আমরা নিরপেক্ষ নই আমরা সত্যের পক্ষে

৬৪০০ বস্তা সারসহ ডুবে যাওয়া বাল্কহেড ৯ দিন পর উদ্ধার

বরিশালের বানারীপাড়ায় সন্ধ্যা নদীতে বিসিআইসির ৬৪০০ বস্তা ইউরিয়া সারসহ এমভি আব্দুর রহমান-২ বাল্কহেড ডুবে যাওয়ার ৯ দিন পর উদ্ধার করা হয়েছে।
বুধবার রাত পৌনে ৯টার দিকে স্থানীয় ডুবুরিরা ঘরোয়া পদ্ধতিতে ড্রামে পানি ঢুকিয়ে ডুবিয়ে দিয়ে বাল্কহেডের সঙ্গে বেঁধে হাওয়া দিয়ে সেই পানি বের করে সেটি সন্ধ্যা নদীর তলদেশ থেকে উপরের দিকে ভাসিয়ে উদ্ধার করেন। পরে ওই বাল্কহেডটি পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়।

পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিপন কুমার সাহার নির্দেশে বাল্কহেডের মালিকপক্ষ সেটি অন্য দুটি বাল্কহেডের সহায়তায় বৃহস্পতিবার বেলা দেড়টার দিকে বানারীপাড়া পৌর শহরের মুসলিম গোরস্থান সংলগ্ন চরে এনে রাখেন। এ সময় সেখানে জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি ওই বাল্কহেডটি তদন্ত করেন। তদন্ত শেষে বাল্কহেডটি সেখানের একটি গ্যারেজের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত স্থান মেরামত করা হবে বলে মালিকপক্ষ যুগান্তরকে জানিয়েছেন।

অপরদিকে বানারীপাড়ার সন্ধ্যা নদীতে বিসিআইসির ৬৪০০ বস্তা ইউরিয়া সারসহ এমভি আব্দুর রহমান-২ বাল্কহেড ডুবে যাওয়ার ঘটনায় বরিশাল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তদন্ত কমিটির সদস্য ও বরিশাল বিআইডব্লিউটিএর নদীবন্দর কর্তৃপক্ষের যুগ্ম পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান যুগান্তরকে জানান, সন্ধ্যা নদীতে ডুবে যাওয়া এমভি আব্দুর রহমান-২ বাল্কহেডটির সার্ভে রিপোর্ট আছে কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এছাড়া তাদের তদন্তে ওই বাল্কহেডের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের অনিয়ম পেলে তারা প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

প্রসঙ্গত, ২২ নভেম্বর সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বাল্কহেডটি বানারীপাড়ায় সন্ধ্যা নদীতে ডুবে যায়।