আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

মার্কিন বাহিনীর আফগান সহযোগীদের খুঁজছে তালেবান

news-image

আফগানিস্তানে গেল দুদশকের যুদ্ধে ন্যাটো ও মার্কিন বাহিনীকে সহায়তা করা লোকজনকে খুঁজে বের করতে অভিযান জোরদার করেছে তালেবান। জাতিসংঘের একটি নথির বরাতে ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি এমন খবর দিয়েছে।
নরওয়েজিয়ান সেন্টার ফর গ্লোবাল অ্যানালাইসিসের সরবরাহ করা গোপন নথিতে গোয়েন্দা তথ্যও যুক্ত করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, মার্কিন বাহিনীকে সহায়তা করা লোকজন আত্মসমর্পণ না করলে তাদের হত্যা ও গ্রেপ্তারের হুমকি দিচ্ছে তালেবান। তাদের পরিবারের সদস্যদেরও ছাড় দেওয়া হচ্ছে না।
নিজে থেকে ধরা না দিলে পরিবারের সদস্যদের গ্রেপ্তার করা হবে। এমনকি তালেবানের পক্ষ থেকে অনেকে হত্যার হুমকিও পেয়েছেন।
সামরিক বাহিনী, পুলিশ ও তদন্ত ইউনিটের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করা লোকজন বিশেষভাবে ঝুঁকিতে রয়েছেন। নথিতে বলা হয়, বড় বড় শহরগুলো নিয়ন্ত্রণের আগেই ওইসব লোকদের আগাম তালিকা তৈরি করে রেখেছিল তালেবান।
এমনকি দেশ ছাড়ার উদ্দেশে রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের জড়ো হওয়া মানুষের মধ্যেও বিদেশি সহায়তাকারীদের খোঁজা হচ্ছে।
এদিকে নিজের পানজশির উপত্যকার আস্তানা থেকে তালেবানের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন আফগানিস্তানে সোভিয়েতবিরোধী লড়াইয়ের অন্যতম নেতা আহমাদ শাহ মাসুদের ছেলে আহমাদ মাসুদ।
মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টে লেখা এক সম্পাদকীয়তে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডারের ৩২ বছর বয়সী এই সন্তান বলেন, অভিজাত বিশেষ বাহিনীর কয়েকটি ইউনিটসহ আফগান সামরিক বাহিনীর সদস্যরা তার সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেছেন। তালেবানের বিরুদ্ধে লড়তে তিনি পশ্চিমাদের কাছে সহায়তা চেয়েছেন।
আহমাদ মাসুদ বলেন, আমরা অস্ত্র ও গোলাবারুদ মজুদ করেছি। আমার বাবার আমল থেকে অত্যন্ত ধৈর্যের সঙ্গে এসব সংগ্রহ করেছি। কারণ আমরা জানি—এমন একটি দিন আসবে, যখন অস্ত্রের প্রয়োজন পড়বে।
তালেবান যোদ্ধারা হামলা করলে তাদের ব্যাপক প্রতিরোধের মুখে পড়তে হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। এর আগে প্রয়াত আহমাদ শাহ মাসুদের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ও আফগান ভাইস-প্রেসিডেন্ট আমরুল্লাহ সালেহ বলেন, আশরাফ ঘানির পলায়নের পর তিনি হচ্ছেন আফগানিস্তানের বৈধ প্রেসিডেন্ট।
পানজশির উপত্যকায় এখনো সোভিয়েত সাঁজোয়া যানের ধ্বংসাবশেষ ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সালেও তালেবানের বিরুদ্ধে অঞ্চলটিতে ব্যাপক প্রতিরোধ গড়ে তোলা হয়েছিল।
২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বরের সন্ত্রাসী হামলার কয়েকদিন আগে হত্যাকাণ্ডের শিকার হন আহমাদ শাহ মাসুদ। আফগানিস্তানসহ সারা বিশ্বে তার নাম আলাদা একটা ভার বহন করে আসছে।
কিন্তু পানজশিরে তালেবানের যে কোনো হামলা প্রতিরোধ করা সম্ভব কিনা; তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। যদিও সরু উপত্যকাটিতে এখনো প্রবেশের চেষ্টা করেনি তালেবান।
মাসুদের এই নিবন্ধ তালেবানের সঙ্গে আলোচনার প্রাথমিক পদক্ষেপও হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আহমাদ মাসুদ বলেন, পশ্চিমাদের সহায়তা ছাড়া তালেবানকে তার বাহিনী রুখতে পারবে না। যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ফ্রান্সের কাছ থেকে তিনি রসদ সহায়তা চেয়েছেন।
এই যুবক আরও বলেন, তালেবান কেবল আফগান জনগণের একারই সমস্যা না। তাদের অধীন আফগানিস্তান হবে মৌলবাদী ইসলামপন্থী সন্ত্রাসীদের আস্তানা। তারা এখানে বসে গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ফাঁদার চেষ্টা করবে।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, তালেবান আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি চায় কিনা; এখন তাদের সেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) এবিসি নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এমন মন্তব্য করেন।
তালেবানের উগ্র বিশ্বাসে কোনো পরিবর্তন এসেছে বলেও মনে করেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট।
আফগানিস্তানের এই ইসলামি আন্দোলনের মধ্যে কোনো পরিবর্তন হয়েছে কিনা; জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, না, তারা নিজেদের বদলায়নি। আমি মনে করি, তারা কিছুটা অস্তিত্বের সংকটে ভুগছে। বৈধ সরকার হিসেবে তারা কি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি চায়? আমি মনে করি না, তারা সেটা চাচ্ছে।
তালেবান তাদের বিশ্বাসের প্রতি অটল বলেও মন্তব্য করেন জো বাইডেন। তিনি বলেন, নারীর অধিকার নিশ্চিত করতে তালেবানের ওপর অর্থনৈতিক ও কূটনৈতিক চাপ প্রয়োগ করা হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

১১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে চাষাঢ়া-খাঁনপুর-হাজীগঞ্জ-গোদনাইল-আদমজী ইপিজেড সড়ক কাজ এগিয়ে চলছে

এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে শিবালয়ের যমুনা ড্রেজার মুক্ত

নারায়ণগঞ্জে বাস চাপায় ইষ্ট ওয়েষ্ট ইউনিভার্সিটির দুই শিক্ষার্থী নিহত : অভিযুক্ত চালক গ্রেপ্তাার

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে মাসোহারা না দেয়ায় নির্যাতন, এএসআই ক্লোজড

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে পুলিশের সোর্স পরিচয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

নারায়ণগঞ্জে অটোরিক্সা চোর চক্রের ৬ সদস্য গ্রেপ্তার

নারায়ণগঞ্জে মাদকবিরোধী টাস্কফোর্সের অভিযান, গ্রেপ্তার ১৪

সিদ্ধিরগঞ্জে লন্ডন প্রবাসীকে মৃত দেখিয়ে প্রবাসীর বাড়ী দখল

ঘিওরে নবাগত ওসির সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

ঘুমন্ত স্বামীর বিশেষ অঙ্গন কর্তন, স্ত্রী গ্রেপ্তার

‘লাল পতাকা দেখালেও কথা শুনেনি চালক’

ধলেশ্বরী নদী থেকে মাছ ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার