আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

সমাজ নিয়ে দ্বন্দ্ব: প্রতিপক্ষের মারধরে শ্রমিক নিহত, আহত ১০

news-image

সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে একটি পাড়ার সমাজ ভাগ করা নিয়ে দ্বন্দ্বে মারধরে এক তাঁত শ্রমিক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন একই পরিবারের আরো অন্তত ১০ জন নারী-পুরুষ ও শিশু। শুক্রবার (২২ এপ্রিল) দুপুরে উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের তেয়াশিয়া গ্রামে এ ঘটনার পর সন্ধ্যায় ওই তাঁত শ্রমিকের মৃত্যু হয়। নিহত বাবলু প্রামানিক (৪৩) তেয়াশিয়া দক্ষিণপাড়ার আব্দুস সাত্তার প্রামানিকের ছেলে।

আহতদের মধ্যে ৬ জনকে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরা হলেন- নিহতের ছোট ভাই বাবু প্রামানিক (৪৩), তার স্ত্রী শাবানা খাতুন (৩৫), ছেলে ৯ম শ্রেণির ছাত্র সিয়াম (১৩), নিকট আত্মীয় মুসা প্রামানিক (৬০), নাজমুল (১৮) ও রুমানা খাতুন (৪৮)।

সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক শামীমুল ইসলাম জানান, হাসপাতালে পৌঁছার আগেই বাবলু প্রামানিক মারা গেছেন। তার মাথায় দুটি স্থানে জখম ও একটি স্থানে ছিদ্র পাওয়া গেছে। আহতদের মধ্যে ৬ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে শাবানা ও নাজমুলের অবস্থা আশংকাজনক। নিহতের লাশ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

এ বিষয়ে বেলকুচি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আসলাম হোসেন রাতে জানান, সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এখনো কেউ আটক হয়নি। স্বজনরা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

মসজিদের মধ্যে মুসা প্রামানিক (৬০) নামে এক ব্যক্তিকে মারধর করা নিয়ে এ ঘটনার সূত্রপাত হয়। মাথায় আঘাত নিয়ে তিনিও হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

ঘটনার বিষয়ে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, পূর্ব শক্রতার কারণে তিন মাস আগে দক্ষিণপাড়ার সমাজ ভাগ হয়েছে। কিন্তু দুই সমাজের মানুষই দক্ষিণপাড়া জামে মসজিদে নামাজ পড়ি। শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে প্রতিবেশী সমাজের নুর আলম মাষ্টার মসজিদের ইমামের তারাবির নামাজের হাদিয়া নির্ধারণ প্রসঙ্গে আলোচনা শুরু করেন। প্রধানদের ছাড়া আলোচনা শুরু করার প্রতিবাদ করলে শুরু হয় তর্কবিতর্ক। একপর্যায়ে মসজিদের মধ্যেই নুর আলম আমাকে মারধর করে। স্থানীয়রা আমাকে উদ্ধারের পর হাসপাতালে পাঠায়।

নিহতের ছোট ভাইয়ের স্ত্রী শাবানা খাতুন বলেন, মসজিদের মধ্যে মারধরের সংবাদ পেয়ে পরিবারের লোকজন মিলে আমরা সেখানে যাই। মুসা প্রামানিককে মারধরের পর নুর আলম মাষ্টার বাড়ি ফিরে গিয়ে আরো লোকজন নিয়ে এসে আমাদেরকে বেধড়ক মারধর শুরু করেন। এসময় দেশীয় অস্ত্র ও লাঠির আঘাতে নারী, পুরুষ ও শিশু মিলে অন্তত ১০/১২ জন আহত হয়েছে।

নিহতের নিকট আত্মীয় একই এলাকার ইউসুফ আলী বলেন, আহতদের প্রথমে বেলকুচি উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। আশংকাজনক অবস্থায় সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পথে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বাবলু প্রামানিক মারা যায়।

নিহতের ভাতিজা বাবুল প্রামানিক বলেন, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দুই দিন আগে নিহতের ছোট ভাই দিনমজুর বাবু প্রামানিকের মেয়ে ও প্রতিবেশী এক ছেলে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ে। সে সময় গ্রাম্য সালিসে উভয়ের মধ্যে বিয়ে পড়িয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু ছেলে পক্ষ মেয়েকে তুলে নেয়নি। এ অবস্থায় ১৫ দিনের ব্যবধানে ওই নববধূকে তালাক দিয়ে ওই ছেলে প্রতিবেশী আরেক মেয়েকে বিয়ে করে। ওই ছেলে স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল মালেকের আত্মীয় হওয়ায় বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়া হয়। এই দ্বন্দ্বের কারণে ৩ মাস আগে তেয়াশিয়া দক্ষিণপাড়ার সমাজ দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে যায়। আমরা ৭০টি পরিবার এবং মেম্বররা ১২টি পরিবার নিয়ে বর্তমানে আলাদা সমাজ করছি। সমাজ বিভক্তির দ্বন্দ্বের কারণেই পরিকল্পিতভাবে এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে।

এ জাতীয় আরও খবর

নারায়নগঞ্জে ৪১৪ জন শিক্ষককের আড়াই কোটি টাকা হাতিয়ে নিলেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম

দৌলতদিয়ায় ৭ ফেরিঘাটের ৪টিই বিকল, যানবাহনের দীর্ঘ সারি

পানির নিচে পন্টুন, ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সারি

ছাত্রদল করা সন্তানের জনক হলেন থানা ছাত্রলীগের সহসভাপতি

যমুনা নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন

চাঁদপুরের ডিসিকে বদলি, তিন জেলায় নতুন ডিসি

গাফফার চৌধুরী আর নেই

প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ভূমি দখলের পাঁয়তারার অভিযোগ

কুমিল্লার মানবজমিন প্রতিনিধিসহ সারাদেশের সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে সোচ্চার রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব ॥ প্রতিবাদ সভা, মানববন্ধন-বিক্ষোভ মিছিল

চাকরির নামে টাকা আত্মসাৎ গ্রেপ্তার ২

মহাসড়কে গাছ ফেলে ডাকাতি করতো তারা, গ্রেফতার ৬

বনের ভেতর সিসা তৈরির কারখানা, হুমকির মুখে পরিবেশ