আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

সিরাজগঞ্জে শীতের দাপটে হাসপাতালে বাড়ছে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা

news-image

সুজন সরকার, সিরাজগঞ্জ ,সিরাজগঞ্জে গত ১ সপ্তাহে বাড়ছে শীতের দাপট। ঘন কুয়াশায় ঢাকা রয়েছে জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ জেলা শহর। প্রচন্ড শীতে স্বাভাবিক কর্মকান্ড হচ্ছে ব্যহত। ফলে সব চেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে জেলার খেটে খাওয়া ছিন্নমূল ও নি¤œ আয় এবং যমুনার চরাঞ্চলের মানুষগুলো।
শীত থেকে রক্ষা পাচ্ছে না গবাদি পশু। শীত থেকে রক্ষা পেতে গবাদি পশুর গায়ে মুড়িয়ে দেয়া হয়েছে চটের বস্তা।
অপর দিকে হাসপাতালগুলোতে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বিশেষ করে শিশুরা নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট, শ্বাসনালী, ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হচ্ছে হাসপাতালে।
প্রতিদিনই শিশু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। ডায়রিয়া ওয়ার্ড ও শিশু ওয়ার্ডে বেডের বিপরীতে রোগীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় হাসপাতালের মেঝেতে বিছানা বিছিয়ে রোগীদের সেবা দিচ্ছে চিকিৎসক ও সেবিকারা। ফুটপাতের গরম কাপড়ের দোকানগুলোতে ক্রেতাদের ভিড় বেড়েছে। ঘন কুয়াশার কারনে সকালেও হেডলাইট জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল করেছে।
রিক্সা চালক আব্দুল মজিদ উদ্দিনের সাথে তিনি বলেন, প্রচন্ড শীতে ঘর থেকে বেড় হওয়া কঠিন হয়ে দাড়িছে। তারপরও পেটের তাগিতে বেড় হচ্ছি। তবে শীতের কারনে যাত্রীর সংখ্যা কমে গেছে বলে তিনি জানান।
পুরাতন কাপড় ক্রয় করতে আসা ফজলার রহমান বলেন, আমি দিন মজুর, প্রতিদিন আয় করি প্রতিদিন খাই। আমার দামি পোষাক কেনার ক্ষমতা নেই। তাই ছেলে মেয়েকে নিয়ে পুরাতন গরম কাপড় কিনতে এসেছি। পরিবার নিয়ে শীতে আর থাকতে পারছি না।
পুরাতন কাড়প ব্যবসায়ী বাবু হোসেন বলেন, প্রথমে প্রচন্ড শীত ছিল। তখন বেশ কাপড় বিক্রি করেছি। মাঝে শীত কমে যাওয়ায় কেনা বেচা কমে ছিল। কিন্তু গত তিন দিনে আবার বেচা কেনা দ্বিগুন হয়েছে।
এ ব্যাপারে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার (শিশু বিভাগ) ডাক্তার রুবাইয়া নাহার বলেন, যে পরিমান শিশু রোগী স্বাভাবিক দিনে হাসপাতালে ভর্তি হয় বর্তমানে ঠান্ডার প্রকোপ অনেক বেশি বেড়ে যাওয়ায় দ্বিগুন রোগী ভর্তি হচ্ছে। এতে বেশি পরিমান রোগীকে সেবা দিতে গিয়ে আমরা হিমসিম খেয়ে যাচ্ছি। হাসপাতালে যে পরিমান লোকবল থাকার কথা তার চেয়ে কম আছে। তার পরও আমরা সেবা দিয়ে যাচ্ছি।
নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট, শ্বাসনালী, ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে গেছে। বিশেষ করে ডায়রিয়ার প্রকোপ অনেক পরিমান বেড়ে গেছে। এ অবস্থায় যেটি করণীয় তা হলো ছোট বাচ্চাদের ঠান্ডা থেকে রক্ষা করতে গরম কাপড় ব্যবহার ও গরম খাবার খাওয়ানো। বেলা ১২টার মধ্যে গরম পানি দিয়ে গোসল করা।

এ জাতীয় আরও খবর

কুষ্টিয়ায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব’র জন্মবার্ষিকী পালন

ভোলায় মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন বৃদ্ধকে খুঁটিতে বেঁধে নির্যাতন, খাওয়ানো হলো গোবর!

তাড়াশে ওসির বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

মাহাথিরের নতুন দল গঠনের ঘোষণা

কুষ্টিয়ায় ৭৪ জন নতুন করোনা রোগী সনাক্ত, মৃত্যু ২

যৌতুকের টাকার জন্য বিয়ের আসর থেকে চলে গেল বরপক্ষ

বাকেরগঞ্জে বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে মাছের ঘের দখলের অভিযোগ

কেরালায় এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান বিধ্বস্ত: নিহত ১৬, আহত শতাধিক

মেজর (অব.) সিনহা হত্যা মামলা ওসি প্রদীপসহ সাত পুলিশ সদস্য সাময়িক বরখাস্ত

পল্লবী থানার ভেতর বিস্ফোরণ সন্ত্রাসীরা জঙ্গিদের ভাড়া করা?

জেকেজির দুই হাজার রিপোর্টে গরমিল, দ্রুতই অভিযোগপত্র

সাবেক সচিবের দখলে আস্ত চর