আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

হারানো মোবাইল খুঁজে বের করাই এই এএসআই’র কাজ

news-image

পুলিশের চাকরিকে তিনি নিয়েছেন জনগণের সেবা হিসেবে। তাইতো মানুষের কল্যাণে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন বাঁধাহীন ভাবে। বলছি গুলশান থানার এএসআই আব্দুল কাদেরের কথা।

যাকে কেউ ডাকেন মোবাইল কাদের আবার কেউবা মোবাইলের যাদুকর। কর্মজীবনে তিনি ছিনতাই অথবা হারিয়ে যাওয়া অন্তত তিন হাজার মোবাইল খুঁজে পৌঁছে দিয়েছেন প্রকৃত মালিকদের কাছে।

২০০৫ সালে পুলিশের কনস্টেবল হিসেবে কর্মজীবন শুরুর করেন তিনি। চাকরি জীবনে তিনি মানুষের ব্যতিক্রমী এক সমস্যা সমাধানের অন্যতম নির্ভর ব্যক্তি হয়ে উঠেছেন। কারো মোবাইল ফোন হারিয়ে গেলেই ডাক পড়ে তার। দীর্ঘ ষোলো বছরের চাকরির জীবনে অর্ধেক সময় পার করেছেন মোবাইল উদ্ধারে। মোবাইলের বাজারমূল্য তার কাছে গুরুত্বপূর্ণ নয় মোবাইল খুঁজে বের করাই তার প্রধান কাজ।

এ বিষয়ে এএসআই আব্দুল কাদের বলেন, অনেক রিকশাচালক এবং শ্রমিকরা তাদের হারানো ফোন উদ্ধারের আশায় আমার কাছে এসে জিডি করেন। আমিও গুরুত্বের সঙ্গে তাদের ফোন উদ্ধারে চেষ্টা করি। অনেক দামি জিনিস হারানোর চাইতে মোবাইল হারানোর কষ্ট অনেক বেশি। জিডি করার পর ফোন উদ্ধার করে ভুক্তভোগীকে ফোন দিলে তারা বিশ্বাসই করতে চায় না।

২০১৩ সাল থেকে প্রায় তিন হাজার হারানো মোবাইল উদ্ধার করেছেন তিনি। বিগত আড়াই বছরে শুধু গুলশান থানার জিডির বিপরীতে ৬০০ মোবাইল গ্রাহককে ফিরিয়ে দিয়েছেন এই পুলিশ সদস্য।

শুধু গুলশান নয় হারানো মোবাইল খুঁজে পেতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসেন ভুক্তভোগীরা। তার এমন ব্যতিক্রমী কাজের জন্য পুলিশ থেকে ১৬ বার পুরস্কৃত হয়েছেন।