আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

মানিকগঞ্জে মাটি খনন কালে কৃষ্ণমূর্তি উদ্ধার

news-image

মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলায় মাটি খনন কালে কৃষ্ণমূর্তি পাওয়া গিয়েছে। গত সোমবার উপজেলার বরঙ্গাইল গোপাল চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের পুকুর থেকে মাটি খননকালে কৃষ্ণমূর্তিটি পাওয়া হয়।

বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী সাইদুর রহমান জানান, ঈদের আগের দিন চারজন শ্রমিক বিদ্যালয়ের পুকুরে মাটি খনন কাজে নিয়োজিত ছিলেন। ওই সময় পশ্চিম সাহিলী গ্রামের হাকিম উদ্দিনের ছেলে হারেজ মিয়া নামক একজন শ্রমিক মূর্তিটি পেয়ে বাড়ি নিয়ে যান। বাকি তিন জন শ্রমিকের মাধ্যমে বিষয়টি জানাজানি হয়। অফিস সহকারী আরো জানান, বুধবার হারেজের বাড়ি গিয়ে আমি মূর্তিটি উদ্ধার করি। ওই দিনই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. লুৎফর রহমান ও শিবালয় উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহিদুর রহমানের মাধ্যমে জেলা প্রশাসকের ট্রেজারিতে মূর্তিটি জমা দেয়া হয়েছে। তবে মূর্তিটি কোন ধাতুর তৈরি তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। মূর্তিটির ওজন আড়াইশো গ্রামের মতো হবে।
বিদ্যালয়ের অপর শিক্ষক আতাউর রহমান জানান, উদ্ধারকৃত মূর্তিটির ওজন ২৭০ গ্রাম। তার মতে, এক দেড়শো বছর আগে মূর্তি তৈরি হতো স্বর্ণ বা কষ্টিপাথর দিয়ে। এভাবে চিন্তা করলে মূর্তিটি স্বর্ণেরই হওয়ার কথা।

বিদ্যালয়ের (অবসরপ্রাপ্ত) প্রধান শিক্ষক পার্থ সারথী ঘোষের ছেলে দেবাশীষ ঘোষ জানান, এটি নিশ্চিত বাবুদের হরি মন্দিরের কৃষ্ণমূর্তি। নিয়মানুসারে, কৃষ্ণমূর্তির সঙ্গে অবশ্যই বাঁশরী এবং রাধারানীর মূর্তি থাকার কথা। আরেকটু অনুসন্ধান করলেই পুকুরে বাকি দুটো মূর্তি পাওয়া যেতে পারে বলে মনে করেন তিনি। তিনি আরো বলেন, এটি যদি স্বর্ণ ছাড়া অন্য ধাতুর তৈরি হতো তাহলে এতো দিনে মাটির নিচে থেকে বিবর্ণ হয়ে যেত। কিন্তু মূর্তিটি এখনো জ্বলজ্বল করছে।

বরংগাইল গোপাল চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির প্রাক্তন সদস্য ও শিবালয় উপজেলার আওয়ামী লীগ নেতা এআর মাসুদ উদ্দিন পিন্টু বলেন, মূর্তি উদ্ধারের বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. লুৎফর রহমান এলাকার কাউকে কিছু জানাননি। তিনিই ভালো বলতে পারবেন আসল ঘটনা কি!

এ বিষয়ে জানার জন্য বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. লুৎফর রহমানের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেস্টা করা হলেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

শিবালয় উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহিদুর রহমান জানান, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এ বিষয়ে বিস্তারিত বলতে পারবেন। আমরা আসলে জানিনা, মূর্তিটি কোন ধাতুর তৈরি। কারণ এখানে যাচায়ের কোনো সুযোগ নেই। আমরা সঙ্গে সঙ্গে মূর্তিটি ট্রেজারিতে জমা দিয়ে দিয়েছি।

মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ জানান, মূর্তিটি আমাদের ট্রেজারিতে জমা রয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো এক্সপার্ট দিয়ে মূর্তিটি পরীক্ষা করা হয়নি। পরীক্ষা শেষে এটি প্রত্নতত্ত্ব বিভাগে হস্তান্তর করা হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

নারায়নগঞ্জে ৪১৪ জন শিক্ষককের আড়াই কোটি টাকা হাতিয়ে নিলেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম

দৌলতদিয়ায় ৭ ফেরিঘাটের ৪টিই বিকল, যানবাহনের দীর্ঘ সারি

পানির নিচে পন্টুন, ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সারি

ছাত্রদল করা সন্তানের জনক হলেন থানা ছাত্রলীগের সহসভাপতি

যমুনা নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন

চাঁদপুরের ডিসিকে বদলি, তিন জেলায় নতুন ডিসি

গাফফার চৌধুরী আর নেই

প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ভূমি দখলের পাঁয়তারার অভিযোগ

কুমিল্লার মানবজমিন প্রতিনিধিসহ সারাদেশের সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে সোচ্চার রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব ॥ প্রতিবাদ সভা, মানববন্ধন-বিক্ষোভ মিছিল

চাকরির নামে টাকা আত্মসাৎ গ্রেপ্তার ২

মহাসড়কে গাছ ফেলে ডাকাতি করতো তারা, গ্রেফতার ৬

বনের ভেতর সিসা তৈরির কারখানা, হুমকির মুখে পরিবেশ