আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

মামলার প্রধান আসামি এখন চেয়ারম্যান, শপথ পড়ালেন ডিসি

news-image

হত্যার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে কুপিয়ে জখম ও মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ করার মামলার প্রধান আসামিসহ ২৯ জন নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানকে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় শপথবাক্য পাঠ করালেন বরগুনার জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

জানা যায়, বরগুনা জেলায় ২৯টি ইউনিয়নে ২১ জুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সদর উপজেলার ৫নং আয়লা পাতাকাটা ইউনিয়নে বরগুনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেনের ছোটভাই স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মোশাররফ হোসেন ও তার কর্মী বাহিনী ১২ জুন দুপুরে পূর্ব কেওরাবুনিয়া নয়াবাজারের রাস্তায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এম মজিবুল হক কিসলুর নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে।

মজনু শরীফকে হত্যার উদ্দেশ্যে মোশাররফ হোসেন ছেনা দিয়ে মাথায় কোপ দেয়। ডান পায়ে আঘাত করে পা ভেঙে ফেলে। দুই নম্বর আসামি নবনির্বাচিত মেম্বার আবুল বাশার মজনুর মাথায় কুপিয়ে জখম করে। ৯টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে একটিতে অগ্নিসংযোগ করে।

নৌকার প্রার্থী বাদী হয়ে ১৩ জুন বরগুনা থানায় মামলা করলেও পুলিশ কোনো আসামিকে গ্রেফতার করেনি। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় প্রধান আসামি মোশাররফ হোসেন শিল্পকলা একাডেমিতে চেয়ারম্যান হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন। জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান শপথ বাক্য পাঠ শেষে আসামিকে নিয়ে গ্রুপ ছবি তোলেন।

নৌকার প্রার্থী এম মজিবুল হক কিসলু বলেন, বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, বরগুনা পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরগুনা থানাকে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি- শপথ বাক্য পাঠ না করানোর জন্য। তারপরও জেলা প্রশাসক শপথ বাক্য পাঠ করিয়ে একজন আসামিকে নিয়ে গ্রুপ ছবি তোলেন। পুলিশ সুপার শপথ অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকলেও পুলিশ আসামিদের গ্রেফতার করার চেষ্টা করেনি।

বরগুনার জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, আদালত থেকে নিষেধাজ্ঞা ছিল না। এ কারণে শপথ বাক্য পাঠ করানো হয়েছে।