আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

সাভারে নোটিশ ঝুলিয়ে তিন পোশাক কারখানা বন্ধ ঘোষনা করলো কর্র্তৃপক্ষ

news-image

মতিউর রহমান ভান্ডারী : ব্যাংকিং জটিলতা ও অব্যাহত লোকশানের কারন দেখিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে একই মালিকানাধীন তিনটি তৈরী পোশাক কারখানা। রবিবার সকালে সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের রাজ ফুলবাড়িয়া এলাকায় কারখানা তিনটির মূল ফটকে এ বন্ধের নোটিশ টাঙ্গিয়ে দেয় কারখানা কর্র্তৃপক্ষ।
এর আগে, গত (২০ ফেব্রæয়ারি) কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরে মালিক পক্ষ, শ্রমিক প্রতিনিধি, বিজিএমইএর কর্মকর্তা এবং শ্রমিকদের সঙ্গে এক সমোঝতা বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে।
কারখানাগুলো হলো- প্যাশন জিন্স লিমিটেড, রাকেফ অ্যাপারেলস ওয়াসিং এন্ড প্যাকেজিং ইনন্ড্রাস্টিজ লিমিটেড ও প্যাশন এ্যাপারেলস এন্ড ওয়াসার লিমিটেড। কারখানা তিনটিতে প্রায় ৩ হাজার শ্রমিক কাজ করতো বলে জানা গেছে। তবে এর মধ্যে রাকেফ অ্যাপারেলস এর ওয়াসিং অংশটি চালু রাখবেন বলে জানা গেছে।
নোটিশ অনুযায়ী, ব্যাংকিং জটিলতা ও অব্যাহত লোকশানের কারণে বন্ধ হওয়া তিনটি কারখানাগুলোতে আগামী ২৭ ফেব্রæয়ারির মধ্যে সকল শ্রমিক-কর্মচারীদের জানুয়ারী মাসের বেতন ভাতা পরিশোধ করা হবে, ২৯ মার্চ এর মধ্যে শ্রমিক-কর্মচারীদের ফেব্রæয়ারি মাসের ২০ দিনের মজুরি ও ক্ষতিপুরণসহ সকল পাওনাদী দেওয়া হবে এবং ৫ মার্চ চাকুরি থেকে ইস্তফা নেওয়া সকল শ্রমিক-কর্মচারীদের আইননাগুক বকেয়া পাওনা পরিশোধ করা হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।
বাংলাদেশ গার্মেন্টস এন্ড শিল্প শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শ্রমিক নেতা রফিকুল ইসলাম সুজন বলেন, আমাদের উপস্থিতিতেই আলোচনার মাধ্যমে এ ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে। শ্রমিকদের এ সিদ্ধান্ত জানানো হলে তারাও বিষয়টি মেনে নিয়েছে। আমরা আশা করছি কারখানা কর্তৃপক্ষ নির্ধারিত সময়ে শ্রমিকদের পাওনাদি পারিশোধ করবে। তবে হটাৎ করে কারখানাগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন এই শ্রমিক নেতা।
জানতে চাইলে কারখানগুলোর ব্যবস্থাপনা পরিচালনক সাজ্জাদ আলম বলেন, নিজেদের কিছু ব্যক্তিগত সমস্যার কারখানাগুলো সাময়িক বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। সমস্যার সমাধান হলে আগামী তিন মাস পর আবারও কারখানাগুলো পুনরায় চালুর সম্ভাবনা রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, কারখানাগুলো বন্ধ ঘোষনা করে নোটিস ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে। সেখানে উল্লেখ্য তারিখ অনুযায়ী শ্রমিকদের যাবতীয় বকেয়া পাওনাদি পরিশোধ করা হবে।
উল্লেখ্য গত কয়েকমাস ধরেই কারখানাগুলিতে সময়মতো বেতন পরিশোধ করতে পারছেনা কর্তৃপক্ষ। ফলে প্রতি মাসেই বেতন প্রদানের সময় পেরিয়ে গেলে শ্রমিকরা আন্দোলনে নামেন। গত একমাসে শ্রমিকরা ডিসেম্বর এবং জানুয়ারী মাসের বেতনের দাবিতে কারখানায় ভাংচুরসহ সিংগাইর-মানিকগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে কারখানা কর্তৃপক্ষ গত (২০ ফেব্রæয়ারি) কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরে মালিক পক্ষ, শ্রমিক প্রতিনিধি, বিজিএমইএর কর্মকর্তা এবং শ্রমিকদের সঙ্গে এক সমোঝতা বৈঠকে কারখানাগুলো বন্ধের সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন।

এ জাতীয় আরও খবর

সলঙ্গায় মুক্তিযোদ্ধার জায়গা দখলেরচেষ্টা ঃ থানায় অভিযোগ

প্রয়োজনে নিজের খাবার সবার সাথে ভাগ করে খাবঃ রমজান আলী

ভাইরাস সংক্রমন রোধে BIDA(বিডা) এবং মানিকগঞ্জ এইচডি’র যৌথ উদ্যোগে দ্বিতীয় দিন শহরজুরে জীবানুনাশক স্প্রে

সিরাজগঞ্জে পুলিশকে মারপিট : ৬ পুলিশ আহত তমিজউদ্দিন দইঘরের ২ স্বত্বাধিকারী গ্রেফতার

ভাইরাস সংক্রমণ রোধে বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও মানিকগঞ্জ [এইচডি] শহরজুরে জীবাণুনাশক স্প্রে

সিরাজগঞ্জে সংক্রমন প্রতিরোধ আইন অমান্য করে বিক্রয় প্রতিনিধিদের অবৈধভাবে জমায়েত করায় লিভার ব্রাদার্স পরিবেশককে অর্থদন্ড

কুষ্টিয়ায় সীমিত পরিসরে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস 

বিশ্বে করোনা মহামারীতে মৃতের সংখ্যা ২০ হাজার ছাড়িয়েছে, ৩০০ কোটি মানুষ লকডাউনে

কার্যত ‘লকডাউনে’ ঢাকা

স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শেখ হাসিনাকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা

সিরাজগঞ্জে অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রীকে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা করলেন এসিল্যান্ড

কুষ্টিয়ায় ৭ মাসের শিশু আইসোলেশনে, পুরো বাড়ি লকডাউন