আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

বেড়িবাঁধ সড়কের দু’পাশে অবৈধ স্থাপনা বেদখল ডিএনসিসির ৫২ একর জমি আনিসুল হকের উদ্ধার করা জমি তদারকির অভাবে বেদখল * ১১শ’ কোটি টাকা মূল্যের এ সম্পত্তি দ্রুত উদ্ধারের উদ্যোগ নেয়া হবে

news-image

ফের দখল হয়ে গেছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রায় ১১শ’ কোটি টাকা মূল্যের ৫২ একর জমি। গাবতলী-বাবুবাজার সড়কের স্লুইসগেট থেকে গাবতলী প্রধান সড়ক পর্যন্ত বেড়িবাঁধ সড়কের দু’পাশের জমিতে এখন সহস্রাধিক অবৈধ স্থাপনা।
ইট, বালু, পাথর, দোকানপাট, মাছের আড়ত, বাস-ট্রাক পার্কিং স্ট্যান্ড করে গড়ে তুলেছে দখলদাররা। প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের সময় ২০১৭ সালে এসব জমি উদ্ধারের পর ফের দখল হয়ে গেছে।

দখলদাররা এই জমি ভাড়া দিয়ে বছরে শত কোটি টাকার বাণিজ্য করছেন। কিন্তু জমির মালিক ডিএনসিসি কিছুই পাচ্ছে না ।

এ জমিতে আধুনিক ওয়ার্কশপ, অ্যাসফল্ট প্ল্যান, আধুনিক জবাইখানা, খেলার মাঠ এবং সবুজ বেষ্টনীর জন্য প্রকল্প প্রস্তুত করেছে ডিএনসিসির প্রকৌশল বিভাগ। কিন্তু দখলদারদের সরাতে না পারায় এর কিছুই করা যাচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, এই ৫২ একর জমি নতুন করে দখলমুক্ত করা হবে। ইতোমধ্যে আমি ওই স্থান পরিদর্শন করেছি, এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে সম্পত্তি বিভাগকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

তবে সবকিছু ঠিক করে উচ্ছেদের পর ডিএনসিসির দখলে আনতে আরও অন্তত দুই মাস সময় লাগবে।

তিনি বলেন, আগে জমি উদ্ধারের পর স্থায়ীভাবে সীমানা দেয়াল দেয়া হলে ফের দখলের সুযোগ থাকত না। এবার উচ্ছেদের পর ওই জায়গায় টেকসই সীমানা বাউন্ডারি করা হবে।
ডিএনসিসির ওই এলাকার ৫২ একর সম্পত্তির বাজারমূল্য সম্পর্কে রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব) মো. কামাল মাহমুদ যুগান্তরকে বলেন, ‘গাবতলী-বাবু বাজার বেড়িবাঁধ সড়কের স্লুইসগেট থেকে গাবতলী প্রধান সড়ক পর্যন্ত ওই এলাকায় জমির বর্তমান কাঠাপ্রতি বাজার দর হবে সর্বোচ্চ ৩৫ লাখ টাকা।’

এ হিসাবে ডিএনসিসির ৫২ একর বা ৩ হাজার ১২০ কাঠা জমির বাজার মূল্য দাঁড়ায় ১ হাজার ৯২ কোটি টাকা। তবে স্থানীয় অনেকের মতে, বাণিজ্যিক কেন্দ্র হওয়ায় এর বাজারমূল্য হবে আরও বেশি হবে।

বিশাল অংকের টাকার জমি দখলে রাখা প্রসঙ্গে, গাবতলী ইট, পাথর এবং বালুর আড়ত ব্যবসায়ী বহুমুখী সমবায় সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মাহমুদুল হাসান মনির যুগান্তরকে বলেন, অবিভক্ত সিটি কর্পোরেশনের কাছ থেকে আমরা এখানকার ৩০০টি প্লট ইজারা নিয়েছিলাম।

যদিও ব্রিটিশ আমল থেকে এখানে ইট, বালু, খোয়ার ব্যবসা চলে আসছে। আর এখানকার ইট, বালু, খোয়ার সরবরাহে রাজধানীসহ আশপাশের এলাকার উন্নয়ন কার্যক্রম চলে।

এটি আমরা উচ্চ আদালতে রিট পিটিশন দায়ের করেছি। উচ্চ আদালত থেকে আমাদের ইজারা দেয়া প্লটগুলো উচ্ছেদ না করতে স্থগিতাদেশ দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ২০১৭ সালে এ এলাকার উচ্ছেদ কার্যক্রমের সময় আমাদের কিছু দোকানপাটও ভুলবশত ডিএনসিসি উচ্ছেদ করে। পরবর্তীতে আবার আমরা সেসব দোকান স্থাপনা করেছি। তিনি বলেন, আমরা ডিএনসিসির কাছে এ জায়গা বরাদ্দ চাই।

এ বিষয়ে ডিএনসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মো. মোজাম্মেল হক যুগান্তরকে বলেন, ‘গাবতলী-বাবুবাজার সড়কের স্লুইসগেট থেকে গাবতলী প্রধান সড়ক পর্যন্ত ৫২ একর জায়গা পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে ১৯৮৯ সালে ব্যবহার করার জন্য নিয়েছে তৎকালীন ঢাকা সিটি কর্পোরেশন।’

তিনি বলেন, ব্যবহারকারী সংস্থা হিসেবে সেই থেকে এ জমির মালিক ঢাকা সিটি কর্পোরেশন বা বর্তমানে ডিএনসিসি। এখানে অন্য কোনো সংস্থার মালিকানা বা ইজারা নিয়ে আর কোনো ধরনের জটিলতা নেই।

আর ওই জায়গায় উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করতেও আমাদের আইনগত কোনো বাধা নেই।

উচ্চ আদালতের কোনো ধরনের স্থগিতাদেশ নেই। ওই জায়গা ফের দখলমুক্ত করার চিন্তাভাবনা চলছে। এবার দখলমুক্ত করলে আমরা স্থায়ীভাবে দখলে রাখতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

সরেজমিনে দেখা গেছে, গাবতলী-বাবুবাজার বেড়িবাঁধ সড়কের স্লুইসগেট থেকে গাবতলীর প্রধান সড়ক পর্যন্ত সড়কের দু’পাশে ডিএনসিসির জায়গা দখলদাররা পোক্তভাবে ব্যবসার পসরা সাজিয়ে বসেছেন।

কেউ নিজেদের জায়গার সঙ্গে ডিএনসিসির জায়গা দখল করে সীমানা বাউন্ডারি করেছেন। কেউ ছোট ছোট দোকান ঘর গড়ে তুলে বিশাল জায়গাজুড়ে ইট, খোয়া, বালু, পাথরের ব্যবসা করেছেন। আবার কেউ বাস, ট্রাক স্ট্যান্ড গড়ে তুলেছেন। কেউবা মাছের আড়ত গড়ে বাণিজ্য করছেন।

বেড়িবাঁধ সংলগ্ন ডিএনসিসির প্রায় পাঁচ কাঠা জমি দখল করে ইট, খোয়ার ব্যবসা করছেন মেসার্স আফসানা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মো. আবু তাহের।

তিনি যুগান্তরকে বলেন, ‘এ জায়গা আমি দখল করেনি। মাসিক ১৬ হাজার টাকা ভাড়ায় এখানে ব্যবসা করছি। তবে আমি শুনেছি, এ জমির দখলদার, পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাছ থেকে ইজারা নিয়েছেন এবং তার কাছে জমির সকল কাগজপত্রও রয়েছে।’

ডিএনসিসির একজন প্রকৌশলী জানান, ‘মেয়র আনিসুল হক বেঁচে থাকতে এ এলাকার দখলদাররা আমাদের ভয় পেত। অনেক সমীহ করে কথা বলত। কেউ কোনো পরিচয়ে সামনে আসত না। আর এখন ওইসব দখলদার আমাদেরকে নানাভাবে ভয়ভীতি দেখান।’

তিনি বলেন, ‘ওই সময় আমরা অনেক কষ্ট করে এ জমি উদ্ধার করেছি। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে আমার নিবেদন, হয় এসব দখলদার উচ্ছেদ করে এখানে ডিএনসিসির পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হোক, নইলে দখলদারকে জমি বরাদ্দ দিয়ে রাজস্ব আদায় করা হোক। তাহলেও জমিগুলো ডিএনসিসির নিয়ন্ত্রণে থাকল, এসব জায়গা থেকে বছরে বড় অঙ্কের রাজস্বও আদায় হবে।’

ডিএনসিসির আরেক প্রকৌশলী জানান, বিভক্তির পর থেকে ডিএনসিসির যান্ত্রিক বিভাগের কোনো অফিস নেই। অ্যাসফল্ট প্ল্যান্টেরও নিজস্ব কোনো অফিস নেই।

কারওয়ান বাজার স্থানান্তরের জন্য নির্মিত পাইকারি কাঁচাবাজারকে এখন যান্ত্রিকের ওয়ার্কশপ ও অ্যাসফল্ট প্ল্যান্টের অফিস হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, কর্তৃপক্ষের উচিত হবে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বেদখল ওই সম্পত্তি দখলমুক্ত করে ওই জায়গা নিয়ে ডিএনসিসির পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়ন করা হবে।

এক্ষেত্রে ডিএনসিসির সম্পত্তি বিভাগের সক্রিয় ভূমিকা পালন করা দরকার। কিন্তু সম্পত্তি বিভাগের সে ধরনের তৎপরতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ২০১৭ সালের ৫ জুলাই থেকে ৯ জুলাই পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে ডিএনসিসি। তৎকালীন মেয়র প্রয়াত আনিসুল হক এ দখলমুক্ত অভিযানের নেতৃত্ব দেন।

এছাড়া ডিএনসিসিতে কর্মরত তৎকালীন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ার, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাঈদ আনোয়ারুল ইসলাম, লেফটেন্যান্ট কর্নেল সাবের সুলতানের কঠোর ভূমিকা ছিল ওই সম্পত্তি উদ্ধারে।

ওই জায়গা উদ্ধারের পর ডিএনসিসি নিজেদের জায়গায় টিন দিয়ে সীমানা চিহ্নিত করে। আনিসুল হক মারা যাওয়ার পর সেখানে আর টেকসই সীমানা বাউন্ডারি দেয়নি ডিএনসিসি।

এ সুযোগে দখলদারক্র, ডিএনসিসির সাইনবোর্ড, টিনের সীমানা বাউন্ডারি সরিয়ে পুনরায় দখল করে নিয়েছে ।

এ জাতীয় আরও খবর

শতকোটি টাকার হাঁস প্রজনন কেন্দ্রের বাচ্চা ফোটে কাগজে-কলমে

পরিত্যক্ত ঘোষণার ৩০ বছর পরও ভবনে চলছে পুলিশ ফাঁড়ির কাজ

‘তথ্য অধিকার, সংকটে হাতিয়ার’ প্রসঙ্গ: স্বপ্রণোদিত তথ্য প্রকাশ মরতুজা আহমদ প্রধান তথ্য কমিশনার

মোবাইলের লোভ দেখিয়ে শিশু ধর্ষণ, কিশোর আটক

ডোমার খাদ্য গুদামে চাল দেননি চুক্তিবদ্ধ ৪৯ মিলার

গণধর্ষণের ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এমসি কলেজে পুলিশ কমিশনার

গাজীপুরে পুলিশের অস্ত্র-গুলি ছিনতাই

যৌন নির্যাতনের শিকার পাঁচ বছরের শিশু, হাসপাতালে ভর্তি

ভ্রূণ হত্যা, নির্যাতন, যৌতুক দাবি- তিন অভিযোগে এসআইয়ের বিরুদ্ধে স্ত্রীর মামলা

এমসি কলেজে গণধর্ষণ: অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মীদের ধরতে অভিযান

ভেন্টিলেশন সাপোর্টে অ্যাটর্নি জেনারেল, দোয়া চেয়েছে পরিবার

কার্যালয়ে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানকে ইয়াবা খাওয়াচ্ছেন ইউপি সদস্য