আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

হামলা চালিয়ে অসংখ্য ছাত্রকে হত্যা করতে চেয়েছিল এক জঙ্গি

বড় ধরনের হামলা চালিয়ে একসঙ্গে অসংখ্য ছাত্রকে হত্যা করতে চেয়েছিল মো. দেলোয়ার নামে এক জঙ্গি। বাংলাদেশে হামলা করে বিশ্ববাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করার লক্ষ্য ছিল তার। বৃহস্পতিবার দুপুরে আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ (এআইইউবি)-এর একটি গাড়িতে পেট্রোল বোমা মারতে গিয়ে হাতেনাতে গ্রেপ্তার হন তিনি। এরপর তাকে হেফাজতে নেয় কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)। শুক্রবার তাকে তিন দিনের রিমাণ্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

এ ব্যাপারে সিটিটিসির ডিসি আব্দুল মান্নান সমকালকে বলেন, দেলোয়ার ‘সেলফ রেডিকালাইজড’। কিছুদিন জাপানে ছিল সে। তার গ্রামের বাড়ি মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরে। সেখান থেকে ঢাকায় এসে একটি বাসে হামলা চালায়। ভাগ্যবশত বোমাটি ফাটেনি। অনেকের দৃষ্টি কাড়তে বড় হামলার পরিকল্পনা ছিল তার।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার গুলশানের অভিজাত এলাকায় একটি দূতাবাস সংলগ্ন সড়কে একটি মাইক্রোবাস লক্ষ্য করে পেট্রোল বোমা ছোড়ে দেলোয়ার। ওই গাড়িটি ছিল এআইইউবি’র। ঘটনার সময় মাইক্রোবাসে প্রতিষ্ঠানটির দু’জন কর্মকর্তা ছিলেন। হামলার পরপরই প্রত্যক্ষদর্শী ও পথচারিরা দৌঁড়ে দেলোয়ারকে আটক করেন। এরপর গুলশান থানায় খবর দেওয়া হয়। পুলিশ তার কাছ থেকে একটি ব্যাগ উদ্ধার করে। তার ভেতরে এক লিটারের বেশি তরল পদার্থ, দুটি লোহার তৈরি ছুরি ছিল।

পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দেলোয়ার হামলার কারণ সম্পর্কে ব্যাখা দেয়- কেন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে মুসলমানদের ওপর হামলা হলেও বাংলাদেশ সরকার চুপ করে আছে- এটা মানতে পারছেন না তিনি। দেশে হামলা চালিয়ে সরকারকে বিব্রত করা আর বিশ্ববাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করাই তার লক্ষ্য ছিল।

পুলিশের ওই কর্মকর্তা জানান- দেলোয়ারের ইলেট্রনিক্স ডিভাইস পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা হবে, সে কোনো জঙ্গি সংগঠনের মতাদর্শে বিশ্বাসী কি-না। তবে দেলোয়ার সেলফ রেডিকালাইজড, এটা পুলিশ প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হয়েছে। তার বিরুদ্ধে এরই মধ্যে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে একটি মামলা হয়েছে। এজাহারে বলা হয়- শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও স্টাফদের ওপর বড় পরিসরে হামলা চালিয়ে বড় ধরনের প্রাণহানি ঘটিয়ে ভয়ঙ্কর তৈরি করে দেশকে অস্থিতিশীল করার ছক ছিল তার। অনলাইনে উগ্রপন্থি বিভিন্ন অডিও-ভিডিও দেখতেন তিনি। এরই মধ্যে দেলোয়ারের গ্রামের বাড়িতেও অভিযান চালিয়েছে পুলিশ।