আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

বাবার হাতে মার খাওয়ার দেড় মাস পর মারা গেল যুবক: পুলিশ

news-image

রাজশাহীর বাঘায় বাবার হাতে মারধরের ঘটনায় আহত এক সন্তান দেড় মাস পর মৃত্যুবরণ করেছেন। বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) ভোরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে।
ওই যুবকের নাম শিশির (২২)।
বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘পাট ধোয়াকে কেন্দ্র করে দুই ভাইয়ের দ্বন্দ্বের এক পর্যায়ে দেড় মাস পূর্বে নিজের দুই সন্তানকে শাসন করতে মারধর করেন উপজেলার ফতেপুর বাউস গ্রামের বাবু হোসেন (৫২)। এসময় অসাবধানতাবসত বড় ছেলে শিশির মাথায় আঘাত পাওয়ায় তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ বুধবার ভোরে শিশির মৃত্যুবরণ করে।’
তিনি আরও বলেন, ‘শিশিরের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর সকাল ১০ টার দিকে তার পিতা বাবলু হোসেনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়।’
এ সময় বাবুল হোসেনকে ছাড়িয়ে নিতে আসেন প্রায় অর্ধশত মানুষ। তাদের উদ্দেশে ওসি বলেন, ‘পিতার হাতে মার খেয়ে সন্তান মারা গেছেন। দণ্ডবিধি অনুযায়ী এটাকে হত্যা বলে গণ্য করা হচ্ছে।’
এ ঘটনা থেকে অন্য অভিভাবকদের শিক্ষা গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানান তিনি।