমুনা স্মার্ট এল,ই,ডি টিভিতে থাকছে লোভনীয় সব অফার মাত্র ৫০,০০০ টাকায় ৫৫” 4k,UHD,LED TV শুধুমাত্র মেলায় অফার আগত ক্রেতারা এ সুযোগ পাবেন। মেলার এ সকল অফার সম্পর্কে মার্কেটিং বিভাগের পরিচালক সেলিম উল্লাহ সেলিম বলেন ,বাণিজ্যেমেলা ক্রেতা দর্শনার্থীদের এক মিলনমেলা । ,আমাদের সম্মানিত ক্রেতা সাধারন এ মেলার জন্য সারা বছর অপেক্ষায় থাকেন। ক্রেতাদের চাহিদার দিকে নজর রেখে যমুনা লোভনীয় সব অফারের মেলা নিয়ে এসেছে, শুধু তাই নয় সারাদেশে যমুনা পণ্যের অগনিত ক্রেতা সাধারনের কথা মাথায় রেখে দেশব্যাপী ছড়িয়ে থাকা যমুনা প্লাজা ও অনলাইন স্টোরে ও এ সকল অফার মেলা চলাকালীন সময় পযন্ত বলবৎ থাকবে। এছাড়াও ক্রেতাদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে তিনটি আকর্ষণীয় বান্ডেল অফারে থাকছে ঘর সাজানোর প্রয়োজনীয় সব সামগ্রী, ফ্রিজ,স্মার্ট এল,ই,ডি টিভি ও মাইক্রো ওভেনের সমন্বয়ে এ বান্ডেল অফারটি ক্রেতা তার ক্রয় ক্ষমতার মধ্যেই পেয়ে যাচ্ছেন। মেলা অভ্যন্তরে ভাসমান খাবার বিক্রেতা ও কতিপয় স্টলে নিন্মমানের পন্য বিক্রি করতে দেখায় হতাশা প্রকাশ করেছেন দর্শনার্থীরা। মেলার ব্যবসায়ীদের দাবী, খাদ্য নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের কেহই মেলার শুরুর দিন থেকে কোন খবর নেননি খাবার হোটেলগুলোর। এতে একদিকে স্টলে স্টলে নিন্ম মানের খাবার আর সুযোগ বুঝে ভাসমান খাবার বিক্রেতারাও খাবার বিক্রি করছে।
মেলার ২২ তম দিনে শনিবার সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, মেলার স্থায়ী প্যাভিলিয়ন ছাড়াও অস্থায়ী স্টলে বসেছে বিভিন্ন নামীয় কোম্পানীর উৎপাদিত পন্য। এদের মাঝে নিন্ম মানের পন্য বিক্রির দৃশ্যও চোখে পড়ে দর্শনার্থীদের। তবে মেলায় ক্রেতা আকর্ষণ বাড়াতে যুমনা, আরএফএল, ওয়ালটনসহ বিভিন্ন কোম্পানী ইতোমধ্যে বিশেষ ছাড় ঘোষণা করেছেন। অনেকে তাদের পন্য বিক্রি বাড়াতে হোম ডেলিভারী সার্ভিস ফ্রি ঘোষণা করায় আগের তুলনায় বিক্রি বেড়েছে বলে দাবী সংশ্লিষ্ট স্টল পরিচালকদের।
এদিকে মেলা অভ্যন্তরে পেয়ারা ও আনারসের আচার বিক্রি করতে দেখা গেছে হুমাউন , কাউছার, ও খোকন নামের বেশ কয়েকজন ভাসমান খোলা খাবার বিক্রেতাকে। তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গরীব মানুষ তাই ভেতরে টিকেট কেটে প্রবেশ করেই বিক্রি করছি। ভেতরের অন্যান্য খাবারের দাম বেশি থাকায় আমাদের কাছ থেকে অল্প দামে কিনে খাচ্ছে। এ বিষয়ে কেউ তাদের বাঁধা দেয়নি বলে দাবী করেন তারা।
অভিযোগ রয়েছে, গত ১ জানুয়ারী মেলা শুরু হওয়ার পরথেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ব্যতিত কোন লোকজন খাবারের মান ও ভেজাল প্রতিরোধে মেলায় অভিযান বা খোঁজ খবর নেননি। ফলে যে যার মতো নিন্ম মানের খাবার বিক্রি এমনকি ভাসমান খোলা খাবার বিক্রেতারাও দেদারছে তাদের অস্থাস্থ্যকর খাবার বিক্রি করে যাচ্ছে।
