আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

বালিশচাপা দিয়ে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামীর ফাঁসি

news-image

যশোরে স্ত্রীকে বালিশচাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে মনিরুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তির ফাঁসি ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ইখতিয়ারুল ইসলাম মল্লিক এ রায় দিয়েছেন।
দণ্ডিত মনিরুল ইসলাম যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার ভাতুড়িয়া গ্রামের মৃত আবদুল খালেকের ছেলে। পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এম ইদ্রিস আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০২ সালে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার হাবুল্লা গ্রামের আবদুর রশিদের মেয়ে তারা বেগমের সঙ্গে একই উপজেলার ভাতুড়িয়া গ্রামের মৃত আবদুল খালেকের ছেলে মনিরুল ইসলামের বিয়ে হয়। তাদের দুটি ছেলে ও মেয়ে আছে। বিয়ের পর থেকেই মনিরুল তার স্ত্রী তারা বেগমকে মারপিট করত।
২০১২ সালের ৪ অক্টোবর তারা বেগমের মুখে গামছা ও বালিশচাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে। এরপর বাড়ির পেছনের বাগানে লাশ মাটিচাপা দেয়। ওই বছরের ৮ অক্টোবর নিহতের মা তার মেয়ের সন্ধান করতে গিয়ে লাশের সন্ধান পান। ওই সময় পুলিশকে অবহিত করা হয়। পর দিন সকালে ডোমের সহায়তায় তারা বেগমের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
এ ঘটনায় নিহতের মা সবুরা খাতুন বাঘারপাড়া থানায় মনিরুল ইসলামের নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২০১৪ সালের ২৯ জানুয়ারি মনিরুর ইসলামকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেওয়া হয়। দীর্ঘ বিচারপ্রক্রিয়া শেষে বৃহস্পতিবার যশোরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ইখতিয়ারুল ইসলাম মল্লিক এক রায়ে মনিরুল ইসলামের ফাঁসির আদেশ ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন।