আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

মানিকগঞ্জের শিবালয়ে নদীতে আড়াআড়ি বাঁশের বেড়া দিয়ে মাছ শিকার

news-image

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি : মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার ইছামতি নদীতে আড়াআড়ি বাঁশের বেড়া দিয়ে বানা ও ভেসাল জাল ফেলে দিয়ে প্রতিদিন অবৈধভাবে মাছ শিকার করছেন স্থানীয়রা । এছাড়াও উপজেলার বোয়ালীর চক ও বেলতা চকেও রয়েছে অসংখ্য অবৈধ ভেশাল।

গত কয়েকদিন আগেই সরকারি ভাবে উন্মুক্ত জলাশয়ের বেলতা চকে ১০০ কেজি রেনু পোনা মাছ ছাড়া হয়েছে। যেখানে এ রেনু পোনা মাছ ছাড়া হয়েছে সেখানেই রয়েছে ১০-১৫ টি ভেশাল।

সরেজমিনে আজ শিবালয় উপজেলার উথলি ইউনিয়ন দিয়ে বয়ে যাওয়া ইছামতি নদীটির বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা যায়, শিবালয় উপজেলার বাল্লা নয়াকান্দি বাজার থেকে শুরু হয়ে জাফরগঞ্জ পর্যন্ত প্রায় ১০ কিলোমিটার ইছামতি নদী এলাকায় দুই শতাধিক পয়েন্টে স্থানীয়রা আড়াআড়িভাবে বাঁশের বেড়া, বানা ও ভেসাল জাল দিয়ে নদীতে অবৈধভাবে রেনু পোনাসহ প্রতিদিন ছোট-বড় বিভিন্ন প্রজাতির মাছ শিকার করছেন।

এসময় নদীতে অবৈধভাবে বাঁশের বেড়া, বানা ও ভেসাল জাল দিয়ে মাছ শিকার করার বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় দু’জন মাছ শিকারি জানান, পানি রেড়ে যাওয়ায় বর্তমানে নদীতে কোনো মাছ পাওয়া যায় না। এছাড়া, বাড়ির পাশে নদী তাই বেড়া দিয়ে একটু মাছ ধরার চেষ্টা করছি।

এদিকে, নদীতে বেড়া, বানা ও ভেসাল জাল দিয়ে মাছ ধরার বিষয়ে সুজন মাহমুদ জানান, কিছু কিছু স্থানীয়রা নদীতে প্রতিদিন যেভাবে বাঁশের বেড়া, বানা, ভেসাল জাল ও চায়না দুয়ারী দিয়ে মাছ ধরা শুরু করেছে। এতে করে নদীতে পানির প্রবাহ বাঁধার সৃষ্টি হওয়ার সাথে সাথে মাছের প্রজনন ক্ষেত্রেও চরমভাবে হুমকির মুখে। নদীর উজান দিকে বাঁধ দিয়ে আটকিয়ে মাছ ধরায় আমরা সারাবছর মানুষেরা নদী থেকে যে কিছু মাছ ধরে খামু তা আর মনে হয় সম্ভব হবে না।

নদীতে বাঁশের বেড়া, বানা ও ভেসাল জাল দিয়ে অবৈধভাবে মাছ শিকার করার বিষয়ে শিবালয় উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম জানান, আমিও এবিষয়টি নিজে দেখেছি। তবে দুই শতাধিক নয় শতাধিক ভেশাল রয়েছে। এছাড়া আমি এব্যাপারে ইউএনও মহোদয়ের সাথে কথাও বলেছি। আমরা এসপ্তাহের মধ্যেই বাঁধ অপসারণে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো বলে তিনি জানান।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন সুলতানা জানান, আমি ব্যাপারটি জেনেছি, আমরা এ ব্যাপারে কয়েকদিনের মধ্যে নদীর বাঁশ ও বাঁধ সহ ভেশাল অপসারণে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করবো।