আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

ভারত থেকে এল আরও ২০০ টন অক্সিজেন

news-image

ভারত থেকে আরও ২০০ মেট্রিকটন তরল অক্সিজেন বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেল স্টেশনে এসে পৌঁছেছে। বুধবার (২৮ জুলাই) সকাল ১০টা ২৫ মিনিটে ভারতীয় রেলওয়ের ইন্দো-বাংলা অক্সিজেন এক্সপ্রেস ট্রেনটি স্টেশনে পৌঁছায়। দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশে আসল ভারতীয় অক্সিজেনবাহী ট্রেন ইন্দো-বাংলা অক্সিজেন এক্সপ্রেস।
বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার ইসমাইল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সকালে বিশেষ এই ট্রেনটি অক্সিজেন নিয়ে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে এসে পৌঁছায়। স্টেশনের ৩ নম্বর লাইন দিয়ে প্রবেশ করে ট্রেনটি।

ভারতের ঝাড়খন্ড প্রদেশের জামশেদপুর থেকে বেনাপোল স্থলবন্দর হয়ে সিরাজগঞ্জে পৌঁছায় ২০০ মেট্রিকটন তরল মেডিকেল অক্সিজেন বহনকারী বিশেষ এই ট্রেনটি। পরে শুরু হয় খালাস প্রক্রিয়া। ট্রেনের ১০টি কন্টেইনারে থাকা তরল মেডিকেল অক্সিজেন খালাস করা হয় বড় বড় রোড ট্যাংকারে। এই অক্সিজেন করোনা মোকাবিলায় বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হবে বলে জানায় সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান লিনডে বাংলাদেশের কর্মকর্তারা।

এর আগে ১০টি কন্টেইনারে অক্সিজেন নিয়ে বিশেষ ট্রেনটি মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) রাতে ভারতের জমসেদপুর থেকে বেনাপোল বন্দরে এসে পৌঁছায়। লিনডে বাংলাদেশ নামে একটি প্রতিষ্ঠান এ অক্সিজেন আমদানি করে।

আমদানিকারক লিনডে বাংলাদেশ লিমিটেড কোম্পানির প্রতিনিধি সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট সারতী এন্টারপ্রাইজের মতিয়ার রহমান জানান, ভারতে করোনা পরিস্থিতির একটু উন্নতি হওয়ায় সে দেশের সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো আবারও বাংলাদেশে অক্সিজেন সরবরাহ শুরু করেছে। তার ধারাবাহিকতায় নিয়মিত অক্সিজেন আমদানি হচ্ছে। বন্দর থেকে ছাড় করিয়ে গন্তব্যে পাঠানো হয়েছে।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের অতিরিক্ত কমিশনার ড. নিয়ামুল ইসলাম জানান, বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে রেলযোগে অক্সিজেন আমদানি করা হচ্ছে। করোনাকালীন অক্সিজেন আমদানি করা হলে তা সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে দ্রুত খালাস করা হচ্ছে।

বেনাপোল আমদানি-রপ্তানি সমিতির সহসভাপতি আমিনুল হক জানান, দেশে দিন দিন করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। এ মুহূর্তে চিকিৎসা খাতে অক্সিজেন খুব জরুরি। ভারতে করোনা পরিস্থিতি এখনো স্বাভাবিক হয়নি। ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের বাণিজ্যিক সম্পর্কের পাশাপাশি বন্ধুত্বের সম্পর্ক ভালো থাকায় এ অবস্থায় অক্সিজেন আমদানি সম্ভব হচ্ছে। স্থলপথে ট্রাকযোগে ও রেলে অক্সিজেন আমদানি হচ্ছে। স্বাভাবিক সময়ে গড়ে প্রতিদিন ৫০ টন অক্সিজেন আমদানি হয়ে থাকলেও বর্তমানে এ অক্সিজেন আমদানির পরিমাণ বেড়েছে। প্রতিদিন গড়ে ১১০ মেট্রিকটন অক্সিজেন আমদানি করা হচ্ছে।

বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার সাইদুর রহমান জানান, অক্সিজেন আমদানিকারক বাংলাদেশের লিনডে বাংলাদেশ। রপ্তানিকারক ভারতের লিনডে ইন্ডিয়া। বেনাপোল বন্দর ও কাস্টমসের আনুষ্ঠানিকতা শেষে অক্সিজেনবাহী কার্গোরেলটি রওনা দিয়ে বঙ্গবন্ধু সেতুর (পশ্চিম) সদানন্দপুর স্টেশনে বুধবার ভোর ৫টা নাগাদ পৌঁছায়। এ অক্সিজেন খালাস করে সেখান থেকে ঢাকায় নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। পরে দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে এ অক্সিজেন সরবরাহ করা হবে।

গত ২৫ জুলাই পরীক্ষামূলকভাবে ১ম পর্যায়ে রেলপথে অক্সিজেন আনার প্রক্রিয়া সফল হবার পর আনা হলো ২য় চালান। এইভাবে আরও অক্সিজেন আনা হবে বলে জানিয়েছে সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান।