আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

যশোরে এক দশকেও হয়নি ৫০০ শয্যার হাসপাতাল

যশোর মেডিকেল কলেজে এক দশকেও ৫০০ শয্যার অত্যাধুনিক হাসপাতাল স্থাপন হয়নি। হাসপাতাল স্থাপনের দাবিতে রোববার যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বাস্তবায়ন সংগ্রাম কমিটির ডাকে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। পরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপিও দেওয়া হয়।

বেলা ১১টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করা হয়। এতে যশোরের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা অংশ নেন। সমাবেশ থেকে যশোর মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার ১০ বছরেও প্রস্তাবিত ৫০০ শয্যার হাসপাতাল স্থাপন না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়।

কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য দেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির (মার্ক্সবাদী) সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির, যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বাস্তবায়ন সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক ও জেলা সিপিবির সভাপতি আবুল হোসেন, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ফারাজি আহমেদ সাঈদ বুলবুল, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সুকুমার দাস, সাবেক সভাপতি তরিকুল ইসলাম, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান, আইডিইবি যশোরের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম, বেসরকারি উন্নয়ন প্রতিষ্ঠান জয়তী সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক অর্চনা বিশ্বাস প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন আয়োজক কমিটির সদস্যসচিব জিল্লুর রহমান।

বক্তারা বলেন, ২০১১ সালে যশোর মেডিকেল কলেজ স্থাপিত হলেও হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করা হয়নি। ভারত ও বাংলাদেশ সরকারের যৌথ অর্থায়নে যশোর মেডিকেল কলেজে ৫০০ শয্যার হাসপাতাল স্থাপনের প্রস্তাব ছিল। কিন্তু এক দশকেও সেই প্রস্তাব বাস্তবায়ন হয়নি। এ কারণে একদিকে এই কলেজের শিক্ষার্থীরা অত্যাধুনিক হাসপাতালে হাতে–কলমে শিক্ষা গ্রহণ থেকে অনেকটা বঞ্চিত হয়েছেন; অন্যদিকে যশোরের ২০ লাখ মানুষ কাঙ্ক্ষিত স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য এই জেলার মানুষকে ঢাকা, খুলনা বা কলকাতায় দৌড়াতে হয়। এ কারণে অবিলম্বে ৫০০ শয্যার হাসপাতাল স্থাপন করতে হবে। দাবি জানাচ্ছি।

হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা না হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে যশোর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ মহিদুর রহমান বলেন, যশোর মেডিকেল কলেজসহ দেশের চারটি মেডিকেল কলেজে ভারত ও বাংলাদেশ সরকারের যৌথ অর্থায়নে ৫০০ শয্যার আধুনিক হাসপাতাল স্থাপনের চুক্তি সই হয়। কিন্তু ভারত সরকারের অনিচ্ছার কারণে সম্প্রতি ওই চুক্তি বাতিল হয়েছে। এখন শুধু বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নেই এই হাসপাতাল স্থাপিত হবে। যশোরে অত্যাধুনিক ৫০০ শয্যার হাসপাতাল স্থাপনের প্রস্তাব প্রকল্প পরিচালকের দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ওই প্রস্তাব একনেকে উত্থাপন করা হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

শেখ রাসেলের জন্মদিনে ৫৮ কেজি ওজনের কেক কাটলেন মেয়র জাহাঙ্গীর

বিনা ভোটে নির্বাচিত হচ্ছেন ১৮ চেয়ারম্যান

‘প্রশাসনে বাংলাদেশি যেমন আছে, অসংখ্য পাকিস্তানিও আছে’

সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে জাতিসংঘের আহ্বান

শিশু শ্রমে নির্মাণ হচ্ছে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর

পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় মতবিনিময়

বিএনপি-জামায়াত বা তৃতীয় শক্তির জড়িত থাকার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছি না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পীরগঞ্জে জেলে পল্লিতে হামলার প্রতিবাদে দিনাজপুরে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

উপকূলে ৩নং সতর্ক সংকেত, দক্ষিণাঞ্চলে ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা

‘শেখ রাসেল স্বর্ণ পদক’ বিতরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী

কোন শিশুকে যেন রাসেলের ভাগ্যবরণ করতে না হয়: প্রধানমন্ত্রী

ফতুল্লায় মিশুক চালককে হত্যার দুই ঘাতক গ্রেপ্তার