আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

সিলেটের পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার

news-image

সিলেটে আন্দোলন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন পরিবহন শ্রমিকরা। ৫ দফা দাবিতে সোমবার সকাল ছয়টা থেকে সিলেট বিভাগজুড়ে ডাকা অনির্দিষ্টকালের ‘পরিবহন ধর্মঘট’ প্রত্যাহার করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের বিভাগীয় কমিটি।
সিলেট বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত বৈঠক শেষে ফেডারেশন নেতৃবৃন্দ এ ঘোষণা দেন।

বিষয়টি রাত ১০টায় যুগান্তরকে নিশ্চিত করেন ফেডারেশনের বিভাগীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সজীব আলী। তিনি জানান, সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিবের মধ্যস্থতায় বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে বৈঠক হয়। সন্ধ্যা ৭টা থেকে প্রায় সাড়ে ৯টা পর্যন্ত বৈঠকে ধর্মঘট স্থগিতের সিদ্ধান্ত হয়।

এসময় দাবি শ্রমিকদের ৫টি দাবি পূরণে আগামী ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত প্রশাসনকে সময় বেঁধে দিয়েছেন তারা। এর মধ্যে দাবিগুলো পূরণ না হলে আবারও আন্দোলনের পথে হাঁটবেন পরিবহন শ্রমিকরা।

এর আগে সিলেটে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে ২১ নভেম্বর পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়ে স্মারকলিপি প্রদান করেছিলেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ। সেই সময় শেষ হয় গত রোববার।

কিন্তু তাদের ৫ দফা দাবি আদায় হয়নি বলে জানান পরিবহন শ্রমিক নেতৃবৃন্দ। ফলে সোমবার থেকে কঠোর আন্দোলনে নামে তারা। সোমবার ভোর ৬টা থেকে সিলেট বিভাগজুড়ে কর্মবিরতি পালন করেন পরিবহন শ্রমিকরা।

তাদের দাবিগুলো হচ্ছে- সিলেট জেলা অটোটেম্পু, অটোরিকশা চালক শ্রমিক জোট এর ত্রিবার্ষিক নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা, ‘প্রহসনের নির্বাচন’ ও ‘বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়’ ঘোষিত কমিটি বাতিল করা ও মনোনয়ন ফি বাবত আদায়কৃত সব টাকা ফেরত প্রদান, সিলেটের আঞ্চলিক শ্রম দফতরের উপপরিচালককে প্রত্যাহার, সিলেট জেলা বাস মিনিবাস কোচ মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দের উপর দায়েরকৃত মামলাসমূহ প্রত্যাহার, ট্রাফিক পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশের সকল প্রকার হয়রানি বন্ধ, মেয়াদ উত্তীর্ণ শেরপুর, শেওলা, লামাকাজী, শাহপরাণ ও ফেঞ্চুগঞ্জ সেতু থেকে টোল আদায় বন্ধ এবং চৌহাট্টাসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানে কার, মাইক্রোবাস, লেগুনা, সিএনজি অটোরিকশসহ সব প্রকার গাড়ির পার্কিং ব্যবস্থা করা।