আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

মোংলায় ড্রেজিংয়ের বালু ভরাট নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ

news-image

মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের কোলাবাড়ী এলাকায় ইনার বার ড্রেজিংয়ের বালু ভরাট নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।
সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকালে চিলা ইউনিয়নের জয়মনি কোলাবাড়ী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এসময় ড্রেজিং কোম্পানির এক চিনা প্রকৌশলীসহ দুই প্রকৌশলী আহত হয়েছে। এ ব্যাপারে ৫ জনকে চিহ্নিত করে অজ্ঞাত নামা প্রায় ১৫ জনের নামে মামলা দায়ের করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

বাদী পক্ষের অভিযোগ, মোংলা বন্দরের ইনার বার ড্রেজিং প্রকল্পের কাজ করার সময় হঠাৎ লোকজন এসে তাদের উপর আক্রমণ চালায়। এসময় কিছু বুঝে ওঠার আগেই অহেতুক চায়না প্রকৌশলীসহ দুজনকে হাতুড়ি ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছে স্থানীয় কতিপয় জমির মালিক ও তাদের লোকজন।

এ ঘটনায় মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রধান প্রকৌশলী ও ইনার বার ড্রেজিং প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক শেখ শওকত আলী বাদী হয়ে সোমবার রাতে মোংলা থানায় একটি মামলা দাযের করে।

পুলিশ জানায়, মোংলা বন্দরের ইনার বার ড্রেজিং প্রকল্পের পশুর চ্যানেল খননে নিয়োজিত চায়না প্রকৌশলী অং ইয়াও (৪৫) ও সাইড ইঞ্জিনিয়ার তন্ময় (৪০) কাজের দেখাশুনা করছিলেন। দুপুরের পরে চিলা ইউনিয়নের কোলাবাড়ী এলাকায় পাইপ পরিষ্কারের কাজ দেখার জন্য যান তারা।

হঠাৎ সেখানকার কতিপয় জমির মালিক ও তাদের লোকজন অতর্কিতভাবে চায়না প্রকৌশলী অং ইয়াও ও মোংলা বন্দরের প্রকৌশলী তন্ময়ের ওপর হামলা চালান। এ সময় হামলাকারীরা ওই দুই প্রকৌশলীকে হাতুড়ি ও লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন।
পরে ইউপি চেয়ারম্যান গাজী আকবার হোসেন খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন সহায়তায় তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করে। আহতদের মধ্যে চায়না প্রকৌশলী অং ইয়াও মোংলার চায়না প্রজেক্টে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ব্যাপারে জমির মালিক পক্ষের প্রতিনিধি শেখ লুৎফর রহমান বলেন, মোংলা বন্দরের কিছু অসাধু কর্মকর্তার সহায়তায় আমাদের কৃষি জমিকে জোরপূর্বক বালু ভরাট করছে চায়না কোম্পানির লোকজন।

প্রতিকার চেয়ে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দেয়ার ফলে গত ৩০ আগস্ট জেলা প্রশাসক মহোদয় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। সে সময় বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রকল্প পরিচালক ও চায়না কোম্পানির লোকজনও উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা ছিল এক সপ্তাহের মধ্যে জমির মালিকদের ক্ষতিপূরণ বুঝিয়ে দেওয়া এবং ৬ ফুট উঁচুর বেশী বালু ভরাট না করা। ওই সময় সে নিদর্শনা মেনেও নেয় বন্দর কর্তৃপক্ষের লোকজন।

কিন্তু জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অমান্য করে জোরপূর্বক আমাদের কৃষি জমিতে ৩০-৩৫ ফুট উঁচু করে বালু ভরাট করছে। আমাদের কৃষি জমির ক্ষতিপূরণও দিবেনা উল্টো আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানী করছে বন্দর কর্তৃপক্ষ ও চায়না কোম্পানির লোকজন বলে অভিযোগ করে জানান জমির মালিক লুৎফর রহমান।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রধান প্রকৌশলী ইনার বার ড্রেজিং প্রকল্পের পরিচালক শেখ শওকত আলী বলেন, চিলার কোলাবাড়ী এলাকায় জমির মালিক ও তাদের লোকজনের ড্রেজিং কোম্পনীর চায়না প্রকৌশলী ও বন্দরের এক কর্মকর্তাকে মেরে আহত করেছে।

তাদের অতর্কিত হামলায় আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ হামলার ঘটনায় পাঁচজন জমির মালিকসহ আরও অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তিদের নামে রাতে মোংলা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ জাতীয় আরও খবর