আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

শেরপুরে ১০ টন অবৈধ পলিথিনসহ ট্রাক জব্দ

news-image

শেরপুরে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই) এর অভিযানে ১০ টন অবৈধ ও নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিনসহ একটি ট্রাক জব্দ করা হয়েছে।
শনিবার (৩১ জুলাই) দুপুরে শেরপুর-ঢাকা মহাসড়কের সদর উপজেলার ভাতশালা ইউনিয়নের জোড়া পাম্প এলাকা থেকে এনএসআই কর্মকর্তারা পলিথিন বোঝাই ওই ট্রাকটি আটক করেন।
ওই ঘটনায় ট্রাক চালক বাবুল মিয়াকে (৪০) আটক করা হয়েছে। জব্দ পলিথিনের আনুমানিক মূল্য ৩০ লাখ টাকা। জেলায় এর আগে এত পরিমাণ নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিন একসঙ্গে আটক হয়নি।
এনএসআই ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাজধানী ঢাকার লালবাগ থেকে এক ট্রাক বোঝাই নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিন শেরপুরে আসছে, এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার দুপুর ১২টার দিকে সদর উপজেলার ভাতশালা এলাকায় অভিযান চালায় এনএসআই কর্মকর্তারা।
ওই সময় প্রথমে ত্রিপলে ঢাকা ট্রাকটি (ঢাকা মেট্রো-ট-২০-১৬১২) আটক করেন তারা।
পরে জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ডিএম সাদিক আল শাফিন ও আসিফ রহমানের উপস্থিতিতে ট্রাকের ত্রিপল খুলে দেখা যায়, সেখানে ট্রাকে ১০ মেট্রিক টন নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিন রয়েছে। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদ্বয়ের নির্দেশনায় পলিথিনসহ ট্রাকটি জব্দ করা হয়।
অভিযানকালে উপস্থিত ছিলেন এনএসআই শেরপুরের উপ-পরিচালক মো. গোলাম কিবরিয়া, জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক পারভেজ আহম্মেদ, পরিদর্শক নয়ন কুমার রায় ও সদর থানার এসআই মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ।
এদিকে আটক ট্রাকচালক বাবুল মিয়া জানান, জব্দ পলিথিন পুরাতন ঢাকার লালবাগ থেকে শেরপুর শহরের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মেসার্স আলম ট্রেডার্সের নামে আনা হচ্ছিল, যার স্বত্বাধিকারী রায়হান নামে এক ব্যক্তি।
এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনসুর আহাম্মেদ বলেন, জব্দ পলিথিন ও ট্রাকসহ আটক চালককে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। ওই ঘটনায় পরিবেশ অধিদপ্তরের তরফ থেকে সদর থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।