আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

বাড়িতে বাবার লাশ রেখে পরীক্ষার হলে মেরাজ

বাড়ির উঠোনে পিতার মরদেহ রেখে কাঁদতে কাঁদতে যথাসময়ে কেন্দ্র গিয়ে এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন মেরাজ হক নামের এক শিক্ষার্থী।
বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সকালে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার সাইফুর রহমান সরকারি কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রের ৩ নম্বর কক্ষে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন তিনি। মেরাজ ডিগ্রি কলেজের কারিগরি শাখার পরীক্ষার্থী।

জানা গেছে, পরীক্ষার খাতায় প্রশ্নোত্তর লেখার সময় তার চোখ দিয়ে অশ্রু ঝরছিল। এ পরিস্থিতিতে পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী অন্যান্য পরীক্ষার্থী ও কক্ষ পরিদর্শক সবাই তাকে সান্ত্বনা দেন এবং সব ভুলে ভালোভাবে প্রশ্নোত্তর লেখার পরামর্শ দেন।

এদিকে মেরাজ হক শেষ পর্যন্ত পরীক্ষা দিয়ে স্বজনদের সাথে বাড়ি ফিরে যান। এরপর দুপুর আড়াইটার দিকে ৪৭ বছর বয়সী প্রয়াত পিতা শরিফুল হক মিল্টনের মরদেহ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় বলে জানিয়েছেন মেরাজ হকের খালু পলাশ হোসেন।
তিনি আরও জানান, তার ভায়রা ভাই শরিফুল হক মিল্টন ফুলবাড়ী উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের হকটারী গ্রামের অধিবাসী। গতকাল বুধবার (১ ডিসেম্বর) দিনগত রাত ১২টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

এদিকে সাইফুর রহমান সরকারি কলেজের ও পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিব মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, পরীক্ষার্থী মেরাজ হকের পিতার মৃত্যুর খবর আমাদের ব্যথিত করেছে। আমরা সবাই তাকে সান্ত্বনা দিয়েছি। সে কান্নাকাটি করলেও অন্যান্য পরীক্ষার্থীর মতো পরীক্ষা দিয়েছে। তবে কোনো সমস্যা হয়নি।