মেলায় দায়িত্বপ্রাপ্ত খাদ্য নিরাপত্তায় নিয়োজিত , কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানান , আমি একাই পুরো উপজেলার বিভিন্ন খাবার হোটেল ও অন্যান্য বিষয় দেখভাল করি। মেলায় আমাকে কেউ লিখিত দায়িত্ব দেয়নি। তবে যেহেতু আমার দায়িত্বের এলাকায়। সেহেতু মেলা অভ্যন্তরে আমি না গেলেও আমাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের লোকজন দেখাশুনা করছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পণা কর্মকর্তা ডাক্তার নূর জাহান আরা খাতুন বলেন, মেলার অভ্যন্তরে আগত দর্শনার্থীদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তায় সাম্প্রতিক কভিড নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে একাধিক টীম। এদের মাঝে আমাদের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত প্রতিদিন একজন করে ডাক্তার, নার্স ও সহযোগী রয়েছেন। পাশাপাশি খাদ্য নিরাপত্তা বিষয়ে খাদ্য ও স্বাস্থ্য পরিদর্শকদের নিয়ে একাধিকবার অভিযান পরিচালনা করেছি। অনেককেই সতর্ক করেছি। তবে শাস্তির আঁওতায় আনা হয়নি।
মেলায় ঘুরতে আসা পিতলগঞ্জের বাসিন্দা জুলহাস মিয়া বলেন, আন্তর্জাতিক মানের একটি মেলায় বাইরের মতো খোলা খাবার বিক্রি হচ্ছে তা মেনে নিতে পারছিনা। আবার ভেতরের খাবারের মানও খুব একটা ভালো না। বর্তমান করোনা ও ওমিক্রন পরিস্থিতিতে এমন নিন্মমানের ব্যবস্থাপনায় হতাশা প্রকাশ করা ছাড়া উপায় নাই। মেলায় ঘুরতে আসা রাজধানীর বাড্ডা এলাকার বাসিন্দা সুমা আক্তার বলেন, বাহিরে যে বার্গার উন্নতমানের স্বত্তেও দাম মাত্র ৮০ থেকে ১৫০ টাকা। মেলায় সেটার দাম রাখা হচ্ছে ২শ থেকে ২৮০ টাকা। এভাবে মুল্য নিলে সাধারন দর্শনার্থীরা একদিনের বেশি মেলায় আসতে চাইবেন না।

এ জাতীয় আরও খবর

নারায়নগঞ্জে ৪১৪ জন শিক্ষককের আড়াই কোটি টাকা হাতিয়ে নিলেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম

দৌলতদিয়ায় ৭ ফেরিঘাটের ৪টিই বিকল, যানবাহনের দীর্ঘ সারি

পানির নিচে পন্টুন, ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সারি

ছাত্রদল করা সন্তানের জনক হলেন থানা ছাত্রলীগের সহসভাপতি

যমুনা নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন

চাঁদপুরের ডিসিকে বদলি, তিন জেলায় নতুন ডিসি

গাফফার চৌধুরী আর নেই

প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ভূমি দখলের পাঁয়তারার অভিযোগ

কুমিল্লার মানবজমিন প্রতিনিধিসহ সারাদেশের সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে সোচ্চার রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব ॥ প্রতিবাদ সভা, মানববন্ধন-বিক্ষোভ মিছিল

চাকরির নামে টাকা আত্মসাৎ গ্রেপ্তার ২

মহাসড়কে গাছ ফেলে ডাকাতি করতো তারা, গ্রেফতার ৬

বনের ভেতর সিসা তৈরির কারখানা, হুমকির মুখে পরিবেশ