আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

সরকারি ড্রেনের ওপর মেয়র আব্বাসের সেই মার্কেট নির্মাণ বন্ধ করল প্রশাসন

news-image

গত ২২ আগস্ট পবার এসি ল্যান্ড ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পুলিশসহ ঘটনাস্থলে অভিযান পরিচালনা করেন। পরে তিনি নির্মাণকাজ বন্ধের নির্দেশ জারি করেন।

গত ১৯ জুলাই একতলার ছাদ ঢালাই সম্পন্ন করেন কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী।

উল্লেখ্য, গত ২৮ জুলাই দৈনিক যুগান্তর-এ ‘রাজশাহীতে ড্রেনের ওপর মেয়র আব্বাসের অবৈধ মার্কেট’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। বিষয়টি এতদিন তদন্ত করছিলেন বা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়। গত ২২ আগস্ট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এসিল্যান্ড পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে অবৈধ নির্মাণ কাজ বন্ধ করেছেন।
পৌরবাসীর অভিযোগে জানা গেছে, মহাসড়কের দক্ষিণপ্রান্তে বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ২০১৯ সালে একটি সুপরিসর ড্রেন নির্মাণ করেন কয়েককোটি টাকা ব্যয়ে। এই ড্রেনটির ওপরে কংক্রিটের স্লাব রয়েছে। জায়গাটির মোট আয়তন সোয়া তিন কাঠা।

এই ড্রেনের এক হাজার ১৪৪ বর্গফুট জায়গা দখল করে মেয়র আব্বাস গত এপ্রিলে অবৈধভাবে তিনতলা মার্কেট নির্মাণ শুরু করেন। তিনতলা এই মার্কেটের প্রতিটি তলাতে আটটি করে দোকান নির্মাণ করছিলেন তিনি। ইতিমধ্যে তিনতলা পর্যন্ত অবকাঠামো তোলা হয়েছে। ১৩ বাই ১১ ফুট আয়তনের এসব দোকান থেকে মেয়র আব্বাস আগ্রহী ক্রেতাদের কাছ থেকে ১০ থেকে ১২ লাখ টাকা করে নেয়া হচ্ছে। দৈনিক যুগান্তরে খবর প্রকাশের পর প্রশাসনের নজরে আসায় পবা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ঘটনাস্থলে গিয়ে তা বন্ধ করে দেন।

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে পবা উপজেলার সহকারি ভূমি কমিশনার (এসি-ল্যান্ড) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ এহসান উদ্দীন যুগান্তরকে বলেন, মূলত জায়গা বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের।
তারা এখনো পর্যন্ত কোনো অভিযোগ করেননি। বরেন্দ্রকে বিষয়টি চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। তবে স্থানীয় লোকজন ড্রেনের ওপর এই ধরণের একটি মার্কেট তৈরির ঘোরবিরোধী। এ কারণে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্মাণ কাজ বন্ধ করেছি।

এদিকে বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী পরিচালক (ইডি) প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ যুগান্তরকে বলেন, আমরা অভিযোগ পেয়েছি বরেন্দ্রের একটি ড্রেন দখল করে কাটাখালীর মেয়র মার্কেট বানাচ্ছে। আমরা শিগগির মার্কেট ভেঙ্গে ফেলার জন্য তাকে চিঠি দেব। সে অনুযায়ী পদক্ষেপ না নিলে আমরা আইনী ব্যবস্থা নেবো।