আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

মির্জাপুরে বংশাই নদীর ভাঙনের মুখে অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি

news-image

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর পৌর এলাকার বাওয়ার কুমারাজনী গ্রামে বংশাই নদী ভাঙন শুরু হয়েছে। নদী ভাঙনের ফলে হুমকির মুখে পড়েছে অর্ধশতাধিক বাড়িঘর। ভাঙন অব্যাহত থাকলে যেকোনো সময় এই বাড়িগুলো বংশাই নদী গর্ভে বিলীন হবে বলে স্থানীয়রা আশঙ্কা করছেন।

বিগত সময়ে ওই এলাকাসহ বংশাই নদীর বিভিন্ন স্থানে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের ফলে এই ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করেছে বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, প্রতি বছর পানি বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এই এলাকায় ভাঙন শুরু হয়। আবার পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয় একই খেলা। বংশাই নদীর এই ভাঙনে পৌরসভার ওই এলাকার এ পর্যন্ত প্রায় অর্ধশতাধিক বাড়ি-ঘর এবং শতাধিক একক ফসলি জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। এবছরও পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে গত কয়েক দিনের ভাঙনে বেশ কয়েকটি বাড়ি নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে।

এছাড়া আরও প্রায় অর্ধশতাধিক বাড়ি-ঘর ভাঙনের মুখে পড়েছে। ভাঙনের হাত থেকে ঘরবাড়ি রক্ষার জন্য অনেকে ঘরের বেড়া ও চালা খুলে অন্যত্র সরিয়ে রেখেছেন।

ভাঙনকবলিত এলাকার বাসিন্দা আব্দুর রশিদ (৬০) বলেন, পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে গত কয়েক দিনের ভাঙন ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। দুই সপ্তাহের ব্যবধানে চারটি বাড়ি নদী গর্ভে চলে গেছে। এছাড়া কয়েকটি বাড়ির ঘরের চালা খুলে অন্যত্র সরিয়ে রাখা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

নজরুল ইসলামের স্ত্রী শিল্পী বেগম বলেন, গত শুক্রবার রান্না করার সময় ভাঙন শুরু হয়, রান্না শেষ না হতেই রান্নাঘর নদীতে বিলীন হয়ে যায়।

ইন্তাজ আলী (৭০) বলেন, তার বাড়ি ছিল চৌদ্দ ডিসেমল। এখন চৌদ্দ হাতও নেই। এই বাড়ি ছাড়া তার এক ডিসেমল বাড়তি জমিও নেই। এখন এই বয়সে পরিবার নিয়ে আমি কোথায় যাবো।

তার মতো ওই এলাকার নাজিমুল, খালেক, সুলতান, সোনাব আলী, বিল্লাল, আশরাফ, আহিলা, রহমান, মোকছেদ, মুনছেরের বাড়িও নদী গর্ভে চলে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।

এলাকার বাসিন্দা নাজমুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, গত প্রায় দেড় যুগ ধরে মন্ত্রী-সচিব-এমপি-মেয়র অনেকেই এসেছেন। তারা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। কিন্ত কাজের কাজ কিছুই হয়নি।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র সালমা আক্তার বলেন, ভাঙনকবলিত ওই এলাকায় অনেক আগে গিয়েছিলাম। বর্তমানের ভাঙনের খবর আমার জানা নেই।

টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজ্জাত হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ভাঙনকবলিত এলাকায় উপসহকারী প্রকৌশলীকে পাঠানো হবে। তার প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে প্রয়োজনী পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

এ জাতীয় আরও খবর

অভিযানের খবরে ড্রেজার রেখে পালালেন অবৈধ বালু উত্তোলনকারীরা

আনোয়ারায় বালু ব্যবসায়ীকে জরিমানা

মাটিকে গুরুত্ব দিয়ে খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

নাশকতা মামলায় বিএনপির বদলে আ.লীগ নেতা আটক পুলিশের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ দলীয় নেতাকর্মী

ধোপাজান নদীর বালু-পাথরের টাকা সিন্ডিকেটের পকেটে

পদ্মার চরে মাটি-বালু লুট চলছেই

শঙ্খ নদী থেকে বালু উত্তোলন, জরিমানা

চাঁঁদপুরের মেঘনা পাড়ের মাটি কাটায় ৪ জনকে দুই লাখ টাকা জরিমানা

নালিতাবাড়ীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, জরিমানা আদায়

টাঙ্গাইলে চায়নার ডেইরি ফিডের জন্য নিশ্চিহ্ন হচ্ছে জমি ও শতাধিক বাড়ি

আমরা উন্নয়ন করি, আর বিএনপি মানুষ খুন করে: প্রধানমন্ত্রী

চট্টগ্রামে ২৯ প্রকল্পের উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর