আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

৩০০ আসনেই প্রার্থী দেবে জাতীয় পার্টি: চুন্নু

news-image

জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও সাবেক মন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু বলেছেন, ২০১৯ সাল থেকে আওয়ামী লীগের সঙ্গে কোনো প্রেম ভালোবাসা নাই। আমরা নিজস্ব পরিচয়ে এখন চলছি। আগামী নির্বাচনে ৩০০ আসনেই জাতীয় পার্টির প্রার্থী দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নগরীর টাউনহল শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে জাতীয় পার্টির ৩৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত চার দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার সমাপনী পর্বে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আগামীতে জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে এরশাদের রূপরেখা অনুযায়ী প্রাদেশিক সরকার ব্যবস্থা চালু করা হবে।

মহানগর জাতীয় পার্টি মহানগর শাখার সভাপতি জাহাঙ্গীর আহমেদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জাতীয় পার্টির অতিরিক্ত মহাসচিব, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইমাম এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আব্দুস সবুর আসুদ, কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান মোস্তফা আল মাহমুদ, যুগ্ম-মহাসচিব জসিম উদ্দিন ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা ডা. কে আর ইসলাম, কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির এনজিও বিষয়ক সম্পাদক হাফিজ উদ্দিন মাষ্টার, কেন্দ্রীয় সদস্য আবু মুসা সরকার ও শফিকুল আলম তপন, সাবেক এমপি সালাহ উদ্দিন মুক্তি, ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম প্রমুখ।

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন, জেলা জাতীয় পার্টির সহসভাপতি সোহরাব উদ্দিন, মহানগর জাতীয় পার্টির লাল মিয়া লাল্টু, শরীফুল ইসলাম খোকন, মো. শাহজাহান প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। এর আগে ত্রিশাল ও ভালুকায় পৃথক পথসভায় অংশ নেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব।

আওয়ামী লীগ ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের সমালোচনা করে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগে শত শত কোটি টাকা লুটপাট হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিফতরে একজন কেরানী ও তার স্ত্রী দেড় হাজার কোটি টাকার মালিক এবং একজন ড্রাইভার ৫০০ কোটি টাকার মালিক।

তিনি বলেন, আমেরিকান গবেষণা সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী দেশ থেকে প্রতি বছর ৬৪ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়। হাজার হাজার কোটি টাকা লোন নিয়ে বিদেশে পাচার করছে এই সরকার আমলে।’ চলমান স্থানীয় সরকার নির্বাচনে মনোনয়ন বাণিজ্য ও নির্বাচন নিয়ে তীব্র সমালেনা করেন তিনি।

বিএনপির সমালোচনা করে চুন্নু বলেন, বিএনপি তাদের নেত্রীর চিকিৎসার জন্য দাবি করে। কিন্তু তিনি যখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন এরশাদকে নাজিমুদ্দিন রোড থেকে মেডিকেল বোর্ড শাহবাগ পিজি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য সুপারিশ ও আন্দোলন সংগ্রাম করলেও সামান্যতম দয়া হয়নি। কিন্তু আজ বিএনপি নেত্রীর চিকিৎসার জন্য আন্দোলন করতে হয়।

এ জাতীয় আরও খবর