আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

‘মা, আমরা খুব অসহায়, নির্যাতনে আছি’ ভয়ে উঠানেই সংবাদ সম্মেলন ছাত্রলীগ নেতার

news-image

ইউপি নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ করায় সাভারের বিরুলিয়ায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ওপর হামলা ও নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে স্বতন্ত্র থেকে পাস করা বিরুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম মণ্ডলসহ তাঁর সহযোগীদের বিরুদ্ধে। সোমবার (১৩ জুন) দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ জানান বিরুলিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

বিরুলিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মারকাজুল ইসলাম আকাশ বলেন, ‘গত ৫ জানুয়ারি সাভারের বিরুলিয়া ইউপি নির্বাচনের পর থেকে একটি মহল আমাদের ওপর অত্যাচার শুরু করেছে। প্রায় প্রতিদিনই তারা আমাদের ওপর অত্যাচার করে।
আমি নৌকার নির্বাচন করেছি। এই আমার অপরাধ। তারা বলে, তুই নৌকার নির্বাচন করছস, তোর আর বিরুলিয়ার মাটিতে ঠাঁই হবে না। যারা ছাত্রলীগ করে তাদের অনেককে মারধর করছে, অনেকের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানেও হামলা চালিয়েছে। গত ১২ জুন দুপুরে আমি মামুন হোসেন মাদবরের গাড়িতে করে বাড়ি ফিরছিলাম। খাগান এলাকার ইস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন স্থানে পৌঁছলে বিরুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি সোহেল এসে আমাদের গাড়ির গতি রোধ করে। গাড়িতে আমি, গাড়ির চালকসহ আরেকজন লোক ছিল। সোহেল প্রথমে ২০-৩০ জন লোক নিয়ে এসে ইটপাটকেল মারে। পরে আমাদের ড্রাইভার গাড়ি জোরে টান দেয়। কিন্তু তারা মোটরসাইকেল দিয়ে রাস্তা রোধ করে। তখন বিরুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম মণ্ডলের ভাই জুয়েল মণ্ডল ঘটনাস্থলে আসে। জুয়েল মণ্ডলের নির্দেশে আল-আমিন ড্রাইভারকে মারধর করে, তারেকও মারধর করে। তারা গাড়ি ভাঙচুর করে। গাড়ির লক খুলে আমাকে নামানোর চেষ্টা করে। একপর্যায়ে এলাকার লোকজন এলে তারা ব্যর্থ হয়ে বলে, মামুন কই। মামুনকে বের কর। মামুনকে মেরে ফেলব। তোকেও মেরে ফেলব। আমি ড্রাইভারকে বাঁচাতে গেলে আমাকেও মারধর করে। পরে তারা চলে গেলে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় ড্রাইভারকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি, থানায় অভিযোগ করি। ‘
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত থাকা মামুন হোসেন মাদবর বলেন, ‘হামলার আগের রাতে জুয়েল মণ্ডল মদ খেয়ে আমাকে নূরা মার্কেট এলাকায় গালিগালাজ করেছিল। ওই মার্কেটে এক থেকে দেড় শ লোক ছিল। তারা দেখেছে। আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যেই তারা আমার গাড়িতে হামলা করে। আমাকে না পেয়ে আমার ড্রাইভারকে মারধর করে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই। আমি বাসা থেকে বের হতে পারছি না। ভয়ে নিজ বাড়ির উঠানে সংবাদ সম্মেলন করেছি। ‘

এ সময় বিরুলিয়া ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান বলেন, ‘নির্বাচনের পরে আমার ওপর, আমার পরিবারের ওপর হামলা হয়েছে। আমার ছোট ভাই, আমার চাচাতো ভাইয়ের মাথা ফাটানো হয়েছে। নির্বাচন করার কারণেই এই হামলা। রাস্তাঘাটে চলাচল করার সময় আমিসহ আমাদের কর্মীদের নাম ধরে গালাগালি করে। সেলিম মণ্ডলের লোকজন বাসায় পর্যন্ত গিয়ে বলে ছাত্রলীগ করতে দেওয়া হবে না। বিরুলিয়া ইউনিয়নে ছাত্রলীগ থাকবে না। ‘

ছাত্রলীগ সভাপতি আকাশ বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমাদের একটাই দাবি, মা, আমরা খুব অসহায়, আমরা খুবই নির্যাতনে আছি এই স্বতন্ত্র চেয়ারম্যানের লোকজন দ্বারা। জুয়েল মণ্ডলের উৎপাতে আমরা অতিষ্ঠ হয়ে গেছি। ‘

উল্লেখ্য, বিরুলিয়ার বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম মণ্ডল পূর্বে সাভার উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ছিলেন, পরে তাঁকে যুবলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়। তিনি গত নির্বাচনে নৌকা প্রতীক না পেয়ে আনারস প্রতীকে স্বতন্ত্রভাবে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেন।

এ জাতীয় আরও খবর

পদ্মা সেতু: শিল্পের জন্য প্রস্তুত গোপালগঞ্জ

এখন যানবাহনের অপেক্ষায় ফেরি

ফেরিতে পাঁচ ভাগের এক ভাগে নেমে এলো ছোট গাড়ি

বাঁশখালীতে বিদ্যুৎকেন্দ্রে বিস্ফোরণ

মানিকগঞ্জে পদ্মা সেতুর লাইভ অনুষ্ঠানে অস্ত্র নিয়ে মহড়া, সাংবাদিক গ্রেপ্তার

উল্লাসে মেতেছে পদ্মা পাড়ের মানুষ

চার মাস না যেতেই উঠছে ৯ কোটি টাকার সড়কের পিচ

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর পিঠা উৎসব

নদী ভাঙা মানুষের বিলাপ

সাঁতরে মঞ্চে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলল কিশোরী

বঙ্গবন্ধুর শ্রেষ্ঠ উপহার স্বাধীনতা, আর প্রধানমন্ত্রীর শ্রেষ্ঠ উপহার পদ্মা সেতু : পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী

সেতুর উদ্বোধনে ফায়ার সার্ভিসের শোভাযাত্রা