আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

ভোটকেন্দ্রে পুলিশের গাড়িতে আগুনের ঘটনায় আহত ১০, আটক ৭

news-image

জামালপুরের বকশীগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে মেরুরচর ইউনিয়নে হাসেন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোট কেন্দ্রে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পুলিশের একটি পিকআপ ভ্যান, তিনটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেওয়া হয়। এতে অন্তত ১০ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ৭ জনকে আটক করা হয়েছে।

আজ বুধবার দুপুরে সাড়ে ১২ দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক ভোট কেন্দ্রে ঢুকলে নৌকায় সীল মারার সন্দেহে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোয়ার হোসেন (হকের) সমর্থকেরা উত্তেজিত হয়ে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এতে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থনকারীদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশের গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেন তাঁরা।
স্থানীয় নুরুল ইসলাম জানান, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ভোট কেন্দ্রে রুমে ঢুকলে বাইরে থাকা লোকজন উত্তেজিত হয়। এর পরেই পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয়।

নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘আমি সকাল থেকে বিভিন্ন কেন্দ্রে ঘুরেছি। আমাকে ওই কেন্দ্র একজন জন্য ফোন দিয়ে জানান যে ওই কেন্দ্রে হকের লোক গন্ডগোল করার চেষ্টা করছে। পরে আমি ওই কেন্দ্রে যাই। হকের লোকজন লাঠি নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা করে।’

মোটরসাইকেল প্রতীকের প্রার্থী মনোয়ার হোসেন (হক) বলেন, ‘সকাল বেলায় কয়েকটি কেন্দ্র থেকে নৌকার প্রার্থীর লোকজন আমার এজেন্টেদের গলা ধাক্কা দিয়ে বের করে দেন। আমি ওই কেন্দ্র ঘুরে অন্য কেন্দ্রে যাচ্ছিলাম। রাস্তায় একদল ছেলে ওই কেন্দ্রে যাওয়ার খবর পাই। তারা সেখানে অনেকক্ষণ সিল মারার চেষ্টা করে। কিন্তু সিল মারতে পারে না। তার কিছুক্ষণ পরেই ওসি ভোট কেন্দ্রে আসেন। কেন্দ্রেই ওসির সাথে নৌকা মার্কার প্রার্থী ও কিছু লোকজন আলোচনা করেন। তার কিছুক্ষণ পরেই কেন্দ্রে মোবাইল কোর্টের ফোর্স কেন্দ্র আসেন। আসার সাথে সাথেই একদল ছেলে ভোট কেন্দ্রে ঢুকে সিল মারার চেষ্টা করেন। তার পরেই ভোট কেন্দ্রে থাকা লোকজন উত্তেজিত হয়ে সংঘর্ষ শুরু হয়। মারামারি দেখেই আমি ওই কেন্দ্র থেকে চলে আসি। এরপরে কি হয়েছে আমি জানি না।’
প্রিসাইডিং অফিসার উলফাতুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান বলেন, দুপুর ২টায় ওই কেন্দ্রে ভোট স্থগিত করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুন মুন জাহান লিজা জানান, তাৎক্ষণিক তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ব্যাপারে তিনি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছেন।

জামালপুর পুলিশ সুপার নাছির উদ্দিন আহম্মেদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন, এ ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তাঁদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে এবং সাতজনকে আটক করা হয়েছে।

এ জাতীয় আরও খবর