আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

ভাগ্নেকে নৌকা পাইয়ে দিতে মামার কারসাজি

news-image

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় আসন্ন পাড়ভাঙ্গুড়ায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন পাইয়ে দিতে কারসাজির অভিযোগ উঠেছে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লোকমান হোসেনের বিরুদ্ধে।
নিজ ভাগ্নে দলীয় পদবিবিহীন হেদায়েতুল হককে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বানিয়েছেন বলে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন আরেক মনোনয়নপ্রত্যাশী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মধু।

লিখিত অভিযোগ ও অনুসন্ধানে জানা যায়, গত ইউপি নির্বাচনে হেদায়েতুল হকের বড় ভাই পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক বাকি বিল্লাহ (বর্তমানে উপজেলা চেয়ারম্যান) এবং মামা লোকমান হোসেন প্রভাব খাটিয়ে হেদায়েতুল হককে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন নিয়ে সুযোগ করে দেন। একই ইউপিতে আসন্ন নির্বাচনে হেদায়েতুল হকসহ আরও চারজন মনোনয়নপ্রত্যাশীর নামের তালিকা কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে পাঠায় উপজেলা আওয়ামী লীগ। সেখানে হেদায়েতুল হক ছাড়া সবাই আওয়ামী লীগের বিভিন্ন ইউনিটের পদে রয়েছেন।

তালিকায় রয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মধু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নূর মোহাম্মদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আতাউর রহমান বাদশা ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মজনুর রহমান।

মূলত পদহীন ভাগ্নে হেদায়েতুল হককে কৌশলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বানিয়ে মনোনয়ন বোর্ডে তালিকা পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি জানতে পেরে অপর মনোনয়নপ্রত্যাশী তিনবারের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম মধু বুধবার কেন্দ্রীয় কমিটির মনোনয়ন বোর্ডের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগের বিষয়ে সভাপতি লোকমান হোসেন বলেন, গতবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় হেদায়েতুল হক পদাধিকার বলে উপজেলা আওয়ামী লীগের কো-অপ্ট সদস্য হয়েছে। কিন্তু ভুলবশত বিষয়টি ব্যাখ্যা করা হয়নি।

পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সংসদ-সদস্য গোলাম ফারুক প্রিন্স বলেন, চেয়ারম্যান হলে পদাধিকার বলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হবেন এমন কোনো সুযোগ নেই